বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের সংস্থার ডিরেক্টর পদে রিয়া ও তাঁর ভাই, সৌভিককে তলব পুলিশের : রিপোর্ট
সুশান্ত সিং রাজপুতের সংস্থায় ডিরেক্টর ছিলেন রিয়া চক্রবর্তী এবং ভাই শৌভিক, দাবি রিপোর্টে (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম)
সুশান্ত সিং রাজপুতের সংস্থায় ডিরেক্টর ছিলেন রিয়া চক্রবর্তী এবং ভাই শৌভিক, দাবি রিপোর্টে (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম)

সুশান্তের সংস্থার ডিরেক্টর পদে রিয়া ও তাঁর ভাই, সৌভিককে তলব পুলিশের : রিপোর্ট

সুশান্ত সিং রাজপুতের ডায়েরি থেকে সেই তথ্য পাওয়া গিয়েছে বলে খবর।

সুশান্ত সিং রাজপুতের সংস্থায় ডিরেক্টর ছিলেন রিয়া চক্রবর্তী এবং ভাই শৌভিক। একাধিক রিপোর্টে সেই দাবি করা হয়েছে। এবার একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বয়ান রেকর্ডের জন্য শৌভিককে ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ।

একাধিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, মৃত্যুর পর সুশান্তের পাঁচটি ডায়েরি উদ্ধার করেছে পুলিশ। সেখানে রোজকার বিশেষ ঘটনা লিখে রাখতেন সুশান্ত। সেই ডায়েরি অনুযায়ী গত অক্টোবর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত সুশান্ত দুটি সংস্থা শুরু করেছিলেন বলে একাধিক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। একটি সংস্থার ডিরেক্টর ছিলেন সুশান্ত, রিয়া এবং তাঁর ভাই। একটি সংস্থা ছিল কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের। ২০১৯ সালে আত্মপ্রকাশ করা সংস্থায় ছিলেন সুশান্ত এবং শৌভিক। তবে তাতে একা সুশান্তই বিনিয়োগ করেছিলেন বলে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে।

তবে সেটাই প্রথম নয়, আগেও একটি সংস্থা খুলেছিলেন সুশান্ত। সেই সংস্থায় অবশ্য রিয়া বা তাঁর ভাই ছিলেন। ২০১৮ সালের সেই সংস্থায় সুশান্তের সঙ্গে ডিরেক্টর পদে ছিলেন আরও দু'জন। একটি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ডায়েরিগুলিতে সেইসব সংস্থার সংক্রান্ত পুঙ্খানুপুঙ্খু তথ্য লিখে রাখতেন সুশান্ত। কোন সংস্থায় ডিরেক্টর কে হবেন, কে কোন কাজের দেখভাল করবেন, তার খুঁটিনাটি লিখে রাখতেন। তার ভিত্তিতে সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টের সঙ্গে কথা বলে পুলিশ রিপোর্ট তৈরি করেছে বলে ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। সেইসব প্রমাণের উপর নির্ভর করে তদন্ত আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে পুলিশ।

বন্ধ করুন