বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'রিয়া-শৌভিকের গ্রেফতারির পর থেকে আত্মহত্যার কথা ভেবেছি', স্বীকারোক্তি মায়ের
মায়ের সঙ্গে রিয়া চক্রবর্তী (ছবি- সংগৃহীত)
মায়ের সঙ্গে রিয়া চক্রবর্তী (ছবি- সংগৃহীত)

'রিয়া-শৌভিকের গ্রেফতারির পর থেকে আত্মহত্যার কথা ভেবেছি', স্বীকারোক্তি মায়ের

  • রিয়াকে স্বাভাবিক জীবনে কীভাবে ফিরিয়ে আনবেন তা নিয়ে উদ্বিগ্ন মা, সন্ধ্যা চক্রবর্তী!

গত একমাস ধরে চোখে ঘুম নেই, ঠিক মতো খেতেও পারছেন না- এমনকি ঘুরে ফিরে মাথায় আসছে আত্মহত্যার চিন্তা। এমনটাই দাবি করলেন রিয়া চক্রবর্তীর মা সন্ধ্যা চক্রবর্তী। প্রায় গত এক মাস ধরে মুম্বইয়ের বাইকুল্লা জেলবন্দি থাকার পর বুধবার শর্তসাপেক্ষে জামিন পেয়েছেন সুশান্ত মামলার মূল অভিযুক্ত রিয়া। প্রয়াত অভিনেতার মৃত্যু মামলার সঙ্গে জড়িত মাদককাণ্ডে গত ৮ সেপ্টেম্বর গ্রেফতার হয়েছিলেন নায়িকা। যদিও এখনও তালোজা জেলেই বন্দি রয়েছেন রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী। রিয়া মাদকচক্রের অংশীদার এই দাবি না মানলেও শৌভিকের যে সরাসারি যোগ করেছে মাদকচক্রের সঙ্গে তা মেনে নিয়েছে বম্বে হাইকোর্ট। 

সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন রিয়া ও তাঁর পরবিরার সেই মর্মে গত ২৫ জুলাই বিহারের রাজীব নগর থানায় মামলা দায়ের করেন প্রয়াত অভিনেতার বাবা কেকে সিং। তারপর থেকেই গোটা দেশের নিশানায় চক্রবর্তী পরিবার। ‘জাস্টিস ফর রিয়া’র দাবিতেও অনেকেই সরব হয়েছেন, বলিউডের তরফেও রিয়ার সমর্থনে আওয়াজ তুলেছেন হুমা কুরেশি, বিদ্যা বালান, অনুরাগ কশ্যপ,তাপসী পান্নুরা। তবে সুশান্ত সমর্থকরা রিয়ার বিরুদ্ধে লাগাতার ক্ষোভ উগরে দিচ্ছে। অন্যদিকে অভিযুক্ত নায়িকার জামিনের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবে এনসিবি। 

রিয়ার মা টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, ‘ওর উপর দিয়ে যা ঝড় বয়ে গেল…কীভাবে সামলাবে ও নিজেকে? আমি জানি আমার মেয়ে লড়াকু এবং ও নিজেকে শক্ত রাখবে’। সন্ধ্যা চক্রবর্তী যোগ করেন- ‘আমাকে তো ওর থেরাপি করাতে হবে যাতে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা সম্ভবপর হয় ওর জন্য- যে মানসিক যন্ত্রণা এবং ট্রমার মধ্যে দিয়ে ওকে যেতে হল’।

গতকাল সকালে জামিনের আর্জিতে হাইকোর্টের সিলমোহর পড়বার পর সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরেন রিয়া, এদিন অভিযুক্ত নায়িকাকে মিডিয়ার নজর থেকে বাঁচিয়ে রাখতে জেল থেকে যখন তাঁর গাড়ি বার হয়, সেই গাড়ির কাঁচ ঢেকে দেওয়া হয়েছিল খবরের কাগজে। 

সন্ধ্যা চক্রবর্তী জানান, রিয়া বাড়ি ফেরার পর বাবা-মা'কে মন শক্ত করতে বলেছেন। বারবার রিয়ার উপর সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণ করা হলেও নিজের মর্যাদা অক্ষুণ্ন রেখেছে সে দাবি করেন অভিযুক্ত নায়িকার মা। ‘আজও বাড়ি এসে ও আমাদের বলল তোমাদের এইরকম দুঃখী লাগছে কেন? আমাদের সকলকে শক্ত থাকতে হবে আর এই লড়াইটা লড়তে হবে’। 

ছেলেকে এখনও জেলবন্দি, এই প্রসঙ্গে রিয়ার মা বলেন- ‘আমার ছেলে এখনও বন্দি এবং প্রতি মুহূর্তে আতঙ্কে ভুগছি কাল কী হবে? আমি কীভাবে ঘুমাব বা খাব বলুন? আমার সন্তানরা জেলে রয়েছে। গত এক মাস ধরে আমি ভালোভাবে খেতে বা ঘুমোতে পারছি না। মাঝরাতে প্যানিক অ্যাকাটের শিকার হচ্ছি। আমাদের গোটা পরিবারকে ধ্বংস করে দেওয়া হল। মাঝেমাঝে মন হয় এর থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় জীবন শেষ করে দেওয়া। যদিও আমি এমন মানুষ নই, সেটা আপনি জানেন। আমাকে থেরাপি নিতে হচ্ছে। আমি নিজেই নিজেকে বারবার মনে করাচ্ছি আমাকে এখানে থাকতে হবে আমার ছেলেমেয়ের জন্য’। 

আপতত বাড়িতে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগিয়েছেন সন্ধ্যা চক্রবর্তী। নিজেদের সুরক্ষার কথা ভেবেই নাকি এই সিদ্ধান্ত, 'আজকাল ডোর বেল বাজলেই আমরা চমকে উঠছি'- যোগ করেন তিনি। 

রিয়ার আইনজীবী সতীশ মানেসিন্ধে জানিয়েছেন- ‘নিজের নষ্ট ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে সফল হবে রিয়া’। অভিযুক্ত নায়িকাকে ‘বেঙ্গল টাইগ্রেস’ বলেও অভিহিত করেন মানেসিন্ধে। 

বন্ধ করুন