বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘মহেশ ভাট আমার বাবার মতো, তবুও আমাকে ওঁনার গার্লফ্রেন্ড বলা হচ্ছে’, আফসোস রিয়ার
মহেশ ভাট ও রিয়া চক্রবর্তী 
মহেশ ভাট ও রিয়া চক্রবর্তী 

‘মহেশ ভাট আমার বাবার মতো, তবুও আমাকে ওঁনার গার্লফ্রেন্ড বলা হচ্ছে’, আফসোস রিয়ার

  • মহেশ ভাট কি সুশান্তের সঙ্গে রিয়াকে সম্পর্ক ভাঙার কথা বলেছিলেন? এই প্রশ্নের জবাবে কী বললেন অভিযুক্ত নায়িকা।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামলার মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী আপতত সিবিআইয়ের জেরার মুখে। তবে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়ার ঠিক আগে নির্বাচিত সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন রিয়া চক্রবর্তী। আজ তকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে রিয়া চক্রবর্তী মুখ খোলেন পরিচালক মহেশ ভাটরের সঙ্গে নিজের সম্পর্ক নিয়ে। সুশান্তের মৃত্যুর পর মহেশ ভাটের সঙ্গে রিয়ার সম্পর্ক নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কম কাঁটাছেড়া হয়নি। তবে রিয়ার কথায় মহেশ ভাট তাঁর ‘বাবার সমতুল্য'।

রিয়া জানান, ৮ জুন সুশান্ত তাঁকে অ্যাপার্টমেন্ট ছেড়ে চলে যেতে বললে তিনি মানসিকভাবে প্রচণ্ড ভেঙে পড়েছিলেন। নায়িকা যোগ করেন,'আমি খুব আপসেট ছিলাম এবং আঘাতও পেয়েছিলাম। আমার খুব খারাপ লাগছিল যে ও আমাকে পাল্টা ফোন করল না। ও আমাকে ফিরে যেতে বলল না। ওর জন্য কী সব শেষ হয়ে গিয়েছিল? এইটুকুই ছিল (আমাদের সম্পর্ক) ? আমি অসুস্থ তাই কি ও আর আমাকে ভালোবাসো না ? কেউ এইরকম বললে খারাপ তো লাগবেই,উদ্বিগ্ন তো ছিলামই আমার তো রীতিমতো প্যানিক অ্যাটাক এসে গিয়েছিল'।

সম্প্রতি মিডিয়াতে ফাঁস হয়ে যায় মহেশ ভাট এবং রিয়ার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটও। ৮ জুনের পর সুশান্তের সঙ্গে কোনওরকম সম্পর্ক না রাখলেও মহেশ ভাটের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল রিয়ার। সেখানে উঠে এসেছে সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার ব্যাপারে জলেবি প্রযোজককে জানিয়েছিলেন রিয়া। শুধু তাই নয় মহেশ ভাটের কথা শুনেই ‘মুভ অন’ করবার সিদ্ধান্ত নাকি শেষেমেষ নিয়ে ফেলেছেন রিয়া বলে নিজেই সেই চ্যাটে জানিয়েছিলেন অভিযুক্ত।

 এই প্রসঙ্গে রিয়া বলেন, 'হ্যাঁ, আমি মহেশ ভাট সাহাবের সঙ্গে কথা বলেছিলাম কারণ উনি আমার বাবার মতো, আমি ওঁনাকে ফোন করেছিলাম..বলেছিলাম সুশান্ত আমাকে চলে যেতে বলেছে, আমি পুরোপুরি বিধ্বস্ত। উনি আমাকে বলেন বাবার কথা ভাব এবং বাড়ি ফিরে যাও। আমি ভেঙে যেতে পারি না। এই কথাই উনি বলেছিলেন। এই কথোপকথনটা ভুলভাবে মানুষ বুঝছে। আমাকে উনার গার্লফ্রেন্ড হিসাবে তুলে ধরা হচ্ছে, যেখানে উনার আমার বয়সী মেয়ে রয়েছে। আমার কি কারুর সঙ্গে পরামর্শ করবারও অধিকার নেই ? 

জলেবি ছবির সময় থেকেই মহেশ ভাটের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে বলে জানান রিয়া। 'সুশান্ত এবং মহেশ ভাট সাহাবেরও খুব সুন্দর সম্পর্ক। সুশান্ত ওঁনাকে আমি ওঁর জীবনে আসবার অনেক আগে থেকেই চেনে। মহেশ ভাটের সঙ্গে দেখা করে সুশান্তের কতখানি ভালো লেগেছিল সেকথা টুইটারে লিখেছিল ও। তাহলে সবাই সুশান্তের কথাটা বিশ্বাস করছে না কেন? 

মহেশ ভাট কি সুশান্তের সঙ্গে রিয়াকে সম্পর্ক ভাঙার কথা বলেছিলেন? এই প্রশ্নের জবাবে রিয়া সোজাসুজি বলেন, ‘না’। যোগ করেন,' আর যদি বলেও থাকত, তাহলে কি সম্পর্ক ভেঙে যায়। এটা তো দুজন মানুষের মনের ব্যাপার'।

সুশান্তের পরিবারের তরফে রিয়ার বিরুদ্ধে সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া, অভিনেতার সঙ্গে আর্থিক ও মানসিক প্রতারণার অভিযোগ এনে এফআইআর দায়ের করা হয় গত ২৫ জুলাই। সেই এফআইআরের ভিত্তিতে গত ৫ অগস্ট সুশান্ত মামলায় এফআইআর দায়ের করে সিবিআই। আর সম্প্রতি রিয়ার সঙ্গে মাদকচক্রের যোগসূত্রের হদিশও পেয়েছে ইডি। তারপর এই মামলার তদন্তে যোগ দিয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোও। সবমিলিয়ে তিন কেন্দ্রীয় সংস্থার সাঁড়াশি চাপে রিয়া।

বন্ধ করুন