মহামারীর সময়েই মানুষ কীভাবে একটা অসচেতন? ক্ষুদ্ধ রণিত রয়
মহামারীর সময়েই মানুষ কীভাবে একটা অসচেতন? ক্ষুদ্ধ রণিত রয়

ধন্যবাদ জ্ঞাপনের নামে রাস্তায় দীর্ঘ শোভাযাত্রা! ক্ষুদ্ধ বলিউড তারকারা

মহামারী করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জনগণকে সচেতন করতে কোনও খামতি রাখছে না প্রশাসন, নিজের সাধ্যমতো মানুষকে সতর্ক করা চেষ্টা চালাচ্ছেন তারকারাও। কিন্তু কিছু মানুষ এই জরুরি অবস্থাতেও নিয়ম ভাঙছেন অবলীলায়। তাতেই চটেছেন রণিত রয়, প্রবীণ দাবাসরা।

ভারতে এমন মানুষের অভাব নেই যারা নিয়ম ভাঙায় ওস্তাদ। তেমনই কিছু দায়িত্বজ্ঞানহীন মানুষ রবিবার বিকালে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের নামে দীর্ঘ শোভাযাত্রা সহকারে কাঁসর,ঘন্টা নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েন! কোনও উত্সবে শামিল হতে। বোধহয় গণেশ চতুর্থী বা দুর্গাপুজোর বিসর্জন চলেছে! এই ছবি একদিকে যেমন আপনাকে হতবাক করবে, তেমনি আপনি ক্ষুদ্ধ হবেন এইসব কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজের ভবিষ্যত পরিণতির কথা ভেবে। প্রশাসন থেকে বারবার সতর্ক করা সত্ত্বেও ঘুম ভাঙছে না অনেকেরই।

তেমনই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়া শেয়ার করে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন প্রবীন দবাস এবং রণিত রয়ের মতো বলিউড তারকারা। এই দুই অভিনেতা মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে শেয়ার করে নিয়েছেন দুটি ভিডিয়ো। যেখানে দেখা যাচ্ছে সরকারের নির্দেশিকা অমান্য করে শোভাযাত্রা নিয়ে বেরিয়ে পড়েছেন একদল মানুষ।

রণিত রয় একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে লিখেছেন- 'সত্যি এটাও সম্ভব?'

প্রবীণ দাবাসও প্রকাশ্যে রাস্তায় বের হওয়া তেমনই এক শোভাযাত্রার ভিডিয়ো শেয়ার করে লিখেছেন, 'সামাজিক দূরত্ব বজায় বা সামাজিকভাবে আইসোলেশনে থাকার কোন দিকটা এরা বুঝতে পারছে না?'


নিজের বাড়ির ব্যালকনি থেকে সপরিবারে থ্যাঙ্কংস গিভিং সারলেন অভিনেতা প্রবীণ দাবাস।তিনি টুইটারের দেওয়ালে লেখেন, ' সেই সমস্ত কর্মী, চিকিত্সক, নার্সদের অসংখ্য ধন্যবাদ যাঁরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন এই রকম অবস্থাতেও। সকলকে অনেক শ্রদ্ধা, করোনার বিরুদ্ধে লড়াই সবে শুরু হল.. ৯টার বেজে গেলেও দয়া করে বাড়ি থেকে বার হবেন না'।


তবে শুধু মহারাষ্ট্র নয় দেশজুড়েই এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন মানুষের কম সংখ্যা চোখে পড়েনি রবিবার। অনেক জায়গাতেই এই ধরণের শোভাযাত্রা চোখে পড়েছে।

প্রসঙ্গত গত ১৯ মার্চ জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশবাসীকে আহ্বান জানিয়েছিলেন করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একজোট হয়ে রবিবার দেশজুড়ে জনতা কার্ফু পালনের। পাশাপাশি এই কঠিন সময়েও বেশকিছু মানুষ রয়েছেন যাঁরা সব অক্লান্ত পরিশ্রম করে নিজেদের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। জরুরি পরিষেবায় নিযুক্ত সেই সব চিকিত্সক, নার্স, পুলিশ, প্রসাশনিক কর্মচারী, সংবাদকর্মীদের উদ্দেশে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের জন্য রবিবার বিকাল পাঁচটায় নিজের বাড়ির থেকেই করতালি কিংবা কাঁসর,ঘন্টা বাজিয়ে 'থ্যাংঙ্কস গিভিং'-এর আবেদন জানান নরেদ্র মোদি। সেই ডাকে সাড়া দিয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপনে শামিল হয়েছেন তারকা থেকে আম জনতা-সকলেই।


বন্ধ করুন