বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সুশান্ত যে বিরাট শিবভক্ত ছিলেন তার প্রমাণ পেয়েছিলেন, জানালেন পরিচালক রুমি জাফরি
রুমি জাফরির স্মৃতিচারণায় উঠে এলো সুশান্তের শিবভক্তির কথা। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস
রুমি জাফরির স্মৃতিচারণায় উঠে এলো সুশান্তের শিবভক্তির কথা। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস

সুশান্ত যে বিরাট শিবভক্ত ছিলেন তার প্রমাণ পেয়েছিলেন, জানালেন পরিচালক রুমি জাফরি

সোমবার ১৪ জুন বলি-তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে আবেগে ভাসছে নেটদুনিয়া থেকে টিনসেল টাউন। এবারে প্রয়াত এই বলি-অভিনেতার স্মৃতিচারণায় ডুব দিলেন পরিচালক রুমি জাফরি।

সোমবার ১৪ জুন বলি-তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে আবেগে ভাসছে নেটদুনিয়া থেকে টিনসেল টাউন। নেটিজেনদের পাশাপাশি একাধিক বলি-ব্যক্তিত্বরাও নেটমাধ্যমে সুশান্তের স্মৃতির উদ্দেশে শোকজ্ঞাপন করেছেন। এবারে প্রয়াত এই বলি-অভিনেতার স্মৃতিচারণায় ডুব দিলেন পরিচালক রুমি জাফরি। জানালেন সুশান্তের সঙ্গে নিজের পরিবারের নৈকট্যের কথা। সুশান্ত যে তাঁর স্ত্রীয়ের হাতের রান্না খেতে ভালোবাসতেন জানালেন সেকথাও।

পরিচালকের কথায় উঠে এল প্রয়াত বলি-তারকার রুচি ও ভদ্রতার নানান গল্প। রুমির কথায়,' দীর্ঘ বছর ধরে বলিউডে কাজ করার ফলে অমিতাভ বচ্চন, সলমন খান, গোবিন্দার সঙ্গে আমার সম্পর্ক যথেষ্ট জমাট। তবে নতুন প্রজন্মের মধ্যে একমাত্র সুশান্তের সঙ্গেই ছিল এত দারুণ সম্পর্ক। তাছাড়া সুশান্ত এতটাই শিক্ষিত ছিল যে প্রায় যেকোনও বিষয় ঘন্টার পর ঘন্টা আড্ডা মেরে যেতে পারত ও!'

কথায় কথায় উঠে এল সুশান্তের সঙ্গে যে তিনি একটি ছবি তৈরির পরিকল্পনা করেছিলেন, সেকথাও। পরিচালক নিজেই জানালেন সুশান্তকে মুখ্যভূমিকায় রেখে একটি রোম্যান্টিক-কমেডি ছবি তৈরির পরিকল্পনা ফেঁদে ছিলেন তিনি। অভিনেতাকে নাকি জানিয়েওছিলেন সেকথা। তবে শেষপর্যন্ত তা আর হয়ে উঠতে পারেনি। এমনকি রুমির আসন্ন ছবি 'চেহরে'-তেও নাকি একটু গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে ভেবে রেখেছিলেন সুশান্তকে। তবে তারকার মৃত্যু যে সেই সব পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়েছে, সে কথা বলাই বাহুল্য।

কথায় কথায় রুমির মুখে উঠে এলো সুশান্তের শিবভক্তির কথা। প্রয়াত তারকা যে শিবভক্ত ছিলেন তা বলিউডে সর্বজনবিদিত। নেটমাধ্যমেও একাধিকবার সুশান্তকে দেখা গেছে শিবপুজো করতে। সে প্রসঙ্গে রুমি বললেন, ' সুশান্ত যে কত বড় শিবভক্ত ছিল তার প্রমাণ পেয়েছিলাম পাবনায় ওঁর ফার্মহাউজে গিয়ে। সেখানে গিয়ে দেখি বাড়ির সামনে বেশ বড়সড় ঘাসের লনে বিরাট এক শিবমূর্তি বসিয়েছিলেন সুশান্ত। এমনকি তাই নয় একবার মুম্বইয়ে আমার বাড়িতে এসে হাজির হয়েছিল ও। হাজার চেষ্টা করেও গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা পাচ্ছিল না। শেষপর্যন্ত কোনওরকমে আমার পাশের আবাসনের সামনে গাড়ি রাখার এক টুকরো জায়গা পেয়ে যায় কোনওক্রমে। গাড়ি দাঁড় করিয়ে রেখে হঠাৎ শিশুর মতো খুশি হয়ে উঠলো সুশান্ত। কেন? না যে বাড়ির সামনে ও গাড়ি রাখতে পেরেছে তার নাম ‘শিবশক্তি!’

 

বন্ধ করুন