বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > আব্বা মনসুর আলি খানের কাঁধে চড়ে খুদে সইফ, পতৌদি পরিবারের অ্যালবামের ছবি ভাইরাল
মনসুর আলি খান-সইফ আলি খান

আব্বা মনসুর আলি খানের কাঁধে চড়ে খুদে সইফ, পতৌদি পরিবারের অ্যালবামের ছবি ভাইরাল

  • আব্বা মনসুর আলি খান এবং দাদা সইফের পুরনো ছবি শেয়ার করলেন সাবা আলি খান।

পতৌদি পরিবারের ভক্তদের জন্য ইনস্টাগ্রামে ফের এক চমক রাখলেন সাবা আলি খান। ব্যক্তিগত অ্যালবাম থেকে প্রয়াত বাবা মনসুর আলি পতৌদি এবং সইফ আলি খানের একটি ছবি শেয়ার করেন তিনি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ছেলে সইফকে কাঁধে তুলে রেখেছেন মনসুর আলি খান।

সইফ আলি খানের স্কুলের পড়ার বয়সকালের ছবি দেখেই বোঝা যাচ্ছে। মুখে তাঁর চওড়া হাসি। ভারতীয় ক্রিকেট দলের সঙ্গে একসময় দীর্ঘদিন যুক্ত ছিলেন মনসুর আলি খান পতৌদি। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে ছবি শেয়ার করে সাবা আলি খান জানিয়েছেন, অনলাইনে এ ফ্যান অ্যাকাউন্ট থেকে এই ছবিটি মিলেছে তাঁর কাছে। ছবির আসল কপিও রয়েছে তাঁদের কাছে পুরনো অ্যালবামে। এটা তাঁর অন্যতম প্রিয় ছবি, ‘আব্বার কাঁধে ভাই’।

আব্বা মনসুর আলি খানের কাঁধে চড়ে সইফ, সাবার ইনস্টাগ্রাম স্টোরি
আব্বা মনসুর আলি খানের কাঁধে চড়ে সইফ, সাবার ইনস্টাগ্রাম স্টোরি

১৯৬৫ সাল নাগাদ দিল্লিতে এক ম্যাচের পর পার্টিতে এক বন্ধুর মারফৎ দেখা হয় কিংবদন্তি অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরে এবং তৎকালীন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মনসুর আলি খান পতৌদির। সেখান থেকে শুরু তাঁদের বন্ধুত্বের। সেই সময়ে কারও জানা ছিল না, সেই সাক্ষাৎ চিরদিনের বন্ধনে পরিণত হবে। তৈরি হল ভালোবাসায়। এভাবেই শুরু হয় শর্মিলা ঠাকুর ও মনসুর আলি খান পতৌদির রাজকীয় প্রেমকাহিনী। 

চার বছর সম্পর্কে থাকার পর ১৯৬৯-তে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন শর্মিলা ঠাকুর এবং মনসুর আলি খান পতৌদি। তাঁদের তিন ছেলেমেয়ে। বড় ছেলে সইফ আলি খান, মেজ মেয়ে সাবা আলি খান এবং সবথেকে ছোট মেয়ে সোহা আলি খান।

 

 

বন্ধ করুন