বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শ্বশুর-শাশুড়ি, ২ ননদ এবং সইফের সঙ্গে একফ্রেমে করিনা,পতৌদি পরিবারের বিরল ছবি!
পতৌদির ফ্যামিলি অ্যালবাম
পতৌদির ফ্যামিলি অ্যালবাম

শ্বশুর-শাশুড়ি, ২ ননদ এবং সইফের সঙ্গে একফ্রেমে করিনা,পতৌদি পরিবারের বিরল ছবি!

  • প্রয়াত টাইগার আলি খান পতৌদির ৭০তম জন্মদিনের ছবি শেয়ার করে স্মৃতিচারণা মেয়ে সাবা আলি খানের। 

শর্মিলা ঠাকুর ও টাইগার পতৌদির তিন সন্তানের মধ্যে সইফ ও সোহা আলি খান মায়ের পদচিহ্ন অনুসরণ করে অভিনয়কেই কেরিয়ার হিসাবে বেছে নিয়েছেন। তবে সইফ-সারার অপর বোন সাবা লাইমলাইট থেকে দূরে থাকতেই ভালোবাসেন। পেশায় জুয়েলারি ডিজাইনার সাবা সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে পতৌদির নবাব পরিবারের ফ্যামিলি অ্যালবাম থেকে একাধিক অদেখা ছবি শেয়ার করে নিয়েছেন। যার মধ্যে একটি ছবিতে ধরা পড়েছেন প্রয়াত টাইগার পতৌদি, শর্মিলা ঠাকুর, সইফ-করিনা, সোহা-কুণাল এবং সাবা। 

মনসুর আলি খানের ৭০তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে একত্রিত হয়েছিল গোটা পরিবার, সেই সময়ই এই ছবিটি তোলা হয়। করিনা, সইফের বিয়ের আগে প্রয়াত হয়েছেন মনসুর আলি খান। ২০১২ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন সইফিনা, তাঁর ঠিক মাস কয়েক আগে ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে প্রয়াত হন ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম উজ্জ্বল তারকা মনসুর আলি খান। সেই বছর জানুয়ারি মাসের সইফ-সাবা-সোহা'র প্রয়াত বাবার জন্মদিনের সেলিব্রেশনের ছবি শেয়ার করে সাবা লেখেন, ‘পরিবার অবশ্যই জরুরি! আব্বার ৭০তম জন্মদিন… সেলিব্রেশন.. একসঙ্গে আমরা মাথা উঁচু করে..’।

পতৌদি পরিবারের এই দুর্লভ ফ্রেমে তিন সন্তানের সঙ্গে হবু বৌমা আর জামাইয়ের সঙ্গে দেখা গিয়েছে শর্মিলা ও টাইগার পতৌদিকে। ছবিগুলি তোলা পতৌদির প্যালেসে। ভালোবাসায় মোড়া এমন একগুচ্ছ ফ্রেম যত্নে সাজিয়ে রেখেছেন সাবা। মনের মণিকোঠায় আজও উজ্ব্ল বাবার স্মৃতি, সেগুলি আঁকড়েই এগিয়ে চলেছেন তিনি। 

ধর্ম আলাদা, সংস্কৃতি আলাদা তবুও ভালোবেসে একে অপরকে বিয়ে করেছিলেন শর্মিলা-মনসুর। আজকের দিনে ক্রিকেট আর বলিউডের সম্পর্কটা ওতোপ্রোতোভাবে জড়িয়ে, বলা যায় সেই গাঁটছড়া বাঁধার শুরুটা শুরু করেছিলেন শর্মিলা ঠাকুর ও মনসুর আলি খান পতৌদি। যখন দুজনে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন, তখন বলিউডের বাঙালি কন্যা- শর্মিলার বয়স সবে ২৪। অনেকেই তাঁকে এই বিয়ে থেকে পিছিয়ে আসার পরামর্শ দিয়েছিল। তবে নিজের সিদ্ধান্ত অটল ছিলেন শর্মিলা। এই প্রসঙ্গে শর্মিলা ঠাকুর এক সাক্ষাত্কারে জানান, ‘আমার মনে আছে যশ (চোপড়া) আমায় বলেছিল বিয়ে করো না জীবনের এই পর্বে, অন্য একজন বলেছিল এইসব নবাবেরা খুব উগ্র স্বভাবের হয়। অভিনেত্রীরা কেমন, তাঁদের জীবনযাত্রা কেমন সেই নিয়ে টাইগারকেও অনেকে অনেক কথা বলেছিল।লোকে আমাদের দু-তিন বছরের বেশি সময় দেয়নি। ভেবেছিল ওতোদিনও টিকবে না আমাদের বিয়ে’। 

যদিও সবার ধারণা ভুল প্রমাণ করে মনসুর আলি খানের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত তাঁকে আঁকড়ে ছিলেন শর্মিলা। সুখে সংসার করেছেন, তিন সন্তানকে নিজেদের মতো করে গড়ে তুলেছেন এই সেলেব্রিটি কপল। 

বন্ধ করুন