বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > প্রথমবার চার সন্তানের সঙ্গে এক ফ্রেমে সইফ, ছোট্ট ভাইকে কোলে নিয়ে বসে আছে সারা!
তিন ভাইয়ের সঙ্গে ছবি পোস্ট দিদি সারার (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
তিন ভাইয়ের সঙ্গে ছবি পোস্ট দিদি সারার (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 

প্রথমবার চার সন্তানের সঙ্গে এক ফ্রেমে সইফ, ছোট্ট ভাইকে কোলে নিয়ে বসে আছে সারা!

  • জেহ-কে কোলে নিয়ে বসে আছে দিদি সারা, ভাইরাল ছবি। 

স্পেশ্যাল দিনের আনন্দ জীবনের স্পেশ্যাল মানুষদের সঙ্গেই ভাগ করে নিতে ভালো লাগে। ব্যতিক্রম নন সারা আলি খানও। ইদ-উল-আদহার এই দিনটা পরিবারের সঙ্গেই কাটাচ্ছেন নবাব কন্যা। অনুরাগীদেরও এদিন দারুণ সারপ্রাইজ দিলেন সারা। তিন ভাই এবং আব্বুর সঙ্গে ছবি পোস্ট করে চমকে দিলেন অনুরাগীদের। ছবিতে দেখা গেল সইফিনার দ্বিতীয় সন্তান,জেহ-কে কোলে নিয়ে বসে রয়েছেন সারা আলি খান। যদিও এই ছবি দেখে কিছুটা আবদার মেশানো অভিযোগও রয়েছে ভক্তদের।

ছবিতে একদম ঘরোয়া সাদামাটা পোশাকেই দেখা মিলল সকলের. সোফার উপর চার মাসের ভাইকে কোলে নিয়ে বসে সারা, পাসে বসা সইফের কোলে বসে আছে রকস্টার তৈমুর এবং নীচে মেঝেতে বসে রয়েছে ইব্রাহিম। এই ছবিতে জেহ-র মুখ ইমোজি দিয়ে ঢেকে দিয়েছেন সারা, তাতেই কিছুটা আনন্দে ভাটা পড়েছে অনেক অনুরাগীর। পোস্টের ক্যাপশনে সারা লেখেন- , 'সকলকে জানাই ইদ মোবারক… আল্লা সকলকে শান্তি, উন্নতি দিক, সবার ভিতর শুভবুদ্ধি জেগে উঠুক… ভালো সময়ের কামনা করছি'।

জেহ-র জন্মের পর এই প্রথন চার সন্তানের সঙ্গে একফ্রেমে পাওয়া গেল সইফকে। অভিনেতা ও প্রথমপক্ষের স্ত্রী অমৃতা সিংয়ের দুই সন্তান সারা ও ইব্রাহিম। বিয়ে ভাঙালেও সারা-ইব্রাহিমের সঙ্গে দারুণ বন্ডিং সইফের। সইফ ও করিনার দুই সন্তান- তৈমুর ও জেহ। করিনার সঙ্গেও ভীষণ ঘনিষ্ঠ সারা-ইব্রাহিম। ছোট থেকেই তৈমুরকে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিয়েছেন সইফের প্রথমপক্ষের সন্তানরা, জেহ-র ক্ষেত্রেও কোনও ব্যতিক্রম নেই। 

সারার বয়স এখন ২৫, আর জেহ-র বয়স সবে পাঁচ মাস। সইফের চার সন্তানের বয়সের বিস্তর ফারাক রয়েছে। কিন্তু ভালোবাসাটা একদম খাঁটি। ফেব্রুয়ারিতে দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম দিয়েছেন করিনা। তারপর থেকে ছেলের প্রথম ঝলক বা নাম গোপনেই রেখেছিলেন তারকা দম্পতি। চলতি মাসেই প্রকাশ্যে এসেছে সইফিনা দ্বিতীয় সন্তানের নাম রেখেছেন জেহ। সারা এদিন ছোট্ট ভাইয়ের মুখ ঢেকে দিলেও দিন কয়েক আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আসে জেহ-র ছবি।

জেহ-র জন্মের পর সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সারা জানিয়েছিলেন, ‘ও তো আমার দিকে তাকিয়ে হাসতেই আমি গলে যাই। একটা মিষ্টি বল ও। এখনতো আমি আমার বাবাকে মজা করে বলি প্রত্যেক দশকে তাঁর একটা করে সন্তান আছে। বিশ, ত্রিশ, চল্লিশ এখন পঞ্চাশেও। উনি সত্যিই খুব ভাগ্যবান প্রত্যেক দশকে আলাদাভাবে বাবা হওয়ার স্বাদ অনুভব করতে পেরেছেন। ও আমার বাবা এবং করিনার জীবনে আরো বেশি আনন্দ এবং সুখ এনে দেবে। ওদের জন্য আমি খুব খুশি’।

বন্ধ করুন