বাড়ি > বায়োস্কোপ > ইদের দিন ৫০০০ দুঃস্থ পরিবারকে শির খুরমা তৈরি সামগ্রী পাঠালেন সলমন খান!
৫০০০ পরিবারের মুখে ইদে মিষ্টি হাসি ফোটালেন ভাইজান 
৫০০০ পরিবারের মুখে ইদে মিষ্টি হাসি ফোটালেন ভাইজান 

ইদের দিন ৫০০০ দুঃস্থ পরিবারকে শির খুরমা তৈরি সামগ্রী পাঠালেন সলমন খান!

  • সলমন খানের তরফে ইদি হিসাবে পাঁচ হাজার দুঃস্থ পরিবারের কাছে পৌঁছে গেল শির খুরমা তৈরির সমস্ত সমাগ্রী। ইদের খুশি সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিলেন ভাইজান। 

ইদ ভালোবাসা ভাগ করে নেওয়ার উত্সব। সম্প্রীতি আর সৌভ্রাতৃত্বের উত্সব-এ কথা ভালোভাবেই জানেন ভাইজান। তাই ইদের দিন ৫০০০ দুঃস্থ পরিবারের মুখে মিষ্টি হাসি ফোটালেন সলমন খান। এদিন সলমন খানের তরফে সেই সব পরিবারের কাছে পৌঁছে গেল শির খুরমা তৈরির সামগ্রী। শির খুরমা ছাড়া ইদ অসম্পূর্ন থাকে, এমনটাই প্রচলিত। করোনা সংকটে তাঁর বৃহত্তর পরিবার শির খুরমার স্বাদ থেকে বঞ্চিত থাকবে এমনটা মেনে নিতে পারেনি সলমন,তাই এই প্রচেষ্টা ভাইজানের।

শিবসেনা নেতা রাহুল কানাল টুইটার পোস্টে সলমনের এই মানবিক উদ্যোগের কথা জানিয়ে লেখেন, 'ধন্যবাদ সলমন খান, পাঁচ হাজার পরিবারের মুখে আপনার নিজের মতো করে ইদের দিন হাসি ফোটানোর জন্য। আপনার মতো মানুষরা রয়ে বলেই এখনও এই সমাজে সমতা বজায় রয়েছে।… ভাইয়ের ইদের শুভেচ্ছা জানানোর নিজেরই স্টাইল রয়েছে!!'

শির খুরমা তৈরির প্রত্যেকটি সামগ্রী ছিল সলমন খানের তরফে পাঠানো সেই সব প্যাকেটে। জানা গিয়েছে এক একটি প্যাকেটের সামগ্রী দিয়ে অনায়াসে ৫০ জনের জন্য শির খুরমা তৈরি করা সম্ভব হবে। এছাড়াও সলমন খানের শুরু করা উদ্যোগ বিয়িং হাংরি'র মাধ্যমে ২৫ হাজার পরিবারের কাছে শুকনো খাবার ও রেশনও পৌঁছে দেওয়া হয়েছে ইদ উপলক্ষে। 

সলমনের এই উদ্যোগ থেকে বেজায় খুশি ভক্তরা।ভাইজানের উপর ভালোবাসা উজার করে দিচ্ছেন তাঁর অনুরাগীরা। কেউ বলছেন লাভ ইউ ভাইজান তো কেউ লিখেছেন প্রকৃত হিরো।

করোনা সংকটের শুরু থেকেই আম জনতার পাশে দাঁড়িয়েছেন ভাইজান। ইন্ডাস্ট্রির দিনমজুরদেরও সরাসরি অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাচ্ছেন সলমন খান। লকডাউনে প্রায় ৩০ হাজার বলিউড টেকনিশিয়ান, জুনিয়ার আর্টিস্টদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা পাঠাচ্ছে সলমন খানের ফাউন্ডেশন বিয়িং হিউম্যান।

 

বন্ধ করুন