বাড়ি > বায়োস্কোপ > দিল বেচারার ভার্চুয়াল প্রিমিয়ারে সঞ্জনার জন্য বাড়িতে আয়োজন করা হল রেড কার্পেট!
সঞ্জনাকে সারপ্রাইজ দিল পরিবার 
সঞ্জনাকে সারপ্রাইজ দিল পরিবার 

দিল বেচারার ভার্চুয়াল প্রিমিয়ারে সঞ্জনার জন্য বাড়িতে আয়োজন করা হল রেড কার্পেট!

  • মেয়ের ডেব্যিউ ছবির মুক্তিটা একটু স্পেশ্যাল বানাল সঞ্জনার পরিবার। দিল বেচারা মুক্তির দিন বাড়িতেই সঞ্জনার জন্য লাল গালিচা বেছানো হল!

দিল বেচারার সঙ্গে বলিউডে লিডিং লেডি হিসাবে সফর শুরু করলেন সঞ্জনা সাংঘি। তবে ডেব্যিউ ছবি মুক্তির আনন্দের মাঝেই রয়েছে অনেকখানি শূন্যতা। দিল বেচারার প্রিমিয়ার যেমনটা হওয়ার কথা ছিল তেমন কিছুই হয়নি। সঞ্জনা আগে বহুবার জানিয়েছেন তিনি দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি দিল বেচারা মুক্তি সময় কিজির পাশে থাকবে না ম্যানি। কিংবা সিনেমা হল নয় ওটিটি প্লাটফর্মে মুক্তি পাবে এই ছবি। কিন্তু করোনা সব হিসেব নিকেশ বদলে দেয়। এরপর ১৪ জুন সুশান্ত সিং রাজপুতের আচমকা মৃত্যু নাড়িয়ে দিয়েছে সঞ্জনা সাংঘিকে। তবুও ঘরের মেয়ের ডেব্যিউ ছবির মুক্তিটা একটু স্পেশ্যাল বানাল সঞ্জনার পরিবার। দিল বেচারা মুক্তির দিন বাড়িতেই সঞ্জনার জন্য লাল গালিচা বেছানো হল!

সঞ্জনার পরিবারের এক সদস্য সেই মুহূর্তটাই ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করে নিয়েছিলেন,যেখানে দেখা গেল রেড কার্পেটে হেঁটে আসছেন সঞ্জনা। ক্যাপশনে লেখেন, দিল বেচারার প্রিমিয়ার নাইট সাংঘিদের বাড়িতে। যা স্ট্রিম হচ্ছে ডিজনি প্লাস হটস্টারে'। ছবিতে দেখা গেল হাসি মুখে বাড়ির লিভিং রুমে হাঁটছেন সঞ্জনা,নীচে বেছানো রয়েছে লাল গালিচা।

সঞ্জনা সাংঘির রেড কার্পেট মুহূর্ত 
সঞ্জনা সাংঘির রেড কার্পেট মুহূর্ত 

এই ছবি ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে শেয়ার করে সঞ্জনা লেখেন,'আমার পরিবার চেয়েছে কিজি তাঁর প্রিমিয়ার নাইট না মিস না করুক, খুব ভিন্ন একটা পরিস্থিতি..তাই বাড়িতেই হল রেড কার্পেট, ধন্যবাদ'। তবে সুশান্ত না থাকায় মন যে ভেঙে গিয়েছে তা বোঝাতে একটি ব্রোকেন হার্ট ইমোজি ব্যবহার করেন সঞ্জনা সাংঘি। 

দিল বেচারা মুক্তির ঠিক কয়েক মুহূর্ত আগে সুশান্তের উদ্দেশ্যে খোলা চিঠি লিখেছিলেন সঞ্জনা।

নায়িকা লেখেন, 'আমার প্রিয় ম্যানি, আমি আশা করছি তুমি উপর থেকে আমাদের দেখছ। আশীর্বাদ করছো এবং আমাদের দিকে তাকিয়ে হাসছো, আমরাও তোমার দিকে তাকিয়ে আছি। আকাশের দিকে তাকিয়ে খুঁজে চলছি তোমাকে। আমার মনের এক কোণে রয়েছে বিস্ময়, অন্যটায় রয়েছে অবিশ্বাস।

যেমনটা মুকেশ ছাবরা একদম সঠিকভাবে বলেছ, আমাদের দুজনের প্রথম ছবি কী করে তোমার শেষ ছবি হতে পারে? জীবন এটা সঠিক বিচার একে বারেই করল না।

তোমাকে অনেক ধন্যবাদ জানা,অজানা পথে আমাদের এই শক্তি আর সাহসের জোগান দেওয়ার জন্য, এই ভীষণ কঠিন পথটা তুমিই পার করতে সাহায্য করলে। আমরা সেই সাহসটা প্রতি মুহূর্তে অনুভব করতে পারি। এটাই একমাত্র আলোর কিরণ,ঘন কালো মেঘের আড়ালে।

অবশেষে দিনটা এল। আজ ‘দিল বেচারা দিন’।

শান্তি,ইতিবাচক মনোভাব এবং স্থিরতা- সকলের জন্য এটাই একমাত্র প্রার্থনা। খুব শীঘ্র দেখা হচ্ছে'।

বন্ধ করুন