বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মাদকের নেশার শুরু কীভাবে? কালো দিন নিয়ে অকপট সঞ্জয়, ‘রাস্তায় চরসি বলে ডাকত…’
মাদক নেওয়ায় রাস্তায় ‘চরসি’ বলে ডাকত সবাই সঞ্জয় দত্তকে।

মাদকের নেশার শুরু কীভাবে? কালো দিন নিয়ে অকপট সঞ্জয়, ‘রাস্তায় চরসি বলে ডাকত…’

  • মাদক নেওয়ার স্বভাব কী করে শুরু হল, তাই নিয়েই মুখ খুললেন সঞ্জয় দত্ত এবার! 

বলিউডের ব্যাড বয় সঞ্জয় দত্ত। মাদক থেকে শুরু করে বেআইনি অস্ত্র রাখার অপরাধে আইনি ঝামেলায় জড়াতে হয়েছে তাঁকে বহুবার। যদিও বছরখানেক আগে জেল থেকে বের হওয়ার পর থেকে বলা যায় শুধরে গিয়েছেন। আপাতত সঞ্জয় চেটেপুটে উপভোগ করছেন ‘কেজিএফ: চ্যাপ্টার ২’-র অধিরার সাফল্য।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মাদক নেওয়া প্রসঙ্গে কথা বললেন সঞ্জয় দত্ত। ভাগ করে নিলেন একসময় কীভাবে তাঁকে ‘চরসি’ নামে ডাকা হত, রিহাবেশন সেন্টার থেকে ফেরত আসার পর। যদিও এই প্রথম নয়, এর আগেও সঞ্জয় তাঁর ড্রাগস নেওয়ার স্বভাব নিয়ে কথা বলেছেন বহু জায়গায়। রণবীর এলাহাবাদিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সঞ্জয় পুরনো সময়ের কথা বলেন, যখন তিনি ভাবতেন ড্রাগস নিলেই তাঁকে কুল লাগবে।

সঞ্জুবাবার কথায়, ‘‘আমি খুব লাজুক ছিলাম। মেয়েদের সাথে কথা বলতেও লজ্জা পেতাম। তাই আমি ড্রাগস নেওয়া শুরু করি যাতে আমাকে কুল দেখায়। তুমি যত ড্রাগস নেবে, তুমি ‘কুলার গাই’ হয়ে যাবে, তুমি মেয়েদের সাথে কথা বলতে পারবে সহজে।’’ আরও পড়ুন: মেয়ের বয়সী 'আলিয়ার সঙ্গে রোম্যান্স করতে পারব না', সলমন-শাহরুখদের খোঁচা সঞ্জয়ের?

এরপরই তিনি বলেন, ‘‘জীবনের ১০টা বছর আমার এরপর ঘরেই কেটেছে, নয় বাথরুমে। শ্যুটিংয়ের কোনও ইচ্ছেই ছিল না। আর এটাই তো জীবন, এভাবেই জীবন বদলে যায়। আমি যখন রিহ্যাব থেকে ফিরলাম। আমাকে সবাই চরসি বলে ডাকা শুরু করল। তখন আমার মনে হল, এটা খুব খারাপ হচ্ছে। রাস্তার মানুষও আমাকে দেখে এরকম বলত। ভাবতাম, কিছু করতেই হবে। আমি শরীরচর্চায় মন দিলাম। আর তারপর চারসির বদলে সবাই আমাকে দেখে বলতে লাগল, ‘উফফ… কী বডি দেখেছ’!’’

এরপর সঞ্জয়কে দেখা যাবে অক্ষয় কুমারের ‘পৃথ্বীরাজ’ ছবিতে। এই ছবিতে রয়েছেন মানুষী চিল্লর, সাক্ষী তনওয়ার, সোনু সুড। পাইপলাইনে আছে ‘শামশেরা’র কাজও। যাতে থাকবেন বাণী কাপুর আর রণবীর কাপুর।

বন্ধ করুন