বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রোমাঞ্চের খোঁজে শৈশব বারবার ফিরবে মিত্তিরদের বাগানে, যেখানে বসে থাকবেন ষষ্ঠীপদ

রোমাঞ্চের খোঁজে শৈশব বারবার ফিরবে মিত্তিরদের বাগানে, যেখানে বসে থাকবেন ষষ্ঠীপদ

ষষ্ঠী স্মরণ। গ্রাফিক্স: পরাগ রায়

শুক্রবার বেলা ১১.২০ মিনিটে মৃত্যু হয় তাঁর। সাহিত্যেকের প্রয়াণের খবর ছড়িয়ে পড়তেই শোকপ্রকাশ করেন অগণিত পাঠক। মৃত্যুর সময় ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

অরুণাভ রাহারায়: চলে গেলেন সাহিত্যিক ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর ‘পাণ্ডব গোয়েন্দা’ বোধ হয় সব বাঙালি পাঠকের কিশোরবেলার সঙ্গে জড়িয়ে আছে। অনেক দিন থেকেই বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন। শুক্রবার বেলা ১১.২০ মিনিটে মৃত্যু হয় তাঁর। সাহিত্যেকের প্রয়াণের খবর ছড়িয়ে পড়তেই শোকপ্রকাশ করেন অগণিত পাঠক। মৃত্যুর সময় ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

তাঁর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে তিনি বলেন, 'খুবই দুঃখের সংবাদ। সাহিত্যিক সন্দীপন চট্টোপাধ্যায়ের আত্মীয় ছিলেন ষষ্ঠীপদ। আমার সঙ্গে অনেক দিনের পরিচয়। মাটির মানুষ ছিলেন। তাঁর সৃষ্ট পাণ্ডব গোয়েন্দা বিখ্যাত। বেড়াতে খুব ভালোবাসতেন। আমাকে গল্প করেছিলেন, একা একা সারা ভারত ঘুরেছেন। ষষ্ঠীপদর চলে যাওয়াটা খুবই দুঃখের।'

সাহিত্যিক আবুল বাশারের কথায়, 'ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে আমার হৃদ্যতার সম্পর্ক ছিল। তিনি ছোটদের লেখাকে খুবই জনপ্রিয় করে তুলেছিলেন। লেখার নিজস্ব স্টাইল ছিল। গল্পকে চমৎকারভাবে জমিয়ে দিতে পারতেন। তাঁর প্রয়াণের খবর পেয়ে আমার খুব খারাপ লাগছে। আমি যখন দেশ পত্রিকায় চাকরি করতাম, তখন তিনি ঘন ঘন আসতেন। দেখা হত, কথা হত। লেখাকে ভীষণ সহজ করে গল্প ফাঁদতে পারতেন-- এটাই তাঁর সবচেয়ে বড় সার্থকতা। ভ্রমণ করতে ভালোবাসতেন আর ভ্রমণের অভিজ্ঞতাগুলোকে তিনি সাহিত্যে কাজে লাগিয়ে দিতেন। তাঁর প্রয়াণে শূন্যতা তৈরি হল।'

কবি বিভাস রায়চৌধুরী জানিয়েছেন, 'কলেজস্ট্রিট বইপাড়ায় লেখকদের যে আধুনিক যুগ শুরু হয়, তার আগের পর্যায়ে যে ধরনের লেখকেরা ছিলেন, যারা সাধারণ পাঠকের জন্য ভূতের গল্প, হাসির গল্প, গোয়েন্দা গল্প লিখেছেন, যেখানে লেখার প্রসাদগুণের থেকেও বড় কথা অনেক পাঠককে ছুঁয়ে ফেলা, সুন্দর বিনোদন দেওয়া-- সেই ধারার শেষ লেখক ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর পাণ্ডব গোয়েন্দা ছোটবেলায় পড়েননি এমন কেউই নেই। আমরা ভুলতে পারব না পাণ্ডব গোয়েন্দা আমাদের শৈশব-কৈশোরকে কেমনভাবে আচ্ছন্ন করেছিল। তাঁর সঙ্গে মিশে মনে হয়েছে তিনি নিজেকে সাহিত্যিক বলে মনে করতেন না। সরল হাসি দিয়ে কথা উড়িয়ে দিতেন। নির্ভেজাল, অহংকারহীন মানুষ ছিলেন এবং বইমেলায়, কলেজস্ট্রিটে সাধারণভাবে ঘুরে বেড়িয়েছেন। মানুষ হিসেবে ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের তুলনা নেই।'

বায়োস্কোপ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

‘সব ওঠা-পড়ায় তুমিই…’! বিবাহবার্ষিকীতে ডোনার সঙ্গে ডেটিংয়ের ছবি পোস্ট করলেন সৌরভ তৃতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে কাঞ্চন, সন্তানকে মানুষ করা নিয়ে কী বললেন পিঙ্কি? ২০০০ কোটির গরমিল জি-এর অ্যাকাউন্টে, তদন্তে সেবি, ধস শেয়ারে লেগ স্পিনটা ভালো করো,রোহিতকে বলো বোলিং দিতে-যশস্বীকে পরামর্শ কিংবদন্তি স্পিনারের IPL 2024-এ সরফরাজ খানকে দলে নিতে গম্ভীরের KKR ও ধোনির CSK-এর দড়ি টানাটানি স্যার আমায় বাঁচান! জোর করে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছে, হেডমাস্টারকে ফোন বাংলার কন্যাশ্রীর উচ্চমাধ্যমিকে ফিজিক্স পরীক্ষার প্রশ্ন কেমন হল? ঘোরানো হয়েছে? জানালেন শিক্ষক মাছের কাঁটা গলায় বিঁধে যন্ত্রণা? ঝটপট বের করতে রইল এই ৭ ঘরোয়া উপায় ‘আমি লোভী, আমার থেকেও..’, দাদাসাহেব পুরস্কার পেয়ে আর কী বললেন আপ্লুত শাহরুখ আধার নিষ্ক্রিয়তার 'কোপ' মতুয়াদের ওপর, ঠাকুরবাড়িতে খুলল সহায়তা ক্যাম্প

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.