বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মেয়ের মুখ সবসময় আড়লে কেন রাখেন? প্রশ্নের জবাব দিলেন নেহা-অঙ্গদ
অঙ্গদ-নেহার পরিবারের নতুন সদস্য 
অঙ্গদ-নেহার পরিবারের নতুন সদস্য 

মেয়ের মুখ সবসময় আড়লে কেন রাখেন? প্রশ্নের জবাব দিলেন নেহা-অঙ্গদ

  • ২০১৮ সালের নভেম্বরে জন্ম হয় নেহা-অঙ্গদের প্রথম সন্তান মেহেরের। 

দু-দিন আগেই ইনস্টাগ্রাম পোস্টে দ্বিতীয়বার বাবা-মা হতে চলার সুখবর ভাগ করে নিয়েছেন অঙ্গদ বেদী ও নেহা ধুপিয়া। এরপর থেকেই শুভেচ্ছার বন্যায় ভাসছেন তারকা দম্পতি। বছর তিনেক আগে চট জলদি চুপিসাড়ে বিয়ের পর্ব সেরেছিলেন এই যুগল। পরবর্তীতে জানা যায়, নেহা সেই সময় অন্তঃসত্ত্বা থাকায় দ্রুত গাঁটছড়া বাঁধেন তাঁরা। বিয়ের ছ মাসের মাথায়, ২০১৮ সালের নভেম্বরে কন্যা সন্তানের মা হয়েছিলেন নেহা। এই দম্পতি মেয়ের নাম রাখেন মেহর।

মেহেরের জন্মের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়ই তাঁর আদুরে ছবি পোস্ট করে থাকেন নেহা-অঙ্গদ। বাবা-মায়ের সঙ্গে মেহেরের মিষ্টি মুহূর্তের ঝলক নেটিজেনরা দেখতে পেলেও গত আড়াই বছরে মেহের মুখের স্পষ্ট দেখবার সৌভাগ্য হয়নি কারুর। একজন শুভাঙ্ক্ষী সম্প্রতি এক লাইভ সেশনে এই প্রশ্ন রাখে দুজনের কাছে, জবাবে অঙ্গদ বলেন, ‘অবশ্যই একটা কারণ রয়েছে। মেহর খুব ছোট, এই বয়সে ও তো নিজের সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। যখন ও বড় হবে নিজেই ঠিক করবে এই ব্যাপারটা’। 

দ্বিতীয় সন্তানের জন্য পাওয়া অঢেল শুভকামনায় আপ্লুত দুজনে। অঙ্গদ বলেন, ‘সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ… সত্যি প্রত্যেকের মেসেজ… টুইটার হোক, ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রামে পেয়ে আমরা সত্যি আপ্লুত…. এই ভালোবাসাটা ভাগ করে নেওয়ার জন্য ধন্যবাদ’।  হবু মা যোগ করেন, ‘সব মেসেজ আমরা পড়ে দেখেছি… সত্যি আমরা আপ্লুত। এই ভালোবাসার জন্য ধন্যবাদ… সকলকে ব্যক্তিগতভাবেও আমি মেসেজের উত্তর দিতে চেয়েছি কিন্তু সকলকে জানিয়ে উঠা সম্ভব হয়নি’। 

নেহার বেবি বাম্পের ছবি ফাঁস করে দ্বিতীয় সন্তান আসবার সুখবর দেন দুজনে। ছবিতে দেখা মিলছে হবু বড় দিদি মেহেরেও। ছবির ক্যাপশনে মজা করে অঙ্গদ লেখেন, ‘নতুন হোম প্রোডাকশন আসছে।সবই বাহেগুরুর মেহের (কৃপা)'। 

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অঙ্গদ জানিয়েছেন, ‘নেহার দ্বিতীয় প্রেগন্যান্সি অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং। আবারও প্রায় সাড়ে তিন বছর পর সন্তানের জন্ম দিতে চলেছে নেহা। এটা একটা আলাদা অভিজ্ঞতা। আর যা খুব একটা সহজও নয়। কিন্তু ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে নিজেকে পজিটিভ রাখার। হাতের সমস্ত কাজ জলদি টাইমলাইনের মধ্যে শেষ করে ফেলার। আর এখন আমার কাছে ওর সুস্থ থাকাটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

আজকাল বহু তারকা দম্পতিই নিজেদের সন্তানকে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে রাখতে চান। অঙ্গদ-নেহার মতোই বিরাট-অনুষ্কাও ভামিকাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অগোচড়ে রাখবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। 

বন্ধ করুন