রবিবাসরীয় বাদশাহী বার্তা (ছবি সৌজন্যে-টুইটার)
রবিবাসরীয় বাদশাহী বার্তা (ছবি সৌজন্যে-টুইটার)

'সুন্দর দেখাচ্ছে তাই সেলফিটা জুড়ে দিলাম', ফ্যানেদের উদ্দেশে আর কি বললেন শাহরুখ?

  • রবিবাসরীয় বিকালে অনুরাগীদের উদ্বুদ্ধ করতে টুইট শাহরুখ খানের। করোনার মতো কঠিন পরিস্থিতি আমরা কাটিয়ে উঠব, বিশ্বাসী কিং খান।

করোনা মোকাবিলায় দেশবাসীর পাশে দাঁড়িয়ে আগেই মন জিতে নিয়েছেন শাহরুখ খান। এই কঠিন সময়ে শুধু আর্থিক সাহায্যই নয়, কার্যত ময়দানে নেমে দুঃস্থদের স্বার্থে কাজ করছে কিং খান অধীনস্থ চারটি সংস্থা। শাহরুখের সাতদফা কর্মসূচির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন তিন রাজ্য মহারাষ্ট্র, দিল্লি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার বিকালে ভক্তদের উদ্দেশে নতুন বার্তা দিলেন শাহরুখ। বলিউডের চিরন্তন রোম্যান্টিক তারকা লেখেন, ‘আমার বিশ্বাস আমাদের জীবনের এই মুহূর্ত শেষমেষ সেই স্মৃতি হয়ে থাকবে যখন আমাদের হাতে সময় ছিল এবং আমাদের প্রিয় মানুষেরা আমাদের সঙ্গে ছিল। এটাই সবার জন্য আন্তরিক কামনা’।


করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধে জিততে কী করতে হবে, ৫৬ বছর বয়সী তারকার মতে, ‘সুরক্ষিত থাকুন, দূরে থাকুন, সুস্থ থাকুন’। কেন এই বার্তার সঙ্গে একটা এত সুন্দর সেলফি শেয়ার করে নিয়েছেন শাহরুখ? সেই কারণও ভক্তদের জানিয়েছেন অভিনেতা। তিনি লেখেন, ‘আর হ্যাঁ, একটা জরুরি বিষয় হল এই সেলফিটার সঙ্গে এই বার্তাটার কোন যোগসূত্র নেই। ভাবলাম আমাকে বেশ ভালো দেখাচ্ছে তাই ছবিটা জুডে দিলাম’।

কঠিন সময়ে দেশবাসীর পাশে দাঁড়াতে সবটুকু উজাড় করে দিচ্ছেন কিং খান। বৃহস্পতিবার রাতেই করোনা মোকাবিলায় সাতটি পৃথক ফান্ডে অনুদান দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন শাহরুখ, বলেছিলেন শুধু আর্থিক সাহায্য নয় এই পরিস্থিতিতে ময়দানে নেমে সারারণ মানুষের জন্য কাজ করবে তাঁর চারটি সংস্থা- কলকাতা নাইট রাইডার্স, মীর ফাউন্ডেশন, রেড চিলিস এন্টারটেনমেন্ট ও রেড চিলিস ভিএফএক্স। শনিবার জানা গিয়েছে বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের জন্য নিজেদের চারতলা একটি অফিস বিল্ডিংয়ের দরজা খুলে দিয়েছেন শাহরুখ-গৌরী। বিএমসি যাতে সেই বহুতলে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি করতে শিশু, বয়স্ক এবং মহিলাদের জন্য সেই কারণেই এই উদ্যোগ। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবর প্রকাশ্যে এনেছে বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন। জবাবে শাহরুখ জানিয়েছেন, 'আমার মুম্বই, আমার BMC'। মুম্বইবাসীর জন্য তাঁর দরজা সরসময় খোলা।


করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে বাংলার মানুষেরও পাশে দাঁড়িয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডার। মুখ্যমন্ত্রীর করোনা তহবিলে ব্যক্তিগতভাবে ২.৫ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছেন শাহরুখ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তা সুরক্ষিত করতে মহারাষ্ট্র ও পশ্চিমবঙ্গে ৫০,০০০ টি পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট বা পিপিই প্রদান করছেন শাহরুখ। এছাড়াও একাধিক এনজিও-র মাধ্যমে মহারাষ্ট্রের আম জনতার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বাদশা।

বন্ধ করুন