বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > গোপনে অচেনা শিশুর প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন শাহরুখ, ফাঁস করলেন 'ফ্যান' হনসল মেহতা
শাহরুখ খান-ই তাঁর কাছে একমাত্র সুপারস্টার, ঘোষণা হনসল মেহতার।
শাহরুখ খান-ই তাঁর কাছে একমাত্র সুপারস্টার, ঘোষণা হনসল মেহতার।

গোপনে অচেনা শিশুর প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন শাহরুখ, ফাঁস করলেন 'ফ্যান' হনসল মেহতা

  • একবার গোপনে এক অচেনা শিশুর প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন শাহরুখ খান। সেই অজানা ঘটনা বিস্তৃতভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস করলেন জনপ্রিয় পরিচালক হনসল মেহতা। আবেগঘন সেই পোস্ট পড়ে চোখ ভিজেছে নেটিজেনদের।

মঙ্গলবার নিজের ৫৬তম জন্মদিনের কেক কেটেছেন শাহরুখ খান। বি-টাউনের তরফে শাহরুখের জন্য উপচে পড়েছে শুভেচ্ছা বার্তা। সম্প্রতি, ছেলে আরিয়ান খান জামিন পাওয়ার পর স্বস্তিতে থাকলেও জন্মদিনে সামনে আসেননি 'বাদশা'। লাইমলাইট থেকে নিজেকে একেবারে সরিয়ে রেখেছিলেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, গোটা পরিবারকে নিয়ে মন্নত ছেড়ে আলিবাগে নিজের অন্য একটি বাংলোয় আপাতত ডেরা বেঁধেছেন 'কিং খান'। এবার ভারতীয় সিনেমার এই গ্লোবাল আইকন-এর একটি অজানা ঘটনা বিস্তৃতভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস করে তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জনপ্রিয় পরিচালক হনসল মেহতা। আবেগঘন সেই পোস্ট পড়ে চোখ ভিজেছে নেটিজেনদের।

বরাবরই মতপ্রকাশের ব্যাপারে সোজাসুজি পথ অনুসরণ করে এসেছেন হনসল। রাজনৈতিক হোক কিংবা ব্যক্তিগত, স্পষ্ট ভাষায় নিজের সুচিন্তিত বক্তব্য ঋজুভাবে পেশ করেছেন 'স্ক্যাম ১৯৯২' ওয়েব সিরিজ খ্যাত এই বলি-পরিচালক। এবারে যেমন সোজাভাবে জানালেন কেন শাহরুখ একজন 'চিরকালীন সুপারস্টার' আর কেনই বা তিনি এই বলি-তারকাকে এতটা ভালোবাসেন। টুইটারে হনসল লিখেছেন মোট তিনবার তাঁর সঙ্গে শাহরুখের কথোপকথন হয়েছে। একবার টুইটারে, দ্বিতীয়বারে একটি ফিল্মি পার্টিতে। তাও অল্প সময়ের জন্য। তবে হ্যাঁ, তৃতীয়বারে যা ঘটেছিল এবং তাঁর পরিপ্রেক্ষিতে শাহরুখ যে কীর্তি করেছিলেন শুধুমাত্র সেই ঘটনার নিরিখেই শাহরুখ তাঁর হৃদয়ে চিরকালীন জায়গা করে নিয়েছেন।

হনসল জানান একবার একটি শিশু ভারী বিপদে পড়েছিল। তাঁর শরীরে টিউমারটির দ্রুত অস্ত্রোপচার না করলে প্রাণহানি হওয়ার সম্ভবনা দেখা গেছিল। এদিকে ওই শিশুটির পরিবার এতটাই দুঃস্থ যে তাঁদের পক্ষে ওই পাহাড়প্রমাণ অস্ত্রোপচারের খরচ ওঠানো ছিল কল্পনার বাইরে। খবরটি পেতেই বিচলিত হয়ে পড়েন হনসল। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ খবর জানানোর পাশাপাশি নিজেও আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন যতটা আর্থিকভাবে ওই পরিবারের পাশে দাঁড়ানো যায়। টুইট করার পর পরদিন হরিয়ানায় ছবির শ্যুটিংয়ের কাজে ব্যস্ত হয়ে যান পরিচালক। শ্যুটিংয়ের ফাঁকে একসময় লক্ষ্য করলেন যে তাঁর ফোনে একটি অচেনা নম্বর থেকে তিনবার কেউ কল করেছেন। এরপর এল একটি মেসেজ। সেখানে নরমভাবে হনসলকে পাল্টা ওই নম্বরে ফোন করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রেরকের নাম? শাহরুখ খান।

স্বভাবতই শাহরুখের ফোন দেখে চমকে গেছিলেন পরিচালক। 'ভেবে কূল কিনারা পাচ্ছিলাম না আমার সঙ্গে কী দরকার থাকতে পারে ওঁর মতো এত বড় একজন তারকার। যাই হোক ফোন করলাম। সময় নষ্ঠ না করে শাহরুখ জানালেন আমার সেই পোস্ট ওঁর চোখে পড়েছে। উনি ওই শিশুটির চিকিৎসার সব দায়িত্ব নিতে রাজি। যেমন বলা তেমন কাজ। কয়েক ঘন্টার মধ্যে হাসপাতাল ঠিক হয়ে গেল, টাকার ব্যবস্থা হয়ে গেল। অস্ত্রোপচার-এর বন্দোবস্তও হয়ে গেল। একটা তরতাজা প্রাণ বেঁচে গেল। সম্পূর্ণ এক অচেনা শিশুর জন্য শাহরুখ যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল তা দেখে অভিভূত হয়ে গেছিলাম। কোনওরকম হাঁকডাক নেই, প্রচার নেই, বাড়তি কথা নেই। চুপচাপ, গোপনে সম্পূর্ণ ব্যাপারটা সেরেছিলেন শাহরুখ। আর শুধু একবার নয়। এরপরেও আরও একবার ঠিক এরকম ব্যাপার ঘটিয়েছিলেন উনি!' টুইটারে নির্মেদ ভঙ্গিতে লেখা হনসলের লেখা থেকেই স্পষ্ট কতটা শ্রদ্ধা তিনি ব্যক্তি শাহরুখের প্রতি পোষণ করেন।

এখানেই না থেমে হনসল আরও বলেন এরপর শাহরুখকে যখন তিনি ধন্যবাদ জানাতে গিয়েছিলেন হেসে ওসব উড়িয়ে 'বাদশা' তাঁকে বলেছিলেন, 'আরে আমার কাছে অনেককিছু রয়েছে। তবু এটুকু কিছুই হয়ত করতে পারি'। 'স্ক্যাম ১৯৯২' এর পরিচালক এরপর লিখেছেন,' স্তম্ভিত হয়ে গেছিলাম শাহরুখের ওই নম্র ব্যক্তিত্ব দেখে। শাহরুখ, তারকার সংজ্ঞা বলতে একমাত্র তোমাকেই আমি বুঝি। আর সবসময়ের জন্য সেটাই থাকবে'।

বন্ধ করুন