বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > গা ছমছমে ভূতুড়ে অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন শাহির শেখ: ‘আমি অনেকবার ভয় পেয়েছি’
শাহির শেখ।

গা ছমছমে ভূতুড়ে অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন শাহির শেখ: ‘আমি অনেকবার ভয় পেয়েছি’

  • এক ভয় দেখানো থ্রিলারে দেখা যাবে শাহির শেখকে। তারই সাক্ষাৎকারে এসে পড়ুন কী জানালেন ‘মহাভারত’-এর অর্জুন। 

টেলিভিশন অভিনেতা শাহির শেখের শর্ট ফিল্ম ‘যাত্রী কৃপয়া ধ্যান দে’ (Yatri Kripya Dhyan De) মুক্তির অপেক্ষায়। সদ্যই মুক্তি পেয়েছে এই সিনেমার ট্রেলার। এর আগে টিভিতে ‘মহাভারত’-এর অর্জুন, ‘দাস্তান-এ-মহব্বত’-এর সলিম হিসেবে দেখতে পাওয়া গিয়েছে তাঁকে। আর এবার শাহির থাকছেন গা ছমছমে এক থ্রিলারে, অভিনেত্রী শ্বেতা বসু প্রসাদের সাথে। 

চলতি সপ্তাহের শুরুতেই এই থিলারের ট্রেলার প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে দেখা গিয়েছএ মুন্নরের চা বাগানের মধ্যে দিয়ে গাড়ি চালাচ্ছেন শাহির। পথে এক যাত্রী, শ্বেতাকে নিজের গাড়িতে লিফট দেন। আর দুই যাত্রীর মধ্যে কথা হয় ভূত, প্যারানরমাল জিনিস নিয়ে। যেখানে দেখা যায় লিফট দেওয়া মেয়েটির কথায় বেশ ভয় পেয়েছে শাহিরের চরিত্রটি। 

এখনই এই শর্ট ফিল্মের বিষয়বস্তু নিয়ে কথা বলতে চাননি শাহির। তবে হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘এটা ভূতের সিনেমা নয়, ওরা যখন আমাকে সিনেমার বিষয়বস্তু বলে তখন এটা ছিল একটি রহস্যের সিনেমা। শ্বেতা খুব ভালো অভিনেত্রী। আর ওর চরিত্রটা খুব আকর্ষক। এটা ২০-২৫ মিনিটের একটা সিনেমা, কিন্তু গোটা সময়টা আপনাকে চোখের পাতা ফেলতে দেবে না।’

শাহির জানিয়েছেন পাহাড়ি রাস্তায় শ্যুট করা তাঁর জন্য খুব সহজ ছিল না। জানান, ‘আমার একদম সামনে ক্যামেরা লাগানো হয়েছিল। যার ফলে গোটা রাস্তাটা ভালো করে নজর আসছিল না। পাহাড়ের আঁকাবাঁকা রাস্তা দিয়ে চালাতে হচ্ছিল গাড়ি, সাথে আমার সহ-অভিনেত্রীর দিকে শটের প্রযোজনে তাকাতে হচ্ছিল, ডায়লগ বলতে হচ্ছিল। একসাথে সবটা করা সহজ ছিল না একেবারেই। তবে নতুন লোকেশনে শ্যুট করে দারুণ লেগেছে।’

ট্রেলারে দেখা যাচ্ছে শ্বেতা শাহিরের কাছে প্রশ্ন রাখছেন, ‘আপনি কখনও অতিপ্রাকৃত ঘটনার সম্মুখীন হয়েছেন?’ ওই একই প্রশ্ন সাক্ষাৎকারের সময়ে শাহিরের কাছে রাখা হলে তিনি জানান, ‘না সেভাবে না। মাঝে মাঝে তোমি কিছু অনুভব করতে পারো, মনে হয় ওখানে কিছু আগে। কিন্তু গিয়ে খুঁজে দেখলে কিছুই চোখে পড়ে না। আমরা আসলে নিজেদের মাথার মধ্যেই সবটা ভেবে ফেলি। আর সেটাই চোখের সামনে দেখতে পাই। এটা আমার সাথেও বহুবার হয়েছে। আমি হয়তো কখনও ভূত দেখিনি, তবে ভয় পেয়েছি অনেকবার। আমি খুব ঘুরতে যাই, ট্রেকিংয়ে যাই। কখনও তোমার মনে হয় হয়তো জঙ্গলের মধ্যে কিছু আছে, পরে দেখা যায় ওটা একটা ইঁদুর। আমিও বেশ কয়েকবার ভয় পেয়েছি।’

বন্ধ করুন