বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > স্বামীর সঙ্গে একই ওয়েব সিরিজ অথবা ছবিতে কাজ করার কী কী অসুবিধে? অকপট শেফালি শাহ
(ছবি সৌজন্যে - টুইটার)

স্বামীর সঙ্গে একই ওয়েব সিরিজ অথবা ছবিতে কাজ করার কী কী অসুবিধে? অকপট শেফালি শাহ

  • বহু বছর পর স্বামী তথা পরিচালক-প্রযোজক বিপুল শাহ-এর সঙ্গে কাজ করলেন বলি-অভিনেত্রী শেফালি শাহ।

বহু বছর পর স্বামী তথা পরিচালক-প্রযোজক বিপুল শাহ-এর সঙ্গে কাজ করলেন বলি-অভিনেত্রী শেফালি শাহ। সৌজন্যে, 'হিউম্যান' ওয়েব সিরিজ। জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ডিজনি+হটস্টার-এ মোজেজ সিং-এর সঙ্গে এই ওয়েব সিরিজ পরিচালনার দায়িত্ব সামলেছেন বিপুল শাহ। এর আগে, ২০০৫ সালে মুক্তি পাওয়া সুপারহিট ছবি 'ওয়াক্ত: দ্য রেস এগেইনস্ট টাইম' ছবি বিপুলের পরিচালনায় অভিনয় করেছিলেন শেফালি। তিনি ছাড়াও সেই ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা গেছিল অমিতাভ বচ্চন, অক্ষয় কুমার এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে।

সম্প্রতি হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই ওয়েব সিরিজ নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি স্বামীর পরিচালনায় কাজ করার অসুবিধে নিয়েও মুখ খুললেন 'দিল ধড়কনে দো' ছবির অভিনেত্রী। এ প্রসঙ্গে সরাসরি তিনি বলে উঠলেন, 'আমার মনে হয় না স্বামীর পরিচালনায় কাজ করার তেমন কোনও বিরাট সুবিধে রয়েছে বলে। প্রথমেই পরিষ্কার করে দেওয়া ভালো এই প্রজেক্টটি স্রেফ আমার স্বামীর বলেই আমি সুযোগ পেয়েছি, এমনটি কিন্তু একেবারেই নয়। আমাকে মাথায় রেখেই এই চরিত্রটি লেখা হয়েছিল। এরপর আমাকে চিত্রনাট্য পড়তে দিয়ে মতামত জানতে চাওয়া হয়েছিল। এরপর বিপুলকে সম্মতি জানিয়েছিলাম। আসলে বিপুল ঠাণ্ডা মাথার মানুষ। ও খুব ভালো করে জানে যে ছবিতে ওঁর কাকে প্রয়োজন এবং কী কী প্রয়োজন। একইসঙ্গে ভীষণ টিম-ম্যান। সবার সঙ্গে মানিয়ে গুছিয়ে কাজ করতে ভালোবাসে।'সামান্য থেমে অভিনেত্রীর সংযোজন, 'আমি আজ পর্যন্ত কোনওদিনও বিপুলকে বলেনি যে আমার জন্য একটা ছবি পরিচালনা বা প্রযোজনা করে দাও।'

এরপর স্বামীর সঙ্গে কাজ করার প্রধান অসুবিধে কী তা জানতে চাওয়ায় অকপটভাবে শেফালি জানিয়ে দিলেন যে বাড়িতে বিপুলের সঙ্গে তিনি যেভাবে কথা বলেন বা মাঝেমধ্যে যেরকম ব্যবহার করেন ঠিক ওই একইরকম ব্যবহার যদি সেটে এসেও করতেন তাহলে সবাই ধরে নিত তাঁদের সম্পর্ক ঠিক নেই। সাংসারিক জীবনে দারুণ অশান্তি চলছে। তাঁর কথায়, 'এরকম মনোভাব কিংবা গুঞ্জন শুনলে হয়তো আমি আর বিপুল মজাই পেতাম কিন্তু অন্যদের মনে একটা সময়ের পর সেই ধারণা আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়াত। তাই শ্যুটিং চলাকালীন ভীষণ সাবধানে কথাবার্তা বলতাম বিপুলের সঙ্গে। মেপে কথা বলতাম। একজন অভিনেত্রী হিসেবে অন্য পরিচালকদের যে কথা আমি সহজে বলতে পারব, তা বিপুলকে সেটের মধ্যে বলার একাধিকবার ভাবতে হতো। '

বন্ধ করুন