বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'গান গাই, গান বেচে খাই! শুনতে খারাপ লাগলেও, এটাই সত্যি', বিস্ফোরক লোপামুদ্রা
লোপামুদ্র মিত্র (ফাইল ছবি)
লোপামুদ্র মিত্র (ফাইল ছবি)

'গান গাই, গান বেচে খাই! শুনতে খারাপ লাগলেও, এটাই সত্যি', বিস্ফোরক লোপামুদ্রা

  • সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলিং ও কটাক্ষর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন সংগীত শিল্পী লোপামুদ্রা মিত্র।

দিন কয়েক আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনদের কটাক্ষের শিকার হয়েছিলেন সংগীত শিল্পী লোপামুদ্রা মিত্র। এবার ফেসবুক পোস্টে নিজের মনের কথা উগড়ে দিলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলিং ও কটাক্ষর বিরুদ্ধে ফের একবার মুখ খুলতে দেখা গেল এই সংগীত শিল্পীকে। প্রতিবাদে সবর হতে দেখা গেল তাঁকে।

ফেসবুকের লম্বা পোস্টে লোপামুদ্রা লেখেন, ‘আমার কিছু কথা আছে। গান গাই, গান বেচে খাই। শুনতে খারাপ লাগলেও, এটাই সত্যি। আমাদের দিনযাপনে কোন স্বপ্ন নেই। শুধু ঈশ্বরের বিশেষ কৃপায় আপনি আমাকে চেনেন, নামে জানেন, ছবিতে চেনেন, কণ্ঠস্বর চেনেন। আমরা মানুষ, আপনারই মতো। পাখি নই। পাখি নিজে নিজেই গান গায়। পোকামাকড়, দানা খেয়ে, তারপর গান গেয়ে বেড়ায়।আমাদের কিন্তু গান শিখে, চর্চা করে, কপালে শিকে ছিঁড়লে তবেই গান গাওয়াকে পেশা করা যায়। আমাদের খাবার যোগাড়ের জন্যই গান গাইতে হয়। সঙ্গে ১০/১২ টা পরিবার , তারা কেউ যন্ত্র বাজায়, কেউ মাইক বাজায়, কেউবা আলো করে। কিন্তু তারাও খায়, আপনার মতোই। কিন্তু তারাও খায়, আপনার মতোই। আমাদেরও মন আছে। আমাদেরও শখ আছে’।

তিনি আরো লেখেন, ‘আমাদেরও মন আছে। আমাদেরও শখ আছে। আমাদেরও সংগ্রাম আছে। হ্যাঁ, এটাও সত্যি, ঈশ্বর সকলকে দেন না। কি করবো, বলুন?? যা পেয়েছি, তা ঈশ্বরের দান। আজ সোশ্যাল মাধ্যমে আমি, আপনি, আমরা সবাই এক খোপে। কেউ ইস্কুলে পড়াই, কেউ চাষ করি, কেউ মুদির দোকান চালাই, কেউ বড় কাছারিতে চাকরি করি, কেউ ছোট কাছারিতে, তার মধ্যেই কেউ ঈশ্বরের একটু বেশি পক্ষপাত দোষে গান গাই আবার কেউ ভিক্ষাও করি। নাম যশ কেনা যায় না। ওটা ঈশ্বরের দোষ। উনি দিয়েছেন বা দেন নি। আপনি ওপরের আলো দেখছেন, যেটা ঈশ্বর প্রদত্ত । আলোর ভিতরের মানুষ আর আপনি এক রক্ত মাংসের মানুষ। তাই আঘাত করলে দুবার ভাবুন।একটু ভাবুন’।

তাঁর কথায়, 'আলোর ভিতরের মানুষ আর আপনি এক রক্ত মাংসের মানুষ । তাই আঘাত করলে দুবার ভাবুন।একটু ভাবুন। আরও অনেক কথা বলার আছে। অনেক কথা। যতো আঘাত পাবো, ততো বলতে পারবো, আমাদের কথা। অতিমানব টাইপ, আমাদের কথা।'

প্রসঙ্গত, এই ঘটনার সূত্রপাত অনেক দিন আগে থেকেই। নেটমাধ্যমে নিজের বুটিক নিয়ে কটাক্ষের শিকার হয়েছেন এই গায়িকা। সংগীতশিল্পী হয়ে বুটিক চালানোর জন্য তাঁকে কটাক্ষ করেন নেটিজেনরা। 'শাড়ি বিক্রি করেন' বলেও অনেকে কটাক্ষ করেন তাঁকে। আবার নেটিজেনের অনেকেরই মন্তব্য লোপামুদ্রা এখন তো গান করেননা। তাই সমস্ত প্রশ্নের জবাব নিজেই দিতে দেখা গেল তাঁকে। দীর্ঘ পোস্টে কটাক্ষের উত্তর দিয়েছেন। মঞ্চে সোজাসাপ্টা কথা বলার অভ্যাসটাই নাকি খানিক ঝালিয়ে নিয়েছেন নেটমাধ্যমে।

 

বন্ধ করুন