বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সারেগামাপার শ্যুটে ছোট্ট ব্রেক! গ্রামে ফিরে স্নিগ্ধজিৎ মেডেল পরালেন মা-বাবা-বউকে
পরিবারকে সারপ্রাইজ দিলেন স্নিগ্ধজিৎ। 
পরিবারকে সারপ্রাইজ দিলেন স্নিগ্ধজিৎ। 

সারেগামাপার শ্যুটে ছোট্ট ব্রেক! গ্রামে ফিরে স্নিগ্ধজিৎ মেডেল পরালেন মা-বাবা-বউকে

  • স্নিগ্ধজিৎ জ্বরে কাঁপছে গোটা বাংলা। সারেগামাপা-র ট্রফি তিনিই পাবেন আশা বেশিরভাগ বাঙালি দর্শকের।

বাংলার দর্শকদের মন ইতিমধ্যেই জয় করে ফেলেছেন স্নিগ্ধজিৎ ভৌমিক। বাংলা সারেগামাপা-য় নিজের সুরের জাদুতে সকলকে মুগ্ধ করে তিনি এখন জাতীয় মঞ্চে। তবে সেখানেও দেখিয়ে চলেছেন একই কামাল। বিচারক থেকে শুরু করে জুড় সদস্যরা, স্নিগ্ধজিতের গান শুনলেই হুশ হারাচ্ছেন! এর মধ্যে তো আবার বিশাল দাদলানি তাঁকে দিয়ে দিয়েছেন নিজের গানে প্লেব্যাক করার অফারও!

এসবের মাঝেই মুম্বই থেকে ছোট্ট ব্রেক নিয়ে নিজের গ্রামের বাড়িতে পরিবারের কাছে ফিরলেন তিনি। যেখানে আছেন তাঁর মা-বাবা ও স্ত্রী। আর ফিরেই সেই মেডেল পরিয়ে দিলেন এঁদের। কারণ, স্নিগ্ধজিতের কাছে তাঁর পরিবারই এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা। নিজের পরিবারকে পাশে না পেলে গানের জার্নি যে এগোতে পারত না সেকথা স্বীকার করেছেন নিজের মুখেই। 

বাড়ির কাওকে না জানিয়েই এসেছিলেন তিনি। তাই দরজা খুলে ছেলেকে দেখতে পেয়ে এক মুখ হাসি নিয়ে জড়িয়ে ধরেন তাঁর মা। বাবাও ছেলেকে কাছে পেয়ে খুব খুশি। স্নিগ্ধজিৎ সোনার মেডেল পরিয়ে দেন তাঁর মা-কে। আর রুপোর মেডেল পরান বাবাকে। পরে আবার সোনার মেডেল পরাতে দেখা যায় স্ত্রী অদিতিকেও।

ভিডিওটি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন স্নিগ্ধজিৎ। লিখেছেন, ‘মেগা অডিশন শেষ হতেই মুম্বই থেকে ছুটেছিলাম গ্রামের বাড়ি মা বাবার সাথে দেখা করতে…সবাই অনেক আশীর্বাদ করো, ভালোবেসো আর এভাবেই পাশে থেকো। আর কিছু চাই না।’

আপাতত সোশ্যাল মিডিয়া স্নিগ্ধজিৎ জ্বরে কাবু। বাংলার দর্শকদের কাছে তিনিই বিজেতা। সারেগামাপা ২০২১-র ট্রফি বাংলায় আসার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন তাঁরা এখন থেকেই।

প্রসঙ্গত, স্নিগ্ধজিতের পাশাপাশি এবার পশ্চিম বাংলা থেকে সে মঞ্চে গিয়েছেন নীলাঞ্জনা রায়, অনন্যা চক্রবর্তী, কিঞ্জল চট্টোপাধ্যায়, দীপায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন