বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ধর্ম বদলে সোনিকে বিয়ে করেছিলেন মহেশ, প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান আলিয়ার মা
মহেশ ভাট ও সোনি রাজদান (ফাইল ছবি)
মহেশ ভাট ও সোনি রাজদান (ফাইল ছবি)

ধর্ম বদলে সোনিকে বিয়ে করেছিলেন মহেশ, প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান আলিয়ার মা

  • শুরুর দিকে সোনি রাজাদনের সঙ্গে মহেশ ভাটের সম্পর্ক মেনে নেয়নি মেয়ে পূজা ভাট। 'আমি সোনিকে ঘৃণা করতাম', জানিয়েছিলেন পূজা। 

বিবাহিত মহেশ ভাটের প্রেমে পড়েছিলেন অভিনেত্রী সোনি রাজদান। এরপর আশির দশকের শেষের দিকে বিয়ের বাঁধনেও বাঁধা পড়েন এই জুটি। দুই কন্যা সন্তান- শাহিন ও আলিয়ার বাবা-মা তাঁরা, সব সুখে-দুঃখে এখন একে অপরের পাশে থাকেন এঁরা। যদিও দুজনের দাম্পত্য সম্পর্কের গোড়ার দিকটা এতটাও মসৃণ ছিল না। ১৯৯৮ সালে সিম্মি গেরেওয়ালকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে সোনি রাজদান নিজের প্রেম কাহিনি ও দাম্পত্য সম্পর্কের চড়াই-উতরাই নিয়ে প্রথম মুখ খোলেন। 

দুই সন্তানের বাবা মহেশ ভাটকে ডেট করা শুরু করবার পর পরিচালকের প্রথম স্ত্রী কিরণ ভাটের সঙ্গে রীতিমতো ঝগড়াঝাটিতে জড়িয়েছিলেন সোনি। 

সোনি আমার সবচেয়ে কঠিন সময়ের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিয়েছে, যখন আমার মদের নেশা একটা রোগে পরিণত হয়েছিল, জানান মহেশ। সড়ক ২ পরিচালক যোগ করেন- ‘ওই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া যখন আমি সব ধ্বংস করে ফেলছি, ভীষণরকমভাবে বেদনাদায়ক ছিল ওর জন্য। ও (সোনি রাজদান) অনেক কিছুর মধ্যে দিয়ে গেছে, আমার অপর পরিবারের সঙ্গে পর্যন্ত ঝামেলায় জড়াতে হয়েছে, তবে কোনওদিন বিষয়টা নিয়ে বড় সমস্যা তৈরি করেনি ও’।

মহেশের প্রথম স্ত্রী ও তার পরিবারের প্রতি কী কোনও বিরূপ মনোভাব রয়েছে সোনি রাজদানের? আলিয়ার মা জবাব দিয়েছিলেন- ‘কিছু সময়ের জন্য হয়ত ছিল, হয়ত.. তবে সময়ের সঙ্গে সেটা বদলে গেছে। এখন আমাদের সম্পর্ক অনেক মজবুত, তবে হ্যাঁ, ঝগড়া তো হয়েছে। যখন বিয়ে হয়নি তখন অনেকবার সমস্যা হয়েছে তবে বিয়ের পর পরস্থিতি অনেকটা বদলে গিয়েছে'। 

মহেশ জানান সোনি রাজদানের সঙ্গে নিজের প্রেম কাহিনি তিনি নিজের ১০ বছর বয়সী মেয়ে পূজা ভাটের কাছ থেকেও লুকিয়ে রাখেননি। সোনিকে সঙ্গে নিয়ে তিনি পূজার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন, এবং নিজেদের সম্পর্কের কথা বলেন। 

 মহেশ ভাট, সোনি রাজদানের সঙ্গে তাঁদের সন্তান আলিয়া-শাহিন ও মহেশের প্রথমপক্ষের সন্তান পূজা ভাট
 মহেশ ভাট, সোনি রাজদানের সঙ্গে তাঁদের সন্তান আলিয়া-শাহিন ও মহেশের প্রথমপক্ষের সন্তান পূজা ভাট

পূজা অপর এক সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন শুরুর দিকে সোনি রাজদানকে তিনি ঘৃণা করতেন। মহেশ কন্যা জানান, ‘ অন্য নারীর জন্য আমার মাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য আমি বাবার প্রতি অবশ্যই মনোক্ষুণ্ন হয়েছিলাম। অবশ্যই আমার বাবাকে ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য আমি সোনিকে ঘৃণা করতাম। ওর নাম শুনলেই আমি তেলেবেগুনে জ্বলে উঠতাম এমনও সময় ছিল’।

মহেশ ভাট ১৯৬৮ সালে লরেন ব্রাইটকে বিয়ে করেন, বিয়ের পর লরেন নিজের নাম পালটে রাখেন কিরণ। তাঁদের দুই সন্তান পূজা ভাট (১৯৭২) ও রাহুল ভাট (১৯৮২)। সোনি রাজদানকে বিয়ে করলেও কিরণকে ডিভোর্স দেননি মহেশ, বরং তিনি নিজের মায়ের ধর্ম ইসলাম গ্রহণ করে সোনি রাজদানের সঙ্গে নিকাহ সেরেছিলেন। 

বন্ধ করুন