বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বিএমসির অবৈধ নির্মাণের নোটিশকে চ্যালেঞ্জ করে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ সোনু সুদ
সোনু সুদ (ফাইল ছবি)
সোনু সুদ (ফাইল ছবি)

বিএমসির অবৈধ নির্মাণের নোটিশকে চ্যালেঞ্জ করে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ সোনু সুদ

  • আগামিকাল সোনুর আবেদন শুনবে বম্বে হাইকোর্ট। 

অতিমারী করোনার সময়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে দাঁড়িয়ে গোটা দেশের নয়নের মণি হয়ে উঠেছেন সোনু সুদ। তবে সম্প্রতি বিতর্কে নাম জড়িয়েছে সোনু সুদের। চলতি সপ্তাহেই অভিনেতার বিরুদ্ধে মুম্বই পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরসভা। বিএমসির দাবি জুহুতে অবস্থিত ছয় তলার শক্তি সাগর আবাসনকে কোনওরম অনুমতি না নিয়েই হোটেলে পালটে ফেলেছেন সোনু সুদ। এই অবৈধ নির্মাণের যাবতীয় অভিযোগ আগেই অস্বীকার করেছিলেন সোনু, এবার তিনি আইনি পথে হাঁটলেন। 

বিএমসির নোটিশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বম্বে হাইকোর্টে আবেদনপত্র দাখিল করলেন সোনু সুদ। আগামিকাল এই মামলার শুনানি হবে আদালতে। মুম্বই পুলিশ আপাতত এই মামলা খতিয়ে দেখছে, এখনও পর্যন্ত সোনু সুদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়নি। 

সোনু সুদ অনুমতি না নিয়ে আবাসন হিসাবে অনুমোদিত জুহুর ওই বিল্ডিংকে আবাসিক হোটেলে রূপান্তরিত করে ফেলেছেন, অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের (BMC) কাছ থেকে অনুমতি নেননি, দাবি বিএমসির। এর জেরে জুহু পুলিশকে বিএমসি মহারাষ্ট্র রিজিয়ন অ্যান্ড টাউন প্ল্যানিং (MRTP) আইনের আওতায় অভিযোগ দায়ের করতে নির্দেশ দেয়। বিএমসি আরও দাবি করে নোটিশ জারি করবার পরেও কাজ বন্ধ করেননি সোনু সুদ। পুরসভা সূত্রে খবর গত বছর অক্টোবরেই নোটিশের বিরুদ্ধে নগর দায়রা আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সোনু, তবে কোনওরকম স্বস্তি মেলেনি।

এই অভিয়োগ খারিজ করে টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে সোনু সুদ জানিয়েছেন, ‘আমি প্রয়োজনীয় অনুমতি দিয়েছিলাম বিএমসির কাছ থেকে ওই বিল্ডিংয়ের ব্যবহারে বদলে আনতে। এটা মহারাষ্ট্র জোন ম্যানেজমেন্ট অথোরিটির অন্তর্ভূক্ত, কোভিড-এর কারণে এখনও ছাড়পত্র আসেনি। কোনওরকম আইন লঙ্ঘন হয়নি, আমি সবসময় আইন মেনে কাজ করি। এটা করোনা যোদ্ধাদের হোটেল হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে, যদি অনুমতি না আসে তাহলে এটা আবাসনে বদলে দিতে আমি রাজি আছি'।

বন্ধ করুন