বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > টলিগঞ্জে শ্যুটিং জট : ফেডারেশন- আর্টিস্ট ফোরাম তর্জায় কার পক্ষে সওয়াল গদাধরের?
সৌরভ সাহা
সৌরভ সাহা

টলিগঞ্জে শ্যুটিং জট : ফেডারেশন- আর্টিস্ট ফোরাম তর্জায় কার পক্ষে সওয়াল গদাধরের?

  • আমার কাজ না থাকলে, তুমিও কাজ করতে পারবে না- এই যুক্তিতে বিশ্বাসী নন সৌরভ সাহা। 

করোনা সংক্রমণে লাগাম টানতে গত মাসেই তালাবন্ধ হয়েছে স্টুডিওপাড়া। বিধিনিষেধের সময়সীমা ৩০শে মে থেকে বেড়ে ১৫ই জুনে পৌঁছে যাওয়ায় বাংলা সিরিয়ালের ভাঁড়াড়ে টান পরে। ব্যাঙ্কিং এপিসোড শেষ, অগত্যা শ্যুট ফ্রম হোমের পথেই হেঁটেছে বেশ কিছু প্রযোজনা সংস্থা। অনেকে আবার বাইরে কোনও হোটেলেও শ্যুটিং সারছেন বলে অভিযোগ এনেছে ফেডারেশন। তাঁদেরকে অন্ধকারে রেখে প্রযোজকরা শ্যুটিং চালানোর মনোক্ষুণ্ন হয় ফেডারেশ, কড়া চিঠি লিখে সে কথা জানিয়েও দেয় তাঁরা। এরপর থেকেই টলিপাড়ায় দ্বন্দ্ব চরমে। ফেডারেশন বনাম প্রযোজকদের এই লড়াইতে অবশ্য প্রযোজনা সংস্থাগুলোরই পাশে দাঁড়িয়েছে আর্টিস্ট ফোরাম। 

এই বিতর্ক নিয়ে এবার মুখ খুললেন অভিনেতা সৌরভ সাহা, মানে ‘করুণাময়ী রাণী রাসমণি’ ধারাবাহিকের গদাধর। আনন্দবাজার পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে ছোটপর্দার রামকৃষ্ণ জানান, ভালোবাসা থেকে অভিনয় করলেও, এটাই তাঁর রুজিরুটি। তাঁর মতো অন্য শিল্পীদেরও রোজগারের একমাত্র মাধ্যম অভিনয়। করোনা পরিস্থিতিতে যদি স্টুডিওপাড়া বন্ধ থাকলেও বিকল্প পদ্ধতিতে কাজ করা যায় তবে তার পক্ষপাতী তিনি। তবে সৌরভ সাহা স্পষ্ট জানান, ‘ফেডারেশন বা ফোরাম কারও বিপক্ষে দাঁড়িয়ে নেই আমি। সবাই আমাদের মাথায় ছাতা ধরেছেন। কিন্তু কঠিন সময়ে বিরোধে না নেমে এক জোট হয়ে সমাধান খুঁজে বার করা দরকার। আমি এই শিল্পের পক্ষে'। 

চ্যানেলের টাটকা পর্ব চলাটা খুব জরুরি এটা অস্বীকার করবার মতো জায়গায় কেউ নেই। এবছর গতবারের চেয়ে ছবিটা আলাদা। মহারাষ্ট্রে শ্যুটিং বন্ধ থাকলেও হিন্দি সিরিয়ালের নতুন এপিসোডের সম্প্রচারণ বন্ধ নেই। কারণ গুজরাত, গোয়ার মতো রাজ্যে গিয়ে সিরিয়ালের শ্যুটিং সারছেন তাঁরা। সিরিয়ালের রিপিট টেলিকাস্টের ক্ষেত্রে দর্শক হারানোর বিরাট ভয় রয়েছে বাংলা ধারাবাহিকগুলোর। 

সৌরভ জানান, ‘১০ জন কাজ করতে না পারলে বাকি ১০ জনকেও কাজ করতে দেব না। এ রকম ভাবনা কি এই সময়ের উপযোগী? কেউ কেউ কাজ করতে পারলে তবেই তো শিল্পের চাকা ঘুরবে'। সৌরভের নিজের ছেলের বয়স অল্প। তাই বাইরে বেরিয়ে শ্যুটিং করাতে তাঁরও কম ঝুঁকি নেই, তবুও পেশার তাগিদে সেটা করতে বাধ্য তিনি। তিনি বাবা হিসাবে আশঙ্ক্ষা সঙ্গেই থাকে বলেন অভিনেতা।

একটা রাস্তা বন্ধ হলে সকলে মিলে যেন অন্য ‘বাইপাস’ রাস্তা ধরা যায় সেই পক্ষেই সওয়াল করলেন সৌরভ সাহা। 

বন্ধ করুন