বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বেজির গলায় শিকল দিয়ে ছবি তুলে বিপাকে শ্রাবন্তী, হাজতবাসও হতে পারে এবারে!
আইনি ঝামেলায় জড়ালেন শ্রাবন্তী।

বেজির গলায় শিকল দিয়ে ছবি তুলে বিপাকে শ্রাবন্তী, হাজতবাসও হতে পারে এবারে!

  • জানুয়ারিতে একটি ছবি পোস্ট করেন। আর তা নিয়েই এত ঝামেলা!

বিতর্ক আর শ্রাবন্তী, চলে একসাথে হাত ধরাধরি করে। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তো হামেশাই থাকেন চর্চায়। এবার নিজের শেয়ার করা একটি পোস্টের জেরেই পড়তে চলেছেন বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইনের কোপে। এমনকী, দোষী সাব্যস্ত হলে শ্রাবন্তীর জেল হতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে!

১৫ জানুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করেছিলেন শ্রাবন্তী। যেখানে তাঁর হাতে দেখা গিয়েছিল একটি বেজিকে। প্রাণীটির গলায় লাগানো ছিল একটি বকলস। সেটি আবার বাঁধা ছিল চেনের সাথে। ছবির ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘আচমকা ছোট্ট বন্ধুটির সঙ্গে দেখা হল।’

জানুয়ারিতেই যখন ছবিটি পোস্ট করেছিলেন শ্রাবন্তী তখনই তা নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। কমেন্ট সেকশনে অনেকেই মন্তব্য করেছিলেন, ছোট্ট প্রাণীটির উপর অত্যাচার করছেন অভিনেত্রী।

শ্রাবন্তী ইনস্টাগ্রামে এই ছবিটিই শেয়ার করেছিলেন।
শ্রাবন্তী ইনস্টাগ্রামে এই ছবিটিই শেয়ার করেছিলেন।

বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন ১৯৭২-এর ৯, ১১, ৩৯, ৪৮এ, ৪৯, ৪৯এ-র ভিত্তিতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, খুব জলদিই সল্টলেকের ওয়াইল্ডলাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল সেল এবং ডাটা ম্যানেজমেন্ট ইউনিটের সামনে হাজিরা দিতে হবে তাঁকে। আর সেখানেই জিজ্ঞাসাবাদ হবে। 

আপাতত এই বিতর্কিত বিষয় নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি শ্রাবন্তী। তাঁর আইনজীবী এস কে হাবিবউদ্দিন জানিয়েছেন, তাঁর আগে পুরো ব্যাপারটা ভালো করে বুঝে নিতে চান। বনদপ্তরের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘বন্যপ্রাণীকে এভাবে বন্দি করে রাখা শুধু যে অপরাধ তা নয়, শ্রাবন্তীর মতো একজন তারকা যদি এমন কাজ করেন, তাহলে অনেকেই প্রভাবিত হতে পারে তা দেখে। শ্রাবন্তীর উচিত বনদপ্তরের সঙ্গে সহযোগিতা করা এবং বনপ্রাণ সংরক্ষণের এই লড়াইয়ে আমাদের সাহায্য করা।’

বন্ধ করুন