বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রোশনের ইমজে নষ্ট করবার চেষ্টা চলেছে? বিস্ফোরক অভিযোগ শ্রাবন্তীর স্বামীর
রোশনের নাম ভুয়ো ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট 
রোশনের নাম ভুয়ো ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট 

রোশনের ইমজে নষ্ট করবার চেষ্টা চলেছে? বিস্ফোরক অভিযোগ শ্রাবন্তীর স্বামীর

  • রোশনের নামে খোলা হল ভুয়ো ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট। আর্জি রাখলেন শ্রাবন্তীর স্বামী। 

তারকাদের নামে হামেশাই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘ফেক’ বা ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করা হয়। তবে এবার সাইবার ক্রাইমের জালে জড়ালেন শ্রাবন্তীর বিচ্ছিন্ন স্বামী রোশন সিং। গ্ল্যামার দুনিয়া থেকে নিজেকে দূরে রাখতে চাইলেও সোশ্যাল মিডিয়ার হটকেক রোশনের পোস্ট। ইনস্টাগ্রামে প্রায় ২২ হাজার মানুষ ফলো করেন রোশন সিংকে। শ্রাবন্তীর স্বামীর হওয়ার সুবাদেই যে লাইম লাইটে উঠে এসেছেন এই হ্যাডসাম হাঙ্ক, তা বলবার অপেক্ষা রাখে না। সোশ্যালে মূলত নিজের জিম ও ফিটনেস সংক্রান্ত ভিডিয়ো ও ছবি পোস্ট করে থাকেন রোশন।

এবার রোশনের নামে ইনস্টাগ্রামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খোলা হল। রোশনের ছবি ব্যবহার করেই তৈরি এই অ্যাকাউন্ট। অথচ এই অ্যাকাউন্ট নিয়ে কোনও ধারণাই নেই রোশনের। ভুয়ো ইনস্টা প্রোফাইলের স্ক্রিনশট নিজের ইনস্টাগ্রামের দেওয়ালে পোস্ট করে রোশন লেখেন- ‘দয়া করে এই পেজটি ফলো করবেন না,এটি ফেক অ্যাকাউন্ট। দয়া করে রিপোর্ট করুন’। 

শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের স্বামীর ওই ভুয়ো প্রোফাইলটি ৯২ জনকে ফলো করছিল এবং ফলোয়ারের সংখ্যা ছিল ১৩। রোশনের দাবি, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাঁর নামে কুত্সা ও বদনাম রটাতে এই কাজটি করা হচ্ছে। তিনি জানান,'আকাউন্টটা খোলার পরেই আমাকে ব্লক করে দেওয়া হয়। অনেককে অনেক অশ্লীল মেসেজও পাঠানো হয়েছে প্রোফাইলটি থেকে'। তবে এইভাবে তাঁকে দমানো যাবে না সাফ জানিয়ে দেন রোশন। 

কিছুদিন আগেই আনন্দবাজার ডিজিটালকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে রোশন দাবি করেন শ্রাবন্তীর সঙ্গে তাঁর কোনও যোগাযোগ নেই এবং যা হয় সেটা ভালোর জন্যই হয়। মঙ্গলবার ইনস্টাগ্রামের দেওয়ালে খালি গা আর তোয়ালে জড়ানো একটি ছবিতে শরীর ফোলানো অবস্থায় দেখা মেলে রোশনের। ক্যাপশনে তিনি লেখেন- ‘সিঙ্গল হওয়াটা শুধুই স্টেটাস, কারুর নিয়তি হতে পারে না’। আর এই পোস্টের কয়েক মুহূর্ত পড়েই কি ইনস্টা স্টোরিতে শ্রাবন্তীপুত্র অভিমন্যু ব্যায়ামবিদ  বা বডিবিল্ডারদের একাংশকে কটাক্ষ করেন। লেখেন- ‘এই পৃথিবীতে কিছু বুদ্ধিহীন বডিবিল্ডার আছে যারা তাদের শরীরের এতটাই বৃদ্ধি ঘটিয়েছে যে তাদের মস্তিষ্কেই আর কিছু নেই। আমার এটা কিছুতেই মাথায় ঢোকে না… বাস্তবে তাদের ভদ্রভাবে কথা বলার মতো ক্ষমতা নেই কারণ তারা সেই শিক্ষাদীক্ষা নিয়ে বড় হয়নি'।

রোশনকে ইঙ্গিত করেই নাকি অভিমন্যুর এই স্টেটাস, তেমন দাবি নিন্দুকদের। 

বন্ধ করুন