বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Sudipa Chatterjee and Aritra Dutta Banik: সুদীপা বনাম অরিত্র! অভিনেত্রীর খোঁচার জবাবে ভিডিয়ো-বার্তা অভিনেতার, দেখে নিন
সুদীপা আর অরিত্রর বিতণ্ডায় শোরগোল।

Sudipa Chatterjee and Aritra Dutta Banik: সুদীপা বনাম অরিত্র! অভিনেত্রীর খোঁচার জবাবে ভিডিয়ো-বার্তা অভিনেতার, দেখে নিন

  • Sudipa Chatterjee and Aritra Dutta Banik: ‘আমি কি দারোয়ান’ মন্তব্যের জেরে সুদীপার সমালোচনা করেছিলেন অরিত্র। তার উত্তরে সুদীপা দেন খোঁচা। এবার অরিত্রর ভিডিয়ো-জবাব। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর আলোচনা সুদীপা চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে। সম্প্রতি ফেসবুকে তিনি লিখেছিলেন, খাবার ডেলিভারি সংস্থার হয়ে যাঁরা ডেলিভারি দিতে আসেন তারা সকলেই তাঁকে দরজা খুলতে বলেন। পাশাপাশি তিনি লিখেছিলেন ‘আমি কি দারোয়ান’।

এর পরেই বিরাট সমালোচনা শুরু হয় তাঁর। নেটিজেনদের পাশাপাশি সেই সমালোচনায় অংশ নিয়েছিলেন শিশু শিল্পী হিসাবে টলিউডে আশা অরিত্র দত্ত বণিকও। অরিত্র লিখেছিলেন, ‘এই কারণে বাংলার মিডিয়া ও ফিল্মের শিল্পীরা দীর্ঘদিন আগেই দেশের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা হারিয়েছেন, জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও সঞ্চালিকা যাকে লক্ষাধিক মানুষ ফলো করেন তার কাছ থেকে এই বক্তব্য একেবারে কাম্য ছিলো না। তাও উনি পোস্টটা ডিলিট করেছেন তবে মাথায় রাখবেন পোস্ট সরিয়ে নিলেই মন থেকে অহংকারী মানসিকতা সরে যায় না, তাই যে কোনও কুরিয়ারের ছেলেমেয়েরা আসলে অশিক্ষিত ও আপনার ভৃত্য, এই ধরনের চিন্তা ছুড়ে ফেলে দিন। ওরা পরিষেবা ক্ষেত্রের কর্মী, বেতন আপনার থেকে ৮০ শতাংশ কম কিন্তু পরিশ্রম ও ঝুকি আপনার থেকে ২০০ শতাংশ বেশি, যে কোনো পেশার মানুষদের সম্মান রয়েছে, জনপ্রিয় বা সিনেমাওয়ালা মানেই সে মহামানব কেউ নয়, এইটা বোধ করি বুঝে নিতে হবে সবাইকে।’

এর পরে সুদীপাও ছেড়ে কথা বলেননি। তিনি বলেন, ‘অরিত্র নিজে কী, যে আমাকে এসব বলছে? সুদীপা এর পাশাপাশি বলেন, বাড়ির সব কাজ তিনি করতে পারেন, তিনি নিজের বাড়ির দারোয়ানও, তিনি এই ভাবে কথা বলতে চাননি, লোকে বরাবর তাকে ভুল বুঝেছে।

অরিত্র সম্পর্কে এর পরে তাঁর বক্তব্য ছিল, ‘আমি যতদূর জানি অরিত্র যখন ছোট ছিল তখন ট্র্যাফিক পুলিশ গাড়ি আটকালে ওর বাবা-মা’ই বলতেন ভেতরে অরিত্র আছে। আর তা ছাড়া ও কে? কী করেছে জীবনে যে ওর কথা শুনতে যাব? বড়দের সম্মান দিতে জানে না। আমরা কিন্তু কখনওই আমাদের আগের প্রজন্মের সঙ্গে এভাবে কথা বলার সাহসটুকু পর্যন্ত পাইনি।’

পরিবারের প্রসঙ্গে উঠতেই রীতিমতো চটেছেন অরিত্র। তাই তিনি এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিয়ো-বার্তা দিয়েছেন সুদীপাকে। তাঁর বাবা-মা-ঠাকুরদা-সহ পরিবারের অন্য সদস্যদের পরিচয় দেওয়ার পাশাপাশি অরিত্র জানিয়েছেন তাঁদের সামাজিক অবস্থানের কথা। বলেছেন, তাঁদের কখনও দরকার হয়নি অরিত্রর পরিচয় ব্যবহার করার। পাশাপাশি নিজের গাড়ির নম্বর জানিয়ে তিনি বলেছেন, যা যা কেস এখনও পর্যন্ত গাড়িটির নামে আছে, সেগুলি ভালো করে দেখে নিতে। দেখে নিন সেই ভিডিয়ো।

শেষে গিয়ে তিনি সুদীপাকে বলেছেন, পেশা বয়সের নিরিখে তিনি যেন কাউকে অপমান না করেন।

বন্ধ করুন