বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Sudipta Chakraborty: ‘…রান্নার কাজই তো করতেন’, রান্নার শো নিয়ে কটাক্ষ সুদীপ্তাকে,সপাট জবাব অভিনেত্রীর

Sudipta Chakraborty: ‘…রান্নার কাজই তো করতেন’, রান্নার শো নিয়ে কটাক্ষ সুদীপ্তাকে,সপাট জবাব অভিনেত্রীর

সুদীপ্তা চক্রবর্তী (ছবি-ফেসবুক)

Sudipta Chakraborty: ‘বাড়িতে যে বা যাঁরা রান্না করে দেন বলে দু’মুঠো খেতে পান, তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন', ট্রোলারকে উচিত শিক্ষা দিলেন সুদীপ্তা। 

লম্বা বিরতির পর ছোটপর্দায় ফিরছেন অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী। তবে ফিকশন নয়, নন-ফিকশন শো নিয়ে। গত সোমবার থেকে কালার্স বাংলায় শুরু হয়েছে এই রান্নার অনুষ্ঠান, ‘রান্নাঘরের গপ্পো’। এই শো-এর জন্য এক জনৈকর কটাক্ষের মুখে পড়লেন অভিনেত্রী। চুপ থাকার পাত্রী নন সুদীপ্তা, যোগ্য জবাব দেন তিনি। পাশাপাশি অনান্য় নেটিজেনরাও কড়া ভাষায় প্রতিবাদ জানান এবং মোক্ষম জবাব দেন অতীন্দ্র চক্রবর্তী নামের ওই ব্যক্তিকে।

‘আজকের পর্ব কেমন লাগলো?’ ফেসবুকে অনুষ্ঠানের একটি ছবি পোস্ট করে জানতে চেয়েছিলেন সঞ্চালিকা। সেই পোস্টের কমেন্ট বক্সে অভিনেত্রীর উদ্দেশে একজন লেখেন,'ঠিক কাজই নিয়েছেন। বাড়িওয়ালী সিনেমায় তো রান্নার কাজই করতেন। ওখান থেকেই হাতে খড়ি...।' এহেন মন্তব্য দেখে মেজাজ হারান সুদীপ্তার অনুরাগীরা। সেই ব্যক্তিকে রীতিমতো ঝাড় দেন তাঁরা। কিন্তু শান্ত ভঙ্গিতে ট্রোলারকে জবাব দেন অভিনেত্রী। তিনি লেখেন- ‘একটু ভুল হয়ে গেল যে ..! বাড়িওয়ালি সিনেমায় রান্নার কাজ করিনি, অভিনয় করেছি একটি চরিত্রে, যে অভিনয় এর জন্য সেই বছরে সারা ভারতবর্ষের সমস্ত ছবির অভিনেত্রী দের মধ্যে আমাকে সেরা নির্বাচন করা হয় এবং সেই পুরস্কার হাতে তুলে দেন ভারতবর্ষের তদানীন্তন রাষ্ট্রপতি। আমার অভিনয়ের হাতেখড়ি অনেক আগে। সেই নিয়ে আর বিস্তারে গেলাম না’।

পালটা জবাব সুদীপ্তার
পালটা জবাব সুদীপ্তার

এখানেই শেষ নয়, এরপর সুদীপ্তার সংযোজন- ‘এই শোয়ে আমি রান্না করছি না, শো সঞ্চালনা করছি মাত্র। এবার বলি, রান্না করা অত্যন্ত কঠিন একটা কাজ, আর ভাল রান্না করা আরও কঠিন। তাই হাসতে হাসতে চোখ দিয়ে জল বের করে ফেলে এই কঠিন কাজটাকে সামান্য করে দিতে কোন অশিক্ষিত লোকই পারবে না। আপনিও না। আপনি রান্না করতে পারেন কি না জানা নেই। তবে লেখা পড়ে মনে হচ্ছে পারেন না। পারলে রান্নাকে সম্মানের চোখে দেখতেন। বাড়িতে যে বা যাঁরা রান্না করে দেন বলে দু’মুঠো খেতে পান, তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন। দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন।’

সুদীপ্তার এই পালটা জবাব মন জিতে নিয়েছে নেটপাড়ার। এখানেই শেষ নয়, নেটিজেনদের অনেকেই ওই ব্যক্তিকে লাগাতার আক্রমণ করতে থাকলে নিজের ট্রোলারের পাশেও দাঁড়ান সুদীপ্তা। সবার কাছে আবেদন করেন-'আমার স্থির বিশ্বাস ভদ্রলোক এত কিছু না ভেবে একটা চটুল ইয়ার্কি মেরে মন্তব্যটি করেছিলেন। সবাই একসঙ্গে তাঁর উপর চড়াও হওয়ার পর তিনি ক্ষমাও চেয়েছেন। আবার বলছি, এবার ওঁকে ছেড়ে দিন। সবার অতি উৎসাহ অন্য কোন বিপদ ডেকে আনতে পারে। ছবি দেখে মনে হয়েছে ওঁর বয়স হয়েছে। নিজের নির্বুদ্ধিতার ফল উনি কাল রাত থেকে আজ বিকেল অবধি সময়ে যথেষ্ট পেয়েছেন। এবার ওঁকে ছেড়ে দিন'।

প্রসঙ্গত, ঋতুপর্ণ ঘোষের ‘বাড়িওয়ালি’ ছবিতে অভিনয় করবার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছিলেন সুদীপ্তা। তবে সুদীপ্তার আক্ষেপ ‘কাজের লোক’দের নিয়ে ইন্ডাস্ট্রির অন্দরেও মানসিকতা সঠিক নয়। তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার অনেক ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। তাঁরাও যখন কাজের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে যায় তাঁদের সঙ্গেও এমন ব্যবহার করা হয় যাতে মনে হয় ওঁরা সত্যিকারের কাজের লোক। …. ইন্ডাস্ট্রির অন্দরের মানুষের যদি এই রকম মানসিকতা হয় তাহলে বাইরের মানুষদের কেন হবে না?’

 

 

 

বন্ধ করুন