বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Rupanjana Mitra: কাজ পেতে ইন্ডাস্ট্রিতে সুগার ড্যাডি ধরছে উঠতি নায়িকারা,আরও অর্পিতা তৈরি হবে: রূপাঞ্জনা
বিস্ফোরক রূপাঞ্জনা

Rupanjana Mitra: কাজ পেতে ইন্ডাস্ট্রিতে সুগার ড্যাডি ধরছে উঠতি নায়িকারা,আরও অর্পিতা তৈরি হবে: রূপাঞ্জনা

  • Rupanjana Mitra: টলিউডের অন্ধকারদিক নিয়ে বিস্ফোরক রূপাঞ্জনা মিত্র। টলিগঞ্জে এখন ‘সুগার বেবি’ হওয়ার চল, ল্যাভিশ লাইফস্টাইল মেনটেন করতে উঠতি নায়িকারা সুগার ড্যাডি ধরছে, দাবি অভিনেত্রীর। 

বাংলা বিনোদন জগতে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন রূপাঞ্জনা মিত্র। টেলিভিশনের পরিচিত নাম তিনি। কিন্তু ইন্ডাস্ট্রির বুকে প্রতিদিন ঘটে চলা ঘটনায় ব্যাতীত অভিনেত্রী। একের পর এক উঠতি মডেল বা অভিনেত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় চিন্তিত তিনি। উঠতি অভিনেত্রীদের উশৃঙ্খল জীবনযাত্রা নিয়ে বিস্ফোরক ইন্ডাস্ট্রির এই ইনসাইডার।

গ্ল্যামার জগতে অনেকটা পথ পার করে আসা রূপাঞ্জনাকে ভাবাচ্ছে আজকের প্রজন্ম। অর্পিতার প্রসঙ্গ টেনে এনে এদিন ফেসবুকে বিস্ফোরক পোস্ট লিখলেন রূপাঞ্জনা। যা রীতিমতো ভাইরাল। টলিউডে এখন ‘সুগার ড্যাডি কালচার’ তৈরি হয়েছে, দাবি অভিনেত্রীর। টাকার লোভে বাবার বয়সী পুরুষদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ছে উঠতি অভিনেত্রী। ল্যাভিশ লাইফস্টাইল মেনটেন করতেই ‘সুগার বেবি’ হচ্ছেন তাঁরা।

ফেসবুকে অভিনেত্রী লেখেন,'একটা কথা বলতে চাই সেই সব মেয়েদের-কে যারা কাজ পাওয়ার জন্য ইন্ডাস্ট্রি তে 'সুগার ড্যাডি' ধরছেন। মেয়েগুলোর বয়স ১৬ থেকে ২০ এর মধ্যেই।

আপনারা এর মধ্যেই বুঝে যাচ্ছেন ইন্ডাস্ট্রি কি নিয়মে চলে? কেউ কেউ তো আবার বার্থডে পার্টিও থ্রো করাছেন সেসব উটকো সুগার ড্যাডি'দের দিয়ে তাতে আমাদের ইন্ডাস্ট্রির কিছু ইনসিকিউর শিল্পী রা পরিচালকরা যাচ্ছেন …. জাস্ট লাইক দ্যাট….'।

এখানেই শেষ নয়, এরপর অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গ টেনে আনেন ‘অনুরাগের ছোঁয়া’র লাবণ্য সেনগুপ্ত। তাঁর আশঙ্কা আগামিদিনে এরাও হয়ত অর্পিতার মতোই বিপথে যাবে। তিনি লেখেন, 'এই মেয়েগুলোও কি আগামী দিনে আর্পিতাদের মত হবে। চিন্তা হচ্ছে খুব। এই মেয়েগুলোও কে গাইড করার মতো অভিভাবক নেই ? তাদের নিজেদের অভিভাবকরা কি প্রশ্রয় দেন?

টলিপাড়ার অন্দরের অন্ধকারময় জগতের কথা উল্লেখ করে তাঁর প্রশ্ন, 'এই ''ফুড চেন এ যারা পড়তে চায়না তারা কি করবে? সেই মেয়েগুলোও যারা মাথা তুলে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি তে কাজ করতে চায়। তাদের পাশে থাকবেন তো আপনারা?'

রূপাঞ্জনার সহকর্মী অভিনেত্রী রূপা ভট্টাচার্য এই পোস্টের কমেন্ট বক্সে লেখেন, ‘….এই সব মেয়েদের মায়েরাও এই ধরণের কাজে উৎসাহ দেয়। দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি এই দ্বিতীয় ধরণ ও কম দেখি না। লোভ আর লাক্সারি এই বিষচক্র নাগপাশের মতো বেঁধে ফেলছে মেয়েটির সাথে তার পরিবারকেও কখনো কখনো।’ এই প্রজন্মের অন্যতম অভিনেত্রী শ্রুতি দাস নিজের মত প্রকাশ করে লেখেন, 'আমি শেষ দুটো লাইনের ভুক্তভুগী এবং আমি পাশে কাকে পাবে কীভাবে পাবো জানতে চাই। নিরুপায় এই প্রশ্নের উত্তর পাবে কিনা জানি না। তবে ধন্যবাদ আমায় সত্যিটা স্বীকার করবার একটা পরোক্ষ সুযোগ দেওয়ার জন্য'।

বন্ধ করুন