বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Jacqueline-Nora: সুকেশের অতীতের কথা জেনেও টাকার লোভে সঙ্গ ছাড়েননি জ্যাকলিন? চাঞ্চল্যকর তথ্য
বিতর্কের শেষ কোথায়? 

Jacqueline-Nora: সুকেশের অতীতের কথা জেনেও টাকার লোভে সঙ্গ ছাড়েননি জ্যাকলিন? চাঞ্চল্যকর তথ্য

  • ইডি-র খাতায় আগেই অভিযুক্ত হিসাবে চিহ্নিত হয়েছেন জ্যাকলিন, শীঘ্রই ফের জেরার মুখে পড়তে হবে কনম্যান সুকেশের চর্চিত বান্ধবীকে। অন্যদিকে শুক্রবার এই মামলায় নোরাকে জিজ্ঞাসাবাদ করল দিল্লি পুলিশের ইকোনমিক উইংস।

তোলাবাজির মামলায় অভিযুক্ত বলিউড সুন্দরী জ্যাকলিন ফার্নান্ডিজ। বিপদে পড়তে পারেন অপর বলি-সুন্দরী নোরা ফতেহিও। দুজনেরই নাম জড়িয়েছে কনম্যান সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে। ২০০ কোটি টাকার আর্থিক তছরুপের মামলায় জেলবন্দি সুকেশ নিজের মুখে জানিয়েছিলেন জ্যাকলিনের সঙ্গে তাঁর প্রেম সম্পর্কের কথা। 

জ্যাকলিনের প্রেমে পাগল এই কনম্যান কেলেঙ্কারির টাকা জলের মতো খরচ করেছেন প্রেমিকার মন জুগিয়ে চলবার জন্য। ইডির তদন্তে উঠে এসেছে শ্রীলঙ্কায় জ্যাকলিনের জন্য কোটি টাকার বাড়ি কিনেছিলেন সুকেশ। শুধু তাই নয়, মুম্বইয়ের জুহুতেও জ্যাকলিনের জন্য একটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট বুক করেছিলেন সুকেশ। দামি দামি ব্যাগ থেকে চাটার্ড প্লেনের খরচ- সব জোগাতেন সুকেশ। 

দিল্লি পুলিশের ইকোনমিক উইংস-এর দায়ের করা মামলার ভিত্তিতেই এই আর্থিক কেলেঙ্কারির তদন্ত করছে ইডি। পৃথক তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে দিল্লি পুলিশও। ইকোনমিক উইংস-এর স্পেশ্যাল সিপি (ক্রাইম)জানান, ‘কিছু মানুষজন ওর হয়ে কাজ করত। সেইসব মিডিলম্যানদের মাধ্যমে অভিনেত্রীদের সঙ্গে আলাপ করতেন সুকেশ, তারপর বন্ধুত্ব গড়ে তোলবার চেষ্টা চালাতেন। এরপর তাঁদের দামি উপহার দিতেন। কিছু মানুষজন সবটা জেনে বুঝে, শুধুমাত্র টাকার লোভে সঙ্গ ছাড়েনি’। 

ইডির রিপোর্টে জানা গিয়েছে সুকেশ চন্দ্রশেখর নিজের সহকারী পিঙ্কি ইরানিকে দায়িত্ব দিয়েছিলেন জ্যাকলিনের সঙ্গে আলাপের জন্য। এরপর নায়িকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হন এবং তাঁকে দামি উপহারে ভরিয়ে দেন। সুকেশ যে বিবাহিত এবং সুকেশের ক্রিমিন্যাল ব্যাকগ্রাউন্ড- কোনওটাই অজানা ছিল না জ্যাকলিনের, তবুও সুকেশের কাছ থেকে ফায়দা লুটবার চেষ্টা করেছেন নায়িকা- এমনটাই খবর ইডি সূত্রের। শুধু জ্যাকলিন নয়, তাঁর পরিবারের সদস্যদেরও দামি উপহার দিয়েছেন সুকেশ। 

সুকেশ চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে দামী-দামী উপহার নেওয়ার অভিযোগ আগে থেকেই রয়েছে নোরা ফতেহির বিরুদ্ধেও। বলিউডের ‘সাকি সাকি’ গার্লকে এই মামলায় শুক্রবার ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদ করল দিল্লি পুলিশের ইকোনমিক উইংস। সাত ঘন্টা ধরে জেরা করা হয় নোরাকে এমনটাই জানা যাচ্ছে সূত্র মারফত। আরও পড়ুন-৭ ঘন্টা ধরে ম্যারাথন জেরা! ২০০ কোটির প্রতারণা মামলায় জ্যাকলিনের পর বিপাকে নোরা

সূত্রের খবর, এদিন নোরাকে ৫০টিরও বেশি প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেন তদন্তকারীরা। কী কী উপহার সুকেশের কাজ থেকে পেয়েছেন নোরা, কার সঙ্গে নোরার কথা হত? কীভাবে সুকেশের সঙ্গে তাঁর পরিচয়? তারপর সম্পর্ক কেমনভাবে এগোল? এই সব তথ্য জানতে চায় পুলিশ। নোরা জানিয়েছেন, জ্যাকলিনের সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই। আলাদা আলাদাভাবে তাঁদের সুকেশের সঙ্গে কথা হয়েছে। তদন্তে সহযোগিতা করছেন নোরা, খবর সূত্রের।

 

বন্ধ করুন