বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সুশান্ত মামালা : তদন্তের কোনও তথ্য আমরা ফাঁস করিনি, হাইকোর্টকে বলল CBI, ED,NCB
সুশান্ত সিং রাজপুত (ফাইল ছবি)
সুশান্ত সিং রাজপুত (ফাইল ছবি)

সুশান্ত মামালা : তদন্তের কোনও তথ্য আমরা ফাঁস করিনি, হাইকোর্টকে বলল CBI, ED,NCB

  • সুশান্তের মৃত্য তদন্তের সঙ্গে জড়িত কোনওরকম তথ্য মিডিয়ায় বা অন্য কোথাউ ফাঁস করা হয়নি সিবিআই, এনসিবি, ইডির তরফে। আদালতে জানাল তদন্তাকারী সংস্থা। 

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত তিনটি পৃথক মামলা তদন্ত করছে দেশের তিন কেন্দ্রীয় সংস্থা- সিবিআই, ইডি এবং এনসিবি। বম্বে হাইকোর্টকে এই তিন কেন্দ্রীয় সংস্থা সাফ জানাল তদন্ত চলাকালীন এই মামলা সম্পর্কিত কোনও তথ্য ফাঁস করা হয়নি তাদের তরফে। সুশান্ত মামলা সংক্রান্ত মিডিয়া ট্রায়াল নিয়ে বম্বে হাইকোর্টে চলা এক জনস্বার্থ মামলার শুনানি চলাকালীন তিন সংস্থার তরফে অ্যাডিশন্যাল সলিসিটর জেনারেল অনিল সিং এ কথা জানান হাইকোর্টকে। মুম্বইয়ের বান্দ্রার কার্টার রোডের ফ্ল্যাটে গত ১৪ জুন উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ। 

সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমের কভারেজের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলে হাইকোর্টে পিটিশন দাখিল করেছিলেন প্রাক্তম পুলিশকর্মীরা। সেখানে বলা হয় মামলা সংক্রান্ত সংবেদনশীল ও গুরুত্বপূর্ন তথ্য সম্প্রচার করা হচ্ছে। সেখানে প্রশ্ন তোলা হয় এই ধরণের তথ্য কোথা থেকে ফাঁস হচ্ছে, কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয় তদন্তকারী সংস্থাগুলিকে। নিজেদের তরফে পেশ করা হলফনামায় সিবিআই,এনসিবি, ইডি জানিয়েছে-'আমরা আমাদের দায়িত্ব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল এবং কোনও সংস্থার তরফে তদন্ত চলাকালীন কোন তথ্য ফাঁস করার কোনও প্রশ্নই উঠে না'। 

সুশান্তের মৃত্যু মামলার তদন্ত করছে সিবিআই, অন্যদিকে সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত আর্থিক তছরুপের মামলার দায়ভার রয়েছে ইডির উপর। পাশাপাশি প্রয়াত অভিনেতার মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত মাদককাণ্ডের তদন্ত চালাচ্ছি এনসিবি। তিন মামলাতেই অভিযোগের কাঠগড়ায় রয়েছেন প্রয়াত অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী ও তাঁর পরিবার। তদন্ত জারি হয়েছে। 

জাস্টিস দীপঙ্কর দত্ত ও জাস্টিস জি এল কুলকার্নির বেঞ্চে এই মামলার শুনানি চলছিল। এই জনস্বার্থ মামলায় আবেদনকারী প্রাক্তন পুলিশকর্মীদের তরফে দাবি করা হয় এই মামলার কভারেজের বিষয়ে সংযম বজায় রাখুক মিডিয়া। 

মিডিয়া সেই সময় নিরপেক্ষ ছিল (অতীতে)। এখন সংবাদমাধ্যম ভীষণরমকভাবে মেরুকেন্দ্রিক… এটা কোনও নিয়মকানুনের প্রশ্ন নয়, প্রশ্নটা হল সমতা বজায় রাখার। মানুষ ভুলে যাচ্ছে কোথায় দাঁড়ি টানা উচিত। সীমার মধ্যে থেকে সব কাজ করা উচিত', মামলার শুনানি চলাকালীন নিজেদের পর্যবেক্ষণ জানায় আদালত। আগামী সপ্তাহে এই মামলা শুনানি জারি থাকবে। 

বন্ধ করুন