বাড়ি > বায়োস্কোপ > আগামী সপ্তাহে সিবিআইকে সুশান্ত মামলার চূড়ান্ত মতামত জানাবে AIIMS ফরেনসিক টিম
সুশান্ত সিং রাজপুত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
সুশান্ত সিং রাজপুত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

আগামী সপ্তাহে সিবিআইকে সুশান্ত মামলার চূড়ান্ত মতামত জানাবে AIIMS ফরেনসিক টিম

  • সুশান্তের ফরেসনিক রিপোর্টে কোনও রকম সন্দেহের অবকাশ থাকবে না, আত্মহত্যা নাকি খুন-তা স্পষ্টভাবেই জানানো হবে, এদিন বললেন এইমসের ফরেনসিক বিভাগীয় প্রধান সুধীর গুপ্তা। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর কেটে গিয়েছে তিন মাস। এই মামলাকে মুম্বই পুলিশ নিছক আত্মহত্যার ঘটনা বলে উড়িয়ে দিলেও সেই তত্ত্ব মেনে নিতে চায়নি সুশান্ত ভক্তরা। আপতত সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত তিনটি পৃথক মামলার তদন্ত চালাচ্ছে সিবিআই, ইডি এবং নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো।

 ১৪ জুন সুশান্তের বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় অভিনেতার দেহ। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে এই মামলার তদন্তভার হাতে পাওয়ার পর গত ২০ অগস্ট মুম্বইয়ে পৌঁছেছিল সিবিআইয়ের ১৫ সদস্যের একটি দল। এরপর দফায় দফায় এই মামলার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের জেরা করেছেন সিবিআইয়ের আধিকারিকরা। এই মামলায় সিবিআইয়ের আধিকারিকদের কাছে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হিসাবে দেখা দিয়েছে- সুশান্তের মৃত্যুর মামলা সুইসাইড নাকি হোমিসাইড? এই রহস্যজট খুলতে এইমসের ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের সাহায্য চেয়েছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। 

বৃহস্পতিবার এইমসের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডাঃ সুধীর গুপ্তা সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানান, ‘মেডিক্যাল বোর্ড আগামী সপ্তাহে সিবিআইকে তাঁদের চূড়ান্ত মতামতা জানাবে সুশান্ত মামলায়। আমি আশা করছি এই রিপোর্ট ‘নিঃসন্দিগ্ধ’ (conclusive) হবে। রিপোর্ট সম্পর্কে কিছু শেয়ার করা সম্ভবপর নয়,কারণ বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন’। অর্থাত্ সুধীর গুপ্তা এদিন স্পষ্টতই জানিয়ে দিলেন সুশান্তের ফরেনসিক রিপোর্টে কোনও সন্দেহের অবকাশ থাকবে না। সুশান্ত আত্মহত্যা করেছেন নাকি খুন করা হয়েছে তাঁকে, তা জানিয়ে দেবেন এইএমসের ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। 

সূত্রের খবর, আজকেই সিবিআইয়ের তদন্তকারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবে এইমসের চার সদস্যের বিশেষ দল। গতকালই মুম্বই থেকে সিবিআইয়ের একটি টিম রওনা দিয়েছে দিল্লির উদ্দেশ্যে। সুশান্তের ভিসেরা রিপোর্ট তৈরি হয়ে গিয়েছে। আজ সেটি সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেবে এইমসের ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা।

সুশান্ত মামলার এক ফরেনসিক চিকিত্সক আগেই জানিয়েছিলেন ১৭ সেপ্টেম্বর সিবিআইয়ের টিমের সঙ্গে বৈঠকের পর ২০ সেপ্টেম্বরের (আসন্ন রবিবার) মধ্যে চূড়ান্ত ফরেনসিক রিপোর্ট ও মতামত জমা দেওয়া হবে। 

সুশান্তের ভিসেরা রিপোর্টে পরীক্ষা করা হয়েছে অ্যাম্ফিটামিনস, ক্যানাবিস, ওপিয়ডস, কোকেন, হিরোইনের মতো নিষিদ্ধ মাদকের উপস্থিতি সুশান্তের শরীরে ছিল কিনা।ভিসেরা হল শরীরের ভিতরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের নমুনা যা মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখতে পরীক্ষা করে থাকেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। শরীরের ভিতর কোনও বিষ কিংবা ড্রাগস ছিল কিনা তা নিশ্চিত করে এই রিপোর্ট।

মুম্বই পুলিশের তরফে জানানো হয়েছিল সুশান্তের ময়না তদন্তের চূড়ান্ত রিপোর্টে কুপার হাসপাতালের পাঁচ চিকিত্সক জানিয়েছেন ‘ঝুলে পড়বার কারণে শ্বাসরোধ হয়ে মৃত্যু’ হয়েছে অভিনেতার। তবে এই রিপোর্টে উল্লেখ ছিল না মৃত্যুর সময়। তাছাড়া সুশান্তের গলার 'লিগেচার মার্ক' নিয়েও স্পষ্ট করে কিছু উল্লেখ ছিল না। সেই সব খতিয়ে দেখতে এইমসের ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে কুপার হাসপাতালের চিকিত্সকদের। এছাড়া সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটে কমপক্ষে তিনবার ক্রাইম সিনের পুনঃনির্মাণ করেছে সিবিআই। যা সাধারণ বিরল। সিবিআইয়ের পাশাপাশি এইএমসের ফরেনসিক টিমও সুশান্তে কার্টার রোডের অ্যাপার্টমেন্ট খতিয়ে দেখেছে। এখন এইএমসের চিকিত্সকদের ফরেনসিক রিপোর্ট ও মেডিকো -লিগাল (medico-legal) ওপিনিয়নের দিকে তাকিয়ে সিবিআই ও সুশান্ত ভক্তরা। 

বন্ধ করুন