বাড়ি > বায়োস্কোপ > দেব আনন্দকে নকল করছেন সুশান্ত,ভাইরাল ছিছোড়ের মেক আপ রুমের ভিডিয়ো
ছিছোড়ের মেক আপ রুমে সুশান্তের মস্তি (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
ছিছোড়ের মেক আপ রুমে সুশান্তের মস্তি (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 

দেব আনন্দকে নকল করছেন সুশান্ত,ভাইরাল ছিছোড়ের মেক আপ রুমের ভিডিয়ো

  • মেক-আপ আর্টিস্টরা ব্যস্ত হেয়ার মাস্ক তৈরিতে,কিন্তু পল ভর কে লিয়ে কই হামে গানে ঠোঁট মেলাতে ব্যস্ত সুশান্ত।

সুশান্ত সিং রাজপুত আমাদের ছেড়ে অকালে চলে গিয়েছেন ঠিকই,তবে তাঁর সুখস্মৃতি আঁকড়েই ভালো থাকবার চেষ্টায় রয়েছেন তাঁর ফ্যানেরা। সুশান্তের মৃত্যুর পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল তারকার একাধিক ভিডিয়ো,যার মধ্যে অন্যতম ছিছোড়ের মেক-আপ রুমের একটি মজাদার ভিডিয়ো। ছবির সেটে সহকর্মী ও সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে দুষ্টুমি করতে কতখানি ভালোবাসতেন সুশান্ত তা ভালোই বুঝিয়ে দিচ্ছে এই ভিডিয়ো। 

পরিচালক নীতিশ তিওয়ারির ছিছোড়ে ছবিতে দুটি লুকে পাওয়া গিয়েছে সুশান্তকে। একটি লুকে কলেজ স্টুডেন্ট হিসাবে,অন্যটিতে একজন মাঝবয়স্ক ভদ্রলোক,এক কিশোরের পিতার ভূমিকায়।ছিছোড়ের মেক-আপ রুমের এই ভিডিয়োটি দেখেই বোঝা যাচ্ছে বয়স্ক লুকের জন্য তৈরি হচ্ছেন সুশান্ত। মেক-আপ আর্টিস্টরা ব্যস্ত হেয়ার মাস্ক তৈরিতে, পরচুলা পড়ানোর জন্য মাথায় আঠা লাগাচ্ছেন তাঁরা,অন্যদিকে সুশান্ত ব্যস্ত দেবানন্দকে নকল করতে। চেয়ারে বসে বসেই পল ভর কে লিয়ে কই হামে গানের স্টেপ অনুকরণ করতে দেখা গেল সুশান্তকে। দেবানন্দের জনি মেরা নাম ছবির গান এটি,গেয়েছিলেন কিশোর কুমার। সুশান্তের এই প্রণোচ্ছ্বল ভিডিয়ো দেখে মন কাঁদছে তাঁর ভক্তদের।

এই ছবিতে সুশান্তের কো-স্টার হিসাবে দেখা মিলেছিল শ্রদ্ধা কাপুর,তাহির রাজ ভসিন,বরুণ শর্মাদের। সুশান্তের কেরিয়ারের অন্যতম সফল ছবি ছিঁছোড়ে। প্রয়াত অভিনেতার বক্স অফিসে মুক্তি পাওয়া শেষ ছবি। এই ছবি দেশের বক্স অফিসে প্রায় ১৫৩ কোটি টাকার ব্যবসা করেছিল।  

দুদিন আগেই প্রয়াত অভিনেতাকে নিয়ে একটি দীর্ঘ ইনস্টা পোস্টে এক মর্মস্পর্শী বার্তা দেন শ্রদ্ধা। তিনি লেখেন, এই সত্যিটা মেনে নেওয়ার চেষ্টা করছি,ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইটাও চালিয়ে যাচ্ছি,খুব কঠিন। একটা বিরাট শূন্যতা..সুশান্ত…! প্রিয়তম সুস….! মানবতায় মোড়া,বুদ্ধিদীপ্ত, জীবন নিয়ে যাঁর মধ্যে ভরপুর জানবার ইচ্ছা, সবকিছুর মধ্যে একটা সৌন্দর্য খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা,সর্বত্র! নিজের ছন্দেই ও নাচত!

আমি সবসময় সেটে ওর দিকে তাকিয়ে থাকতাম,ভাবতাম আমাদের পরের আলোচনা কোন চিত্তাকর্ষক বিষয় নিয়ে হবে।নিজের কাজের জান প্রাণ ঢেলে দেওয়া শুধু একজন দুর্দান্ত সহ অভিনেতা নয়, ও মানুষ হিসাবেও ততটাই অসধারণ,অনন্য। ও মানুষের জন্য ভাবত,তাদের সুখী দেখতে চাইত। ওর ও মায়াবী হাসি, আমাদের ওই আলোচনাগুলো যেগুলো শ্যুটিংয়ের সময় চলেছে মহাবিশ্ব নিয়ে, বিভিন্ন দর্শন নিয়ে,সেই মুহূর্তগুলো আমরা একসঙ্গে কাটিয়েছে সেগুলো সত্যি ম্যাজিক্যাল, বিস্ময়মাখা'!

বন্ধ করুন