বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত : মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ বিহার সরকারের
১৪ জুন  বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ (PTI)
১৪ জুন  বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ (PTI)

সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত : মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ বিহার সরকারের

উদ্ধব ঠাকরে ও নীতিশ কুমার সরকার এবার সরাসরি জড়াল বাকযুদ্ধে। মুম্বই পুলিশ তদন্তে সাহায্য করছে না বিহার পুলিশকে, অভিযোগ বিহার সরকারের। 

বিহারের ভূমিপুত্র সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্ত নিয়ে এবার বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ল মহারাষ্ট্র ও বিহার সরকার। সুশান্তের মৃত্যুর পর পেরিয়ে গিয়েছে দেড় মাস। তবে গত কয়েকদিনে এই মৃত্যু তদন্তের অভিমুখ বেশ খানিকটা পাল্টে গিয়েছে। মুম্বই পুলিশের পাশাপাশি এখন এই মামলার তদন্ত করছে পাটনা পুলিশও। কারণ গত শনিবারই সুশান্তের বাবা কেকে সিং পাটনার রাজীব নগর থানায় রিয়া চক্রবর্তী, তাঁর পুরো পরিবার ও ম্যানেজারের বিরুদ্ধে সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়াসহ একাধিক ধারায় এফআইআর দায়ের করেছেন।

কিন্তু এই পৃথক তদন্তকে ঘিরে নীতিশ কুমার সরকার ও উদ্ধব ঠাকরে সরকার এবার সারসারি বাকযুদ্ধ শুরু করে দিল। সূত্রের খবর চার সদস্যের বিহার পুলিশের দল গত রবিবার মুম্বই পৌঁছায়। তবে মঙ্গলবার পর্যন্ত এব্যাপারে নাকি কোনও তথ্য ছিল মুম্বই পুলিশের কাছে, অভিযোগ তাঁদের। 

বিহার পুলিশের তদন্তকারী অফিসাররা ইতিমধ্যেই মুম্বই পৌঁছে এই মামলায় সুশান্তের দিদি, পরিচারক, রাঁধুনি, বন্ধু অঙ্কিতা লোখান্ডে ও মহেশ শেট্টির বয়ান রেকর্ড করেছে। খতিয়ে দেখা হয়েছে অভিনেতার ব্যাঙ্ক স্টেটমেন্ট ও ট্রানজাকশনের নথিও। 

একদিকে মহারাষ্ট্র সরকার যখন দাবি করছে মুম্বই পুলিশ এই মামলার তদন্ত সঠিকভাবে করছে এবং এই মামলা কোনওভাবেই সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া হবে না।বুধবার রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ বলেন, মুম্বই পুলিশ এই মামলার তদন্ত করতে সম্পূর্নরূপে সক্ষম,তাই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে এই মামলার দায়িত্ব তুলে দেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই'। 

মুম্বই পুলিশ যে নিজেদের জুরিসডিকশনের ( আইনগত অধিকারক্ষেত্র) মামলায় অন্য রাজ্যের পুলিশের তথাকথিত 'নাক গলানো' নিয়ে খুশি নয় সেই ছবিটা স্পষ্ট গিয়েছে ইতিমধ্যেই। বৃহস্পতিবার অটোয় করে তদন্তের স্বার্থে মুম্বইয়ের এ প্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে ছুটে বেড়াতে দেখা গিয়েছে পাটনা পুলিশের তদন্তকারী অফিসারদের।

 শুক্রবার সংবাদ সংস্থা এএনআইকে বিহারের প্রিন্সিপাল অ্যাডিশ্যানাল অ্যাডভোকেট জেনারেল ললিত কিশোর বলেন, ‘যখন কোনও রাজ্যের পুলিশ অপর রাজ্যে যায় তদন্তের জন্য তখন সেই নির্দিষ্ট সরকার এবং আধিকারিকরা সহযোগিতা করে। এই মামলায় খুব দুর্ভাগ্যজনক যে মুম্বই পুলিশ সহযোগিতা করছে না’। বৃহস্পতিবার সুশান্তের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে সুপ্রিম কোর্টে রিয়ার পিটিশনের বিরুদ্ধে পাল্টা ক্যাভিয়েট দাখিল করেছে নীতিশ কুমার সরকার। 

দেশের সর্বোচ্চ আলাদতে এই মামলায় বিহার সরকারের প্রতিনিত্ব করছেন প্রাক্তন অ্যাটোর্নি জেনারেল মুকুল রোহাতগি। কেন সুশান্তের মৃত্যু মুম্বইতে ঘটার পরেও এফআইআর পাটনায় দায়ের হয়েছে, কী কারণে এই সিদ্ধান্ত বিহার সরকারের এবং কেন বিহার পুলিশের টিম মুম্বইতে মামলার তদন্ত করছে-সেই সব প্রশ্নের উত্তর আদালতকে জানাবেন মুকুল রোহাতগি। 

বন্ধ করুন