বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের বাবাকে নিয়ে শিবসেনা নেতার কুরুচিকর মন্তব্য, ক্ষমা না চাইলে আইনি ব্যবস্থা নেবে পরিবার
কেকে সিংয়ের সঙ্গে সুশান্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
কেকে সিংয়ের সঙ্গে সুশান্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

সুশান্তের বাবাকে নিয়ে শিবসেনা নেতার কুরুচিকর মন্তব্য, ক্ষমা না চাইলে আইনি ব্যবস্থা নেবে পরিবার

  • প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে সঞ্জয় রাউতের বিরুদ্ধে আইনি পথে ব্যবস্থা নেবে পরিবার, জানালেন সুশান্তের দাদা নীরজ সিং বাবলু।

সদ্য ছেলেকে হারিয়েছেন কেকে সিং। ৭৪ বছরের এই পুত্রহারা মানুষটাকে নিয়ে  শিবসেনা নেতা তথা সাংসদ সঞ্জয় রাউতের কুরুচিকর মন্তব্য ক্ষুদ্ধ পরিবার। সঞ্জয় রাউতকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন সুশান্তেক খুড়তুতো ভাই নীরজ বাবলু সিং। তা না হলে আইনি ব্যবস্থা নেবে পরিবার স্পষ্ট জানিয়েছেন তিনি। 

রবিবার শিবসেনার মুখপত্র সামনায় সুশান্তের পরিবারকে নিয়ে বেশকিছু 'অসম্মানজনক' এবং ভুয়ো মন্তব্য করেন শিবসেনার নেতা সঞ্জয় রাউত। শিবসেনার মুখপত্র সামনার সহকারী সম্পাদক পদে রয়েছেন রাউত। তিনি বলেন, বাবার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক মোটেই ভালো ছিল না। ‘এটা সত্যি, কতবার পটনা গিয়ে সুশান্ত তাঁর বাবার সঙ্গে দেখা করেছেন? আমার পূর্ণ সহমর্মিতা রয়েছে ওঁনার বাবার সঙ্গে’। এখানেই থেমে থাকেননি রাউত। তিনি বলেন, সুশান্তের বাবার দ্বিতীয় বিয়ের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেনি সুশান্ত। শুধু তাই নয় সুশান্তের প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা লোখান্ডেকেও আক্রমণ করেন সঞ্জয় রাউত। বলেন,কেন অঙ্কিতা ব্রেক-আপ করেছিলেন সুশান্তের সঙ্গে সেটাও তদন্তের অংশ হওয়া উচিত। একটা আত্মহত্যার সঙ্গে রাজনীতিকে জুড়ে দেওয়া কোনওদিনই ঠিক নয়।

কেকে সিংয়ের ভাইপো নীরজ স্পষ্ট জানান, বাবা-ছেলের মাঝে খারাপ সম্পর্ক ছিল এটা সম্পূর্ন ভুল কথা।পাশাপাশি কেকে সিংয়ের দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে সঞ্জয় রাউত যে কথা বলেছেন তা ভিত্তিহীন এবং অসম্মানজনক। তাই প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে আইনি পথে হাঁটবে পরিবার। কোনওদিনই দ্বিতীয় বিয়ে করেননি কেকে সিং। 

সুশান্তের সঙ্গে তাঁর বাবার সম্পর্ক নিয়ে শিবসেনার তরফে এই ধরণের কটাক্ষ উড়ে আসায় হতবাক সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী বিকাশ সিং। এএনআইকে তিনি বলেন, আমি অত্যন্ত হতাশ যে শিবসেনা এই ধরণের মন্তব্য করায়। শিবসেনা কে? তাঁরা কি ব্যক্তিগতভাবে সুশান্ত কিংবা তাঁর বাবাকে ব্যক্তিগতভাবে চেনেন?  তাহলে কীভাবে বললেন তাঁদের পারিবারিক সম্পর্ক ঠিক ছিল না। 

 সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে মুম্বই পুলিশের ভূমিকায় শুরু থেকেই রয়েছে প্রশ্নের মুখে। সুপ্রিম কোর্টেও এই মামলার সিবিআই তদন্তের আপত্তি জানিয়েছে উদ্ধব ঠাকরে সরকার। সেই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ক্ষোভের মুখে মহারাষ্ট্র সরকার। এর মাঝে রবিবার শিবসেনার মুখপত্র সামনায় সুশান্তের পরিবারকে নিয়ে সঞ্জয় রাউতের এহেন মন্তব্যে বিতর্কের আঁচ আরও খানিকটা বেড়ে গিয়েছে।  ২০০২ সালে মৃত্যু হয় সুশান্তের মা ঊষাদেবীর। তারপর থেকে একটাই নিজের পাঁচ সন্তানের দায়িত্ব সামনেছেন কেকে সিং।

সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত রাতারাতি সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া এবং সেই সুপারিশে মুহূর্তেই কেন্দ্রে সিলমোহর পুরোটাই নাকি মহারাষ্ট্রের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন সঞ্জয় রাউত। সামনায় তিনি লেখেন, যদি কেউ আমাদের দেশের কোনও বিষয়কে রাজনৈতিক রঙ দিতে চায়, তাহলে সবই সম্ভব। মনে হচ্ছে সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে চিত্রনাট্য লেখা হয়ে গিয়েছে। আর পর্দার আড়ালে যা হচ্ছে সবটাই মহারাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র'।

রাজ্যের মন্ত্রী, তথা শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে পুত্র আদিত্য ঠাকরের পক্ষ সমর্থন করে এদিন রাজ্যসভার এই সদস্য লেখেন- দিনো মরিয়ার বাড়ির একটি পার্টির সঙ্গে রাজপুতের মৃত্যুর যোগসূত্র স্থাপনের চেষ্টা চলছে।' মরিয়া (দিনো) এবং আরও অনেকে আদিত্য ঠাকরের বন্ধু। সেই কারণেই তাঁদের টার্গেট করা হচ্ছে, যা খুবই দুর্ভাগ্যজনক'।

বন্ধ করুন