বাড়ি > বায়োস্কোপ > রিয়ার পর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ সুশান্তের বাবা, দাখিল করলেন ক্যাভিয়েট
রিয়ার পিটিশনের পাল্টা ক্যাভিয়েট দায়ের করল সুশান্তের পরিবার 
রিয়ার পিটিশনের পাল্টা ক্যাভিয়েট দায়ের করল সুশান্তের পরিবার 

রিয়ার পর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ সুশান্তের বাবা, দাখিল করলেন ক্যাভিয়েট

  • মুম্বই পুলিশের কেউ রিয়াকে সাহায্য করছে, বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী। 
  • রিয়ার পিটিশনের একতরফা শুনানি আটকাতে সর্বোচ্চ আদালতে দাখিল ক্যাভিয়েট। 

নিজের আগের অবস্থান থেকে ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে বুধবারই দেশের সর্বোচ্চ আদালতে আর্জি জানান অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত এই নায়িকা সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন দায়ের করেছেন যাতে পাটনা পুলিশের থেকে মুম্বই পুলিশের হাতে এই মামলার তদন্তভার স্থানান্তরিত করা হয়। যদিও দু সপ্তাহ আগেই সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত যাতে সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া হয় সেই নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ'র উদ্দেশে টুইট করেছিলেন রিয়া চক্রবর্তী।

সুশান্তের বাবার দায়ের করা এফআইআরের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই মুম্বই পৌঁছেছে বিহার পুলিশের চার সদস্যের একটি তদন্তকারী দল। তাঁদের প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে রিয়াকে,রয়েছে গ্রেফতারির সম্ভাবনাও। তাই তড়িঘড়ি আদালতের দ্বারস্থ সুশান্তের গার্লফ্রেন্ড।  রিপাবলিক টিভির রিপোর্ট অনুযায়ী, সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত যাতে সুস্থভাবে হতে পারে তাঁর জন্য সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিল করেছেন সুশান্তের বাবা।এক তরফা শুনানি আটকাতেই সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিল করেছে প্রয়াত অভিনেতার পরিবার। রিয়ার পিটিশন শোনার আগে যাতে সুশান্তের পরিবারের পক্ষ শোনে কোর্ট, সেকথা বলা হয়েছে ক্যাভিয়েটে।  

ইতিমধ্যেই বিহার পুলিশের তদন্তকারী দল সুশান্তের দিদি মিতু সিং এবং তাঁর কুকের বয়ান নতুন করে রেকর্ড করেছে। সূত্রের খবর তাঁদের বয়ানে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে পাটনা পুলিশ।

সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী বিকাশ সিং সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানান, যদি রিয়া সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন, তাহলে ওঁনার সিবিআই তদন্ত চেয়ে আবেদন করা উচিত ছিল।এফআইআর পাটনায় দায়ের করা হয়েছে। তাহলে উনি কেন কেস মুম্বইতে ট্রান্সফার করতে বলছেন? এর থেকে বেশি কী প্রমাণ চাই যে মুম্বই পুলিশের কেউ ওঁনাকে সাহায্য করছে'।

সুশান্তের বাবা কেকে সিং রিয়া ও অভিনেত্রীর পুরো পরিবার এবং ম্যানেজাদের বিরুদ্ধে চক্রান্ত, সুশান্তের সঙ্গে প্রতারণা (আর্থিক ও মানসিক) এবং তাঁকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার মতো অভিযোগ এনেছেন কেকে সিং। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬ (আত্মহত্যায় প্ররোচনা), ৩৪১,৩৪২,৩৮০,৪০৬, ৪২০-ধারায় পাটনার রাজীব নগর থানায় অভিযোগ জানিয়েছে সুশান্তের পরিবার। সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত মুম্বই পুলিশ করলেও কেন পাটনায় এফআইআর দায়ের করা হল সেই নিয়েই আপত্তি জানিয়েছেন রিয়া। পাশাপাশি অন্তর্বর্তীকালীন জামিনেরও আবেদন জানিয়েও আদালতের দারস্থ হয়েছেন রিয়া।

বন্ধ করুন