বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > কেবিসি-তে ৫ কোটি পাওয়ার পর মদ-সিগারেটের নেশায় ডুবেছিলেন সুনীল, এখন কী করছেন?
কেবিসি-তে প্রথম ৫ কোটি পেয়েছিলেন সুশীল কুমার। 

কেবিসি-তে ৫ কোটি পাওয়ার পর মদ-সিগারেটের নেশায় ডুবেছিলেন সুনীল, এখন কী করছেন?

  • কেবিসি ৫-এ অংশগ্রহন করেছিলেন সুশীল। তিনিই প্রথম পান ৫ কোটি টাকা। জানুন এখন কী করছে বিহারের এই বাসিন্দা। 

টিভির জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’ অনেক প্রতিযোগীর জীবন বদলে দিয়েছে রাতারাতি। অনেককেই পৌঁছে দিয়েছে স্বপ্ন পূরণের দোরগোড়ায়। কেবিসি ৫-এর অংশগ্রহনকারী সুশীল কুমার যাদের মধ্যে অন্যতম। সুশীল সে সময় সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। শোতে তিনি জিততে পেরেছিলেন ৫ কোটি টাকা। তিনিই প্রথম প্রতিযোগী যিনি জিতেছিলেন ৫ কোটি টাকা। এরপর সুশীলকে নিয়ে নানা খবর সামনে এসেছে। 

গত বছর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে সুশীল নিজেই জানিয়েছিলেন, বিপুল পরিমাণ অর্থের নেশায় বুঁদ হয়ে মদ-সিগারেটে ডুবে গিয়েছিলেন। তিনি জানান প্রতারকরা তাঁকে ঠকিয়ে প্রচুর টাকা হাত করে নেয়। এমনকি নিজের স্ত্রীর সঙ্গে পর্যন্ত সম্পর্কে চিড় ধরে যায় সুশীলের। তাঁর সাজানো জীবনটাই ছারখার হয়ে যায়।

শুধু তাই নয়, বিহারের চম্পারনের বাসিন্দা সুনীলকে এরপর ডাকা হতে থাকে এলাকারাই নানা অনুষ্ঠানে। সঙ্গে মিডিয়াও তাঁর সাক্ষাৎকার নেওয়ার জন্য রোজ হাজির হতে থাকে বাড়িতে। আর এসব করতে গিয়েই পড়াশোনা শিকেয় ওঠে। সুশীল আরও জানান, মিডিয়ার কাছে নিজেকে বেকার দেখাতে চাননি সুনীল। তাই কেবিসি থেকে পাওয়া টাকা নানা জায়গায় বিনিয়োগ করেন। যার বেশিরভাগটাই ডুবে যায়। নানা সংস্থাকে প্রতি মাসে আর্থিক অনুদান দিতে থাকে মোটা অঙ্কের। আর এভাবে টাকা খরচ করায় সমস্যা তৈরি হয় স্ত্রী-র সঙ্গে। নিয়মিত ঝগড়ায় ডিভোর্স পর্যন্ত দিতে হয়। এরপরই নেশার কবলে পড়েন। মাঝে মুম্বই এসেছিলেন সিনেমা বানানোর জন্য, কিন্তু সেখানেও সফল না হয়ে ফিরে যান নিজের দেশে।

 এখন এসবের থেকে নিজেকে দূরে রেখেছেন সুনীল। গ্রামেই শিক্ষাকতার কাজ করছেন। সঙ্গে চম্পারনের সমাজ সংস্কারমূলক নানা কাজের সঙ্গেও তিনি যুক্ত। প্রসঙ্গত, কেবিসি ১৪ শুরু হচ্ছে খুব জলদি। যদিও চ্যানেলের তরফ থেকে এখনও দিনক্ষণ সামনে আনা হয়নি। 

বন্ধ করুন