বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Lalit-Sushmita: ‘BCCI-এর কোনও ভাঁড় পাশে ছিল না’, সুস্মিতার সঙ্গে প্রেম নিয়ে কটাক্ষ,জবাব ললিতের
ললিত-বিস্ফোরণ

Lalit-Sushmita: ‘BCCI-এর কোনও ভাঁড় পাশে ছিল না’, সুস্মিতার সঙ্গে প্রেম নিয়ে কটাক্ষ,জবাব ললিতের

  • সুস্মিতার সঙ্গে প্রেম সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে আনবার পর থেকেই লাগাতার ট্রোলড, এবার বিস্ফোরক ললিত মোদী। 

মিডিয়া থেকে সোশ্যাল মিডিয়া, গত চারদিনে সর্বত্র চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে ললিত-সুস্মিতার প্রেম। আর্থিক তছরুপের দায়ে অভিযুক্ত ললিত মোদীর প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন প্রাক্তন ব্রহ্মাণ্ড সুন্দরী! এই সত্যিটা অনেকেরই হজম হচ্ছে না। মলদ্বীপে ললিতের বক্ষলগ্না সুস্মিতাকে দেখে চোখ গোল গোল নেটপাড়ার। বৃহস্পতিবার টুইটারে সুস্মিতাকে ‘স্ত্রী’ হিসাবে উল্লেখ করে বোমা ফাটিয়েছিলেন ললিত, পরে সাফাই দিয়ে জানান না বিয়ে নয়, পরস্পরকে ডেট করছেন তাঁরা। তবে সাফাই টুইটে একটা ‘ছোট্ট ভুল’ করে বসেন ললিত মোদী। এরজেরে নেটদুনিয়ায় খিল্লির পাত্র হন এই বিজনেস টাইকুন। সুস্মিতার ভ্যারিফায়েড অ্যাকাউন্টের জায়গায় নায়িকার প্যারোডি অ্যাকাউন্টকে ট্যাগ করে বসেন প্রেমিক। স্বভাবতই ট্রোলাররা ললিত মোদীর ক্লাস নিতে ছাড়েননি।

এখানেই শেষ নয়, ললিত মোদীকে ‘বুড়ো’ বলেও চলে কটাক্ষ। ‘বাঁদরের গলায় মুক্তোর হার’- ললিত-সুস্মিতা জুটিকে এই চোখেই দেখেছে অনেকে। এই সব কটাক্ষ নিয়ে এবার জবাব দিলেন প্রাক্তন আইপিএল কমিশানার। একগুচ্ছ পুরোনো ছবি পোস্ট করে ইনস্টাগ্রামে দীর্ঘ পোস্ট লেখেন ললিত। তাঁর প্রশ্ন, ভুলবশত অন্য় অ্যাকাউন্টকে ট্যাগ করবার জন্য এতো ট্রোলিং কি যুক্তিযুক্ত?

এরপর ললিত মোদীর সংযোজন, 'আমরা কি এখনও মধ্যযুগে বাস করছি? যেখানে দু'জন মানুষ বন্ধু হতে পারে না! যদি দুজনের মধ্যে কেমেস্ট্রি থাকে, তাঁরা একে অপরের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করেন, সেক্ষেত্রে যে কোনও সময় জাদু হতে পারে…… আপনাদের জন্য আমার উপদেশ, নিজে বাঁচুন, অন্যকে বাঁচতে দিন। সত্যি খবর লিখুন, ট্রাম্পসুলভ ফেক নিউজ বা ভুয়ো সংবাদ নয়। যদি আপনারা না জানেন সেক্ষেত্রে আপনাদের জানিয়ে রাখি আমাকে ছেড়ে চলে যাওয়া ভালোবাসার মানুষটি, মিনাল- সে আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু ছিল ১২ বছর ধরে। যখন সে বিবাহিত ছিল তখনও, ও কোনওদিনই আমার মায়ের বন্ধু ছিল না। এই গসিপ ছড়িয়ে পড়েছে। এই ধরনের মানসিকতা সরিয়ে বেরিয়ে আসার সময় এসে গিয়েছে। কারুর উন্নতি দেখে খুশি হতে শিখুন, কেউ ভালো করলে আনন্দ পান'।

তাঁকে ‘পলাতক’ এবং ‘আর্থিক দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত’ বলার বিষয়টি নিয়েও মুখ খুলেছেন ললিত মোদী। তাঁর প্রশ্ন, পৃথিবীর কোন দেশের কোন আদালত বলেছে আমি দোষী? কেউ না'। পাশাপাশি তিনি দেশবাসীকে স্মরণ করিয়ে দেন তিনি এই দেশকে আইপিএল উপহার দিয়েছেন। যে টুর্নামেন্ট দেশকে একজোট করেছে, তরুণ ক্রিকেটারদের ভবিষ্যত গড়ার প্ল্যাটফর্ম দিয়েছে। নিজের দমে আজ আইপিএলকে বিশ্বের সবচেয়ে সফল স্পোটর্স টুর্নামেন্ট বানিয়েছেন তিনি, সদর্পে ঘোষণা তাঁর। তিনি বলেন, ‘আমি সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মাইনি। আমি কাউকে ঘুষ দিইও না আর কারুর থেকে ঘুষ নিই না। আমি টাকা এনেছি (ভারতে), কোনওদিন টাকা নিয়ে পালায়নি, জনতার টাকা নেওয়ার প্রশ্নই নেই।’

সব শেষে বিসিআই-কে একহাত নেন প্রাক্তন আইপিএল কমিশানার। তিনি লেখেন, '২০০৫ সালের ২৯শে নভেম্বর যখন আমি বিসিসিআই-তে যোগ দিই তখন BCCI-এর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ছিল মাত্র ৪০ কোটি টাকা। যখন আমাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল, তখন সেই ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স ছিল ৪৭ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা। কোনও ভাঁড় এসেছিল আমাকে সাহায্য করতে? কেউ আসেনি।'

এর আগে ভালোবেসে মিনালকে বিয়ে করেছিলেন ললিত। ২০১৯ সালে প্রয়াত হন মিনাল, তাঁদের দুই সন্তান রুচির এবং আলিয়া। অন্যদিকে রোমান শলের সঙ্গে এর আগে লিভ ইন সম্পর্কে ছিলেন সুস্মিতা সেন।

বন্ধ করুন