বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Shruti-Swarnendu: ‘ঠিক চড় মেরে দেব’, শ্রুতিকে সহ্য করতে পারত না স্বর্ণেন্দু, ফাঁস দিদি নম্বর ১-এ
দিদি নম্বর ১-এ শ্রুতি-স্বর্ণেন্দু।

Shruti-Swarnendu: ‘ঠিক চড় মেরে দেব’, শ্রুতিকে সহ্য করতে পারত না স্বর্ণেন্দু, ফাঁস দিদি নম্বর ১-এ

  • ‘কেন যে এই বুড়ো লোকটার সাথে প্রেম করে’, চ্যানেলের তরফে প্রোমো শেয়ার হতেই শ্রুতি-স্বর্ণেন্দুর জুটি নিয়ে সমালোচনা শুরু। 

‘দিদি নম্বর ১’-র হোলি স্পেশ্যাল এপিসোডে প্রেমিক পরিচালক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের সাথে এসেছিলেন শ্রুতি দাস। আর সেখান থেকেই জানা গেল কী করে একে-অপরকে অপছন্দ করা থেকে ভালোবাসায় রূপ নিল এই সম্পর্ক। শ্রুতি শো-তে ঢুকেই দিদি রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানিয়ে দেয় রং দেখলেই ভয় পায় স্বর্ণেন্দু। তাঁদের আড়াই বছরের সম্পর্কে সে এই প্রথম রং দিল শ্রুতিকে।

কীভাবে আলাপ দু'জনের জানতে চাওয়া হলে বেরিয়ে এল এই এত্ত বড় একটা ইতিহাস! স্বর্ণেন্দুর পরিচালিত ধারাবাহিক ‘ত্রিনয়নী’তে লিড হিরোইন ছিল শ্রুতি। ছবি দেখেই অপছন্দ হয়েছিল তাঁর। প্রশ্ন তুলেছিলেন, ‘এই মেয়েটা ছাড়া আর কাউকে পেলে না তোমরা’। তারপর নাকি সেটে মাঝে মাঝে এমন রাগ হত যে বাড়ি ফিরে মা-কে বলতেন ওই নায়িকাটা আমি দেখ কোনদিন চড় মেরে দেব। এদিকে শ্রুতি ভালোবেসে ফেলেন স্বর্ণেন্দুকে। সোজা গিয়ে দেয় ভালোবাসার প্রস্তাব। এমনকী, স্বর্ণেম্দুর মায়ের কাছেও চলে যায় ডাকাবুকো শ্রুতি। যাই হোক, প্রায় ৬ মাসের মাথায় উত্তর আসে, ‘আই লাভ ইউ টু’!

ভক্তদের মতোই রচনাও প্রশ্ন করলেন বিয়ে নিয়ে। আর তাতে উত্তর এল স্বর্ণেন্দুর থেকে। জানালেন এখনও বিয়ে নিয়ে ভাবেননি তাঁরা। তবে যেভাবে তাঁরা একে-অপরকে বোঝেন, একসাথে দুই পপরিবার মিলেমিশে থাকেন, তার সাথে বিয়ের কোনও আলাদা পার্থক্য নেই। শুধু বিয়ে হলে হয়তো একটা সামাজিক স্বীকৃতি আসবে, স্বর্ণেন্দুর বাড়িতে গিয়ে থাকবে শ্রুতি। আর কিছুই না!

 

বন্ধ করুন