বাড়ি > বায়োস্কোপ > আত্মহত্যা জনপ্রিয় অভিনেত্রীর, প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল পরিবারের
আত্মহত্যা করলেন মানাসু মমতা খ্যাত অভিনেত্রী
আত্মহত্যা করলেন মানাসু মমতা খ্যাত অভিনেত্রী

আত্মহত্যা জনপ্রিয় অভিনেত্রীর, প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল পরিবারের

  • গোপন ভিডিয়ো ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে প্রাক্তন প্রেমিক ব্ল্যাকমেল করছিল শ্রাবণীকে, অভিযোগ পরিবারের।
  • জুন মাসেই পুলিশে প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করা হয়েছিল পরিবারের তরফে। তবুও শেষরক্ষা হল না। 

এবার আত্মহননের পথ বেছে নিলেন তেলুগু টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রির পরিচিত নাম শ্রাবণী কোন্ডাপল্লী। মঙ্গলবার রাতে আত্মহত্যা করেন 'মানাসু মমতা' সিরিয়াল খ্যাত এই অভিনেত্রী। হায়দরাবাদে মধুরনগরে নিজের বাড়ি থেকেই ২৬ বছরের শ্রাবণীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে দীর্ঘক্ষণ ঘর থেকে বাইরে না আসার তাঁকে ডাকাডাকি শুরু করেন পরিবারের লোকজন। এরপর ঘরের দরজা ভেঙে তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পাওয়া যায়। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তবে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই ঘটনায় শ্রাবণীর পরিবারের অভিযোগ অভিনেত্রীর  প্রাক্তন প্রেমিক দেবরাজ রেড্ডির দিকে। তাঁর হাতে হেনস্থা ও নির্যাতনের শিকার হয়েই নাকি আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন শ্রাবণীর, দাবি পরিবারের। টিকটকের মাধ্যমেই নাকি দেবরাজের সঙ্গে পরিচয় শ্রাবণীর।

ওসিমানিয়া জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করা হবে শ্রাবণীর। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে হায়দরাবাদ পুলিশ। দেবরাজকে গ্রেফতার করতে পুলিশ অন্ধ্রপ্রদেশের কাকিনাডা শহরে একটি দল পাঠানো হয়েছে।

শ্রাবনীর ভাই শিবা সংবাদমাধ্যমকে জানান, দেবরাজ তাঁর দিদিকে ব্ল্যাকমেল করছিল টাকার জন্য, নায়িকার কিছু গোপন ভিডিয়ো ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছিল। সেই চাপের মুখে নতি স্বীকার করেই নাকি আত্মহত্যার মতো চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শ্রাবন্তী, দাবি শিবার। 

টিকটকের মাধ্যমে বন্ধুত্ব শুরু হওয়ার পর শ্রাবণীকে টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজের সুযোগ করে দেওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছিল দেবরাজ নামের ওই ব্যক্তি দাবি শ্রাবণীর পরিবারের। অন্ধ্রপ্রদেশের পূর্ব গোদাবরী জেলার বাসিন্দা দেবরাজ। অল্প সময়েই নাকি দুজনের বন্ধুত্ব জমে উঠেছিল এবং তা প্রেমে পরিণত হতে সময় লাগেনি। তবে শ্রাবণী জানতে পারেন এইভাবে আগেও টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রির বেশকিছু নায়িকার সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতিয়েছেন দেবরাজ। এরপরই নাকি সম্পর্ক ভেঙে দেন শ্রাবণী।

আরএস নগর সার্কেল ইন্সপেক্টর নরসিমা রেড্ডি বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে কয়েকমাস আগেও পুলিশের কাছে শ্রাবণীর পরিবারের তরফে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। শ্রাবণীকে বিয়ের জন্য জোর করছিলেন দেবরাজ বলে অভিযোগ করা হয়েছিল।জুন মাসেই গ্রেফতার হয়েছিলেন দেবরাজ। তবে এই অভিযোগে হেনস্তা বা ব্ল্যাকমেলের কথা বলা হয়নি। 

বন্ধ করুন