বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রানা লিখলেন, ‘সত্যিটা জানা উচিত’! এতে অভিষেক-প্রসেনজিৎ বিবাদের ইঙ্গিত রয়েছে কি

রানা লিখলেন, ‘সত্যিটা জানা উচিত’! এতে অভিষেক-প্রসেনজিৎ বিবাদের ইঙ্গিত রয়েছে কি

অভিষেক চট্টোপাধ্যায়-রানা সরকার

‘এক ‘দাদা’ আর এক ‘দিদি’ জোট বেঁধে আমায় ছবি থেকে বাদ দিয়েছে’, পুরনো এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন অভিষেক। সব মিলিয়ে অভিনেতার মৃত্যুর পর এই প্রসঙ্গ আবার ফিরে এসেছে।

বৃহস্পতিবার সকালেই খবর আসে, শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। তারপর থেকেই নেটমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে অভিনেতার পুরনো এক সাক্ষাৎকার। সেখানে অভিষেক বলছেন, ইন্ডাস্ট্রির ‘টপ নায়ক’ আর ‘টপ নায়িকা’র ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিলেন তিনি। তাই বাদ পড়তে হয় একের পর এক ছবি থেকে।

নাম না করলেও তাঁর ইঙ্গিত থেকে নাকি স্পষ্ট, তিনি সেদিন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় আর ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের দিকেই আঙুল তুলেছিলেন। এরপরই দীর্ঘ সময় বড়পর্দা থেকে দূরে ছিলেন অভিষেক। একটা সময় পর ফিরে এসেছিলেন ছোটপর্দায়। বড়পর্দার পাশাপাশি ছোটপর্দাতেও সমান জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন তিনি। কিন্তু অভিনেতার মৃত্যুর পর ফের একই প্রসঙ্গে ফিরে এসেছে।

অভিষেকের প্রয়াণের পর এ বিষয় প্রযোজক রানা সরকার বলেছেন, ‘আজ অন্তত সত্যি কথাটা জানা উচিত... ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির গ্ল্যামার আর ফ্ল্যাশ লাইটের ঝলকানির আড়ালে কত প্রতিভা হারিয়ে যায়, সমপরিমান কুম্ভীরাশ্রু ঝরে... এই নোংরামির রূপ সবার জানা উচিত; এই দুনিয়া থেকে চলে গিয়ে হয়তো শান্তি পাবে মিঠুদা... শান্তিতে ঘুমান আপনি, আমরা বাকি লড়াইটা লড়ে নেবো...।’ অনেকেরই ধারণা, রানা সরকারও টলিউডের সেই সব মানুষকে লক্ষ্য করেই এই পোস্ট করেছেন, যাঁদের কারণে অভিষেকের মতো আরও অনেক শিল্পীকে জনপ্রিয় অবস্থায় থাকতে থাকতেই সরে যেতে হয় চলচ্চিত্র জগত থেকে। রানার এই তাঁর পোস্টে মন্তব্য রেখেছেন অজস্র মানুষ। যদিও পরিচালক 

প্রসঙ্গত, অতীতে প্রসেনজিৎ আর অভিষেকের অত্যন্ত সুসম্পর্ক ছিল। বহু ছবিতে দুই তারকা একসঙ্গে কাজ করেছেন। পরস্পরের পারবিবারিক অনুষ্ঠানেও হাজির হতেন বলেই শোনা যায়। কিন্তু পরে এই সম্পর্কে ফাটল ধরে। তবে অভিষেক নাম না করে বিভিন্ন অভিযোগ তুলেছিলেন প্রসেনজিৎ এবং ঋতুপর্ণার বিরুদ্ধেও। যদিও এই অভিযোগের কোনও জবাব কখনও দেননি প্রসেনজিৎ। তবে অভিনেতার মৃত্যুর পর অভিষেককে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন প্রসেনজিৎ

 

বন্ধ করুন