বাড়ি > বায়োস্কোপ > 'সিনেমায় রোল দিলে আমি কী পাব', পরিচালক প্রশ্ন করেছিলেন দেবলীনাকে
কাস্টিং কাউচ নিয়ে মুখ খুললেন দেবলীনা দত্ত (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম dats_debleena)
কাস্টিং কাউচ নিয়ে মুখ খুললেন দেবলীনা দত্ত (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম dats_debleena)

'সিনেমায় রোল দিলে আমি কী পাব', পরিচালক প্রশ্ন করেছিলেন দেবলীনাকে

  • দেবলীনা জানান, এক প্রয়োজক তাঁকে বলেছিলেন, তিনি নিজেই জামাকাপড়ের মাপ নেবেন।

প্রয়োজক তাঁর জামাকাপড়ের মাপ নেবেন বলেছিলেন। আবার বন্ধু পরিচালক বলেছিলেন, ‘তোকে এই চরিত্রে নিলে আমি কী পাব?’ টলিউডের এমনই সব ভয়ানক অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরলেন অভিনেত্রী দেবলীনা দত্ত।

একটি বাংলা সংবাদমাধ্যমে নিজের কলামে দেবলীনা জানান, কেরিয়ারের একেবারে গোড়ার দিকেই ‘কাস্টিং কাউচ’-এর প্রস্তাব পেয়েছিলেন। বছর ২২ আগে দ্বিতীয় ধারাবাহিকে কাজের আগে তাঁর সঙ্গে প্রয়োজক দেখা করতে চান। মায়ের সঙ্গে গেলেও দেবলীনাকে একা যেতে বলা হয়। প্রয়োজক একেবারে সোজাসুজি প্রশ্ন করেন কম্প্রোমাইজে রাজি কিনা। এমনকী সবিস্তারে তিনি বোঝাতে বসেন, প্রয়োজকের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক না থাকলে ভালো কাজ করা যায় না। প্রয়োজককে আলাদাভাবে সময় দিতে হবে। একইসঙ্গে ধারাবাহিকের সংলাপ, চরিত্র নিয়ে দেবলীনার সঙ্গে তিনি নিজেই কথা বললেন। এমনকী ওই প্রয়োজক নিজেই জামাকাপড়ের মাপ নেওয়ারও কথা বলেন বলে অভিযোগ দেবলীনার। সেখানেই শেষ হয়নি। দেবীলানা জানান, মুখের উপর সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করতেই ওই প্রয়োজক কার্যত হুমকি দেন, ইন্ডাস্ট্রিতে টিকতে পারবেন না দেবলীনা। তবে শুধু তাঁর সঙ্গে নয়, সব নায়িকার সঙ্গে একইভাবে কথা বলতেন ওই প্রয়োজক। সেজন্য 'দর্জি প্রোডিউসার' নামও হয়ে গিয়েছিল তাঁর। 

সেই রূঢ় অভিজ্ঞতার ঘটনা কোনও বিচ্ছিন্ন নয়। বরং পরেও একই প্রস্তাব পেয়েছেন দেবলীনা। এমন একজনের থেকে, যিনি আবার অভিনেত্রীর বন্ধু ছিলেন। দেবলীনা জানান, ওই বন্ধুর একটি সিনেমায় কাজ করছিলেন তিনি। তারইমধ্যে অপর একটি বাংলা সিনেমার পোস্টার প্রকাশিত হলে ওই পরিচালক তাঁকে ফোন করে নতুন একটি ছবির জন্য সময় ফাঁকা রাখতে বলেন। কিন্তু তাঁকে যে সেই নয়া ছবিতে নেওয়া হয়নি, তা ওই বন্ধু পরিচালকের আগের সিনেমার সাংবাদিক বৈঠকে জানতে পারেন দেবলীনা। তাও নয়া ছবির নাম মিডিয়ায় জানানোর সময়ে দেবলীনা দেখেন, অনেক মহিলা চরিত্রের ভিড়ে তাঁর নাম নেই। পরে স্বভাবতই ওই পরিচালককে বলেন, সময় চাওয়ার পরও যখন তিনি সিনেমায় নেই, তখন জানাতে পারতেন। তাঁর জবাবে ওই পরিচালক বলেন, ‘তোকে এই চরিত্রে নিলে আমি কী পাব?’

দেবলীনার বক্তব্য, ইচ্ছা করেই সবার সামনে হাসির ছলে কথাটা বলা হয়েছিল, যাতে পরে তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ না ওঠে। কিন্তু বন্ধু পরিচালকের ইঙ্গিত বুঝতে তাঁর কোনও ভুল হয়নি বলেই মত অভিনেত্রীর। তাঁর বক্তব্য, যদি তিনি বলতেন ‘তুই যা চাইবি, তাই’, তাহলে রাতেই ফোন করতে পরিচালক। আর সিনেমায় তাঁর চরিত্র পাকা হয়ে যেত।অভিনেত্রীর এক বান্ধবীকেও নানা অছিলায় ওই পরিচালক নিজের বাড়িতে আসতে বলতেন বলে অভিযোগ।

তবে তিনি শুধু একা নন, তাঁর একাধিক বন্ধুও একই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন। দেবলীনা জানান, সিনেমা শুরুর আগে ওয়ার্কশপে তথাকথিত নামভারী পরিচালক তাঁর এক বান্ধবী-সহ সেখানে উপস্থিত সব অভিনেত্রীদের ক্রিপার হয়ে দাঁড়ানোর কথা বলেছিলেন। আর নিজে হতেন গাছ। বান্ধবী তাতে আপত্তি জানাতে ছবি থেকে বাদ পড়ে গিয়েছিলেন। একইভাবে ওয়ার্কশপে চুম্বনদৃশ্যের অভ্যেসের মাঝে দেবলীনার এক বন্ধুর কাছে এক পরিচালক চলে এসে বলেছিলেন, ‘এবার তাহলে চুমুটা খাই?’ 

দেবলীনার আক্ষেপ, যাঁরা সেই প্রস্তাবে সায় দেন, তাঁরা সিনেমায় সুযোগ পান। কিন্তু সবাই মিলে জোটবদ্ধভাবে বললে তবেই তো শিক্ষা দেওয়া যেত। কিন্তু তা আর হয়ে ওঠে না বলে কিছুটা খেদ ঝরে পড়ে অভিনেত্রীর কলম থেকে। 

বন্ধ করুন