প্রয়াত ঋষি কাপুর
প্রয়াত ঋষি কাপুর

প্রয়াত ঋষি কাপুর,বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর

ইরফান খানের মৃত্যুর পরের দিনই চলে গেলেন অভিনেতা ঋষি কাপুর।

ইরফান খানের মৃত্যু এখনও মেনে নিতে পারেনি গোটা দেশ।এর মাঝেই ফের শোকের ছায়া বলিউডে। প্রয়াত অভিনেতা ঋষি কাপুর। হিন্দুস্তান টাইমসকে ঋষি কাপুরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন দাদা রণধীর কাপুর। চিন্টুজির মৃত্যুর খবর টুইট করেন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চনও।


জানা গিয়েছে বুধবারই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল চিন্টুজিকে। সূত্রের খবর ৬৭ বছর বয়সী এই অভিনেতাকে ভর্তি ছিলেন মুম্বইয়ের স্যার এইচএন রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন হাসপাতালে।তাঁর সঙ্গে ছিলেন পত্নী নীতু কাপুর। বুধবার ঋষি কাপুরের দাদা রণধীর কাপুর জানান, 'ওর শরীর ভালো নেই'। কিছু ঘন্টা পার হতে না হতেই এল দুঃসংবাদ।

প্রসঙ্গত, টুইটারের দুনিয়ার নিময়িত বাসিন্দা ঋষি কাপুর। কিন্তু গত ২রা এপ্রিল থেকে এই মাইক্রো ব্লগিং সাইটে দেখা মেলেনি অভিনেতার। সেই নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিল অনুরাগীরা। এর মাঝেই এল এই শোকের খবর।

১৯৫২ সালের ৪ সেপ্টেম্বর বলিউডের 'ফার্স্ট ফ্যামিলি'তে জন্ম ঋষি কাপুরের। রাজ কাপুর ও কৃষ্ণা রাজ কাপুরের দ্বিতীয় পুত্র ঋষি রাজ কাপুর। অভিনয় দেখেই বড় হয়েছেন ঋষি কাপুর। ১৯৭০ সালে রাজ কাপুর অভিনীত মেরা নাম জোকার ছবিতে রাজ কাপুরের ছেলেবেলার চরিত্রে অভিনয় করেন ঋষি কাপুর। হিরো হিসাবে ঋষি কাপুরের পথচলা শুরু ১৯৭৩ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ছবি ববির সঙ্গে। সত্তর ও আশির যুগে লায়লা মজনু, কর্জ, প্রেমরোগ, নাগিনা, চাঁদনি, হীনা, বোল রাধে বোল, অমর আকবর, অ্যান্টনি, কভি কভি'র মতো অজস্র হিট ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন মিষ্টি হাসির এই হিরো।

নতুন শতাব্দীতেও থেমে থাকেনি তাঁর অভিনয় কেরিয়ার। ফনহা, নমস্তে লন্ডন, লাভ আজ কাল, অগ্নিপথের মতো ছবিতে অভিনয়ের ছাপ রেখেছেন চিন্টুজি। বক্স অফিসে তাঁর শেষ ছবি ছিল দ্য বডি।

২০১৮ সালে ঋষি কাপুরের ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে। এরপর একটানা একবছর নিউ ইয়র্কে চিকিত্সা চলেছে তাঁর। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসেই দেশেই ফেরেন ঋষি কাপুর।তারপর থেকেও নিময়িত চিকিত্সার মধ্যেই ছিলেন তিনি।

ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুতেই দিল্লিতে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছিল ঋষি কাপুরকে। তিনি নিজেই সেইসময় জানিয়েছিলেন দিল্লির দূষণের কারণে তাঁর দেহে কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে, পাশাপাশি ভাইরাল সংক্রমণও দেখা গিয়েছে। সেই সময় দিল্লিতে একটি ছবির শ্যুটিংয়ে গিয়েছিলেন ঋষি কাপুর,তার সঙ্গে ছিলেন পত্নী নীতু কাপুরও। ঋষি কাপুরকে দেখতে দিল্লি ছুটে গিয়েছিলেন রণবীর ও তাঁর বান্ধবী আলিয়াও।মুম্বইতে ফিরে ফের একবার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় ঋষি কাপুরকে। জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ঋষি কাপুর। যদিও দ্রুতই ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে।

বন্ধ করুন