বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Ajay-Sudeep: ‘হিন্দি রাষ্ট্রীয় ভাষা নয়’, অজয়-সুদীপ বিতর্কে এবার সরব কর্ণাটকের মু্খ্যমন্ত্রী
থামছে না বিতর্ক
থামছে না বিতর্ক

Ajay-Sudeep: ‘হিন্দি রাষ্ট্রীয় ভাষা নয়’, অজয়-সুদীপ বিতর্কে এবার সরব কর্ণাটকের মু্খ্যমন্ত্রী

  • হিন্দি কোনওদিন ভারতের রাষ্ট্রীয় ভাষা ছিল না, আর হবেও না- এবার হিন্দি বিতর্কে মুখ খুললেন কর্নাটকের প্রাক্তন ও বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। 

‘হিন্দি আর আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা নেই’, কেজিএফ ২-এর সাফল্য নিয়ে কথা বলতে গিয়ে সম্প্রতি এমন মন্তব্য করেছিলেন কন্নড় ছবির সুপারস্টার কিচ্চা সুদীপ। এই কথা সহজে হজম করতে পারেননি অজয় দেবগণ। তিনি টুইটারে সরাসরি প্রতিবাদ জানিয়ে লেখেন, যদি হিন্দি সত্যি রাষ্ট্রীয় ভাযা না হয় তবে সুদীপ কেন নিজের ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করেন।

কিচ্চা সুদীপ ও অজয় দেবগণের এই বাকযুদ্ধ ঘিরে সরগরম নেটমাধ্যম। বিতর্কের আঁচ ছড়িয়ে পড়েছে রাজনৈতিক মহলেও। সুদীপের মন্তব্য এক্কেবারে সঠিক, সেই মন্তব্যকে সম্মান জানানো উচিত। কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই হিন্দি বিতর্কের আগুনে ঘি ঢেলে বলেন, কর্ণাটক তৈরি হয়েছিল ভাষার উপর নির্ভর করে। আঞ্চলিক ভাষাগুলিকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত। পাশাপাশি সুদীপের মন্তব্যকে সবার সম্মান জানানো উচিত বলেই জানান মুখ্যমন্ত্রী।

শুধু মুখ্যমন্ত্রী বোম্মাই নন, কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়াও অজয় দেবগণের ভুল ধরিয়ে দিয়ে লেখেন, ‘হিন্দি কোনওদিনই আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা ছিল না এবং নয়। প্রত্যেক ভারতীয়র উচিত এদেশের ভাষা বৈচিত্র্যকে সম্মান জানানো। প্রত্যেকটি ভাষার নিজস্ব ঐতিহ্য আছে, এবং সেই ভাষার মানুষজন নিজের ভাষা নিয়ে গর্বিত। আমি কন্নড় হিসাবে গর্বিত’।

ঠিক কী বলেছিলেন কন্নড় তারকা কিচ্চা সুদীপ? এক অনুষ্ঠান মঞ্চে দাঁড়িয়ে অভিনেতা বলেন, ‘সবাই বলছে কন্নড় ইন্ডাস্ট্রিতে একটি সর্বভারতীয় ছবি তৈরি হয়েছে। আমি একটু সংশোধন করতে চাই। হিন্দি আর রাষ্ট্রভাষা নেই। ওরা (বলিউড) আজকাল সর্বভারতীয় ছবি বানাচ্ছে। ওরা সাফল‍্য পাওয়ার জন‍্য তেলুগু, তামিলে ছবির ডাবিং করাচ্ছে। কিন্তু তাও লাভ হচ্ছে না’।

এর পালটা অজয় দেবগণ টুইট করেন, 'যদি তোমার মতানুসারে হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা না হয়, তাহলে তুমি কেন তোমার মাতৃভাষায় তৈরি ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করো? হিন্দি আমার মাতৃভাষা, এবং আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা এবং সেটা থাকবেই। জন গণ মণ’।

এই বিতর্কে নেটপাড়াও দু-ভাগে বিভক্ত, একদল অজয় দেবগণের পক্ষ নিয়ে নিজেদের মতামত রাখছে। আবার কেউ কেউ অজয়কে নিয়ে ট্রোল করে কিচ্চা সুদীপের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

বন্ধ করুন