বাড়ি > বায়োস্কোপ > গাঁজা ছেড়ে দেওয়ার কথা বলেছিলেন সুশান্ত,ফাঁস রিয়া,শ্রুতি মোদীর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট : রিপোর্ট
আমি সুশান্তের গার্লফ্রেন্ডে মেনে নিলেন রিয়া 
আমি সুশান্তের গার্লফ্রেন্ডে মেনে নিলেন রিয়া 

গাঁজা ছেড়ে দেওয়ার কথা বলেছিলেন সুশান্ত,ফাঁস রিয়া,শ্রুতি মোদীর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট : রিপোর্ট

  • সুশান্তের গাঁজা খাওয়ার অভ্যেস ছাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার কথা ওই চ্যাটে শ্রুতি মোদীকে বলতে শোনা গিয়েছে। রিয়াকে ওই কথা বলেছিলেন শ্রুতি।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে মঙ্গলবার একদম নতুন একটি দিক উঠে এসেছে। রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মাদক চক্রের যোগসূত্রের হদিশ পেয়েছে ইডি। অভিযুক্ত নায়িকার ডিলিট করা হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে রয়েছে সেই সূত্র। ফলস্বরূপ ইডি, সিবিআইয়ের পাশাপাশি এই তদন্তে আপতত নেমে পড়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোও।

এবার সামনে এল রিয়া চক্রবর্তী ও সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রাক্তন বিজনেস ম্যানেজার তথা রিয়ার বর্তমান ম্যানেজার শ্রুতি মোদির হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। যা এই ড্রাগ সংক্রান্ত নতুন দিক নিয়ে আরও কিছুটা স্পষ্ট ধারণা দিচ্ছে। ইন্ডিয়া টুডের তরফে এই গোপন চ্যাটের হদিশ বার করা হয়েছে। যেখানে সুশান্ত  মারিজুয়ানা বা গাঁজা সেবন করা বন্ধ করে দিয়েছেন সেই কথা উঠে এসেছে দুজনের চ্যাটে।

জানুয়ারি ২০২০-র হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের হদিশ পেয়েছে ইন্ডিয়া টুডে। সেই কথোপকথনে একটি ঘটনার প্রসঙ্গ টানা হয়েছে যেখানে একটি মিটিং চলাকালীন সুশান্তের কান্নাকাটি করবার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সেখানে লেখা রয়েছে- ‘ও পুরোপুরি ভাবে গাঁজা বন্ধ করে দিয়েছে এবং বলেছে গতকাল থেকে বন্ধ রেখেছে। আপতত ও ঘুমোতে গেছে এবং আমি আজকের মতো চলে যাচ্ছি’। শ্রুতি ২ নামে ফোনে সেভ করে রাখা একটি নম্বর থেকে এই মেসেজ এসেছে রিয়ার কাছে। সেই কথোপকথনে এই বিষয়েরও উল্লেখ রয়েছে চিকিত্সা জারি থাকা সত্ত্বেও সুশান্তের পরিস্থিতি বদলাচ্ছে না এবং চিকিত্সার জন্য নতুন করে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

এর আগে টাইমস নাও রিয়া চক্রবর্তীর কিছু ডিলিট করা হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের হদিশ পেয়েছে বলে দাবি করেছে। যেখানে সুশান্তের হাউজ ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা, ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির এক কর্মী জয়া সাহা (রিয়াকে ম্যানেজ করে এই কোম্পানি) এবং রিয়ার মধ্যেকার বেশ কিছু চ্যাটে ভারতে নিষিদ্ধ ড্রাগ মারিজুয়ানা, এমডিএমএ-র কথা উঠে এসেছে। গৌরব আর্য নামের একজন ড্রাগ ব্যবসায়ীর সঙ্গেও রিয়া যোগাযোগ করেছিলেন বলে দাবি করা হয়েছে। 

রিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ সম্পর্কে তাঁর আইনজীবী সতীশ মানেসিন্ধে জানান, ‘রিয়া জীবনে কোনওদিনও ড্রাগ সেবন করেননি। উনি রক্ত পরীক্ষার জন্য তৈরি রয়েছেন’।

বন্ধ করুন