বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > যৌন উদ্দীপক ছবির অফার নিয়ে শ্রদ্ধার কাছে নামী পরিচালক! মুশকিলে পড়েছিলেন নায়িকা
শ্রদ্ধা কাপুর 

যৌন উদ্দীপক ছবির অফার নিয়ে শ্রদ্ধার কাছে নামী পরিচালক! মুশকিলে পড়েছিলেন নায়িকা

  • তখন সবে বলিউডে পায়ের নীচের মাটি শক্ত করতে চাইছেন শ্রদ্ধা। মুখের উপর কেমনভাবে 'না' বলবেন নামী পরিচালককে! বুঝেই উঠতে পারেননি শক্তি কাপুর কন্যা। 

আরও এক বসন্ত পার করে ফেললেন শ্রদ্ধা কাপুর। ‘আশিকী ২’-এর সঙ্গে রাতারাতি তারকা স্টেটাস পেয়েছিলেন শক্তি কাপুর কন্যা। এরপর ‘স্ত্রী’, ‘ছিছোড়ে’, ‘সাহু’র মতো ছবিতে দেখা মিলেছে শ্রদ্ধার। ছোট থেকেই ফিল্মি পরিবারে বেড়ে ওঠা শ্রদ্ধার। শক্তি কাপুরের মেয়ে, পদ্মিনী কোলহাপুরীর বোনঝির পরিচিতির অভাব ছিল না। তবে ভালো ছবির অফার পাওয়ার আগে একাধিক ভুলভাল ছবির অফার পেয়েছিলেন শ্রদ্ধা। 

অনেকেই ভাবেন ‘আশিকী ২’ বোধহয় শ্রদ্ধার প্রথম ছবি, কিন্তু তার আগে অমিতাভ বচ্চন, বেন কিংসলের মতো অভিনেতাদের সঙ্গে ‘তিন পত্তি’ ছবিতে কাজ করেছিলেন শ্রদ্ধা। তবে বক্স অফিসে ভরাডুবি হয়েছিল সেই ছবির। এরপরই সঞ্জয় লীলা বনশালির প্রযোজনায় তৈরি ছবি ‘মাই ফ্রেন্ড পিন্টো’তে কাজের সুযোগ হারান শ্রদ্ধা। পাশাপাশি এমন ছবির অফারও তিনি পেয়েছিলেন যা গ্রহণ করা তাঁর পক্ষে সম্ভবপর ছিল না।

ফিল্মফেয়ারকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, কেমনভাবে এক নামী ফিল্মমেকারের কাছ থেকে এক যৌন উদ্দীপক ছবির অফার পেয়ে ভ্যাবাচ্যাকা খেয়েছিলেন তিনি। শক্তি কাপুর কন্যা বলেন, ‘আমি সত্যি বুঝতে পারছিলাম কীভাবে ওঁনাকে না বলব। এবং তারপর আস্তে আস্তে বলেছিলাম আমি এখনই ওই এলাকায় (ইরোটিক ছবি) যেতে চাই না’। 

বনশালির ছবিতে কাজের সুযোগ হারানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তিন পত্তি রিলিজের আগে আমি ওই ছবির অডিশন দিয়েছিল। আমি দিন-রাত খেটেছিলাম, সেরাটা দিয়েছিলাম অডিশনে। কিন্তু শেষপর্যন্ত আমি ওই চরিত্রটা পাইনি। আমাকে রিপ্লেস করা হয়েছিল, যখন ফোনটা আসে তখন মায়ের কাছে গিয়ে সবটা বলি, এরপর জানাই আমাকে এবার একটু একা থাকতে দাও। তারপর তিনদিন ধরে বিছানায় শুয়ে কেঁদেছিলাম’। 

শ্রদ্ধাকে শেষ দেখা গিয়েছে ‘বাগি ৩’ ছবিতে। আগামিতে রণবীর কাপুরের নায়িকা হিসাবে দেখা যাবে শ্রদ্ধাকে। পরিচালনার দায়িত্বে থাকছেন লাভ রঞ্জন। আগামী বছর  হোলিতে মুক্তি পাবে ওই ছবি।

 

বন্ধ করুন