বাড়ি > বায়োস্কোপ > ১৯৯৪ সালের ২৭ মে বিয়ের তারিখ পাকা ছিল সলমন-সঙ্গীতার, জানুন কেন ভেঙেছিল এই বিয়ে?
২৬ বছর পরেও আজও সিঙ্গলই থেকে গেলেন সলমন খান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
২৬ বছর পরেও আজও সিঙ্গলই থেকে গেলেন সলমন খান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

১৯৯৪ সালের ২৭ মে বিয়ের তারিখ পাকা ছিল সলমন-সঙ্গীতার, জানুন কেন ভেঙেছিল এই বিয়ে?

  • ২০১৩ সালে প্রথমবার কফি উইথ করণের মঞ্চে সঙ্গীতার সঙ্গে ভাঙা বিয়ে নিয়ে মুখ খোলেন সলমন খান। 

বলিউডের মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলার সলমন খান। পঞ্চাশের গন্ডি পার করেও আসমুদ্র হিমাচলের লক্ষ তরুণীর মনে ঝড় তোলেন দাবাং খান। সলমনের বিয়ে নিয়ে বলিউড থেকে সংবাদ মাধ্যম,সকলেরই মাথাব্যাথা রয়েছি কিন্তু বিয়ে করতে তিনি এক্কেবারেই আগ্রহী নন,সে কথা একাধিক বার বলতে শোনা গিয়েছে সলমন খানকে। তবে একটা সময় ছিল যখন সাত পাকে বাঁধা পড়বার জন্য রেডি হয়ে গিয়েছিলেন সলমন। বলা যেতে পারে সেহরা পরে রেডি ছিলেন ভাইজান তবুও শেষমেষ বিয়েটা ভেস্তে গিয়েছিল! কথা হচ্ছে সলমন খান ও তাঁর প্রাক্তন বান্ধবী সঙ্গীতা বিজলানির ভেঙে যাওয়া বিয়ের। বিয়ের কার্ড পর্যন্ত ছাপা হয়ে গিয়েছিল এই বিয়ের,তবুও  বিয়ে হল না? 

১৯৯৪ সালের ২৭ মে বিয়ের তারিখ পাকা ছিল সলমন-সঙ্গীতার। প্রায় ২৬ বছর আগের সেই কাঙ্খিত দিনটা কেন এল না সলমনের জীবনে? সেই প্রশ্নের উত্তর সলমন দিয়েছিলেন কফি উইথ করণের মঞ্চে। ২০১৩ সালে প্রথমবার কফি উইথ করণে হাজির হয়েছিলেন সলমন। করণ তাঁকে প্রশ্ন করেন এখনও কি সঠিক জীবনসাথীকে খুঁজে পাননি সলমন?

জবাবে ভাইজান বলেন, না, আমি অনেকের সঙ্গেই সম্পর্কে থেকেছি যাঁরা একদম সঠিক ছিল,হয়ত আরও একটু বেশি ঠিক চেয়েছিলাম। আসলে লেখকের ছেলে তো সবটাই বেশি রাইট খুঁজি বোধহয়।আশা করছি এ ব্যাপারে আমি ভুল নই। করণের সঙ্গে কথাপকথনের সময়ই সলমন জানান, একটা সময় ছিল যখন আমি সত্যি বিয়ে করতে চেয়েছিলাম,কিন্তু সেটা সফল হল না। অনেকবারই কাছাকাছি পৌঁছেছি।ওরা ভাবে বয়ফ্রেন্ড হিসাবে আমি পারফেক্ট কিন্তু স্বামী হিসাবে আমাকে সারাজীবন সহ্য করাটা বোধহয় মুশকিল ভাবে, সঙ্গীতার সঙ্গে তো বিয়ের কার্ডও ছাপা হয়ে গিয়েছিল। 

একথা শুনে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে করণ প্রশ্ন করেন ও কী তোমায় কোথাউ দেখে ফেলেছিল? সলমন পাল্টা প্রশ্ন করেন, কোথায় দেখবে?  করণ বলেন অবশ্যই কোথাউ একটা ধরা পড়েছিলে! প্রথমে না বললেও কিছুক্ষণ পর ক্যামেরায় না তাকিয়ে সলমন বলেন ‘ওইরকমই কিছু একটা’। এরপর সলমন বলে চলেন আমি সত্যিই বোকা, আমি ধরা পড়ে যাই। যদিও এরপর প্রসঙ্গ পাল্টে ভাইজান বলেন কী সব বাজে বলছ।

সলমন এরপর বলেন আমি সবসময়ই মানুষজনকে বলি যদি তুমি আমার সঙ্গে কোনও সম্পর্কে না জড়াতে চাও তাহলে জড়িও না।আমি খুব বেশি সঠিক মানুষ নই। আর আমি এখন তৈরিও নই কোনও সিরিয়াস সম্পর্কের জন্য, কোনওরকম কমিটমেন্ট কাউকে দিতে পারব না জীবনের এই পর্যায়ে পৌঁছে'।

সলমনের সঙ্গে বিয়ে ভাঙার পর ১৯৯৬ সালে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার মহম্মদ আজারুদ্দিনকে বিয়ে করেন সঙ্গীতা। যদিও সেই বিয়ে আজ আর টিকে নেই। মাঝে বেশ কয়েক বছর সলমনের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ ছিল না সঙ্গীতার। কিন্তু এখন তাঁরা আবারও বন্ধু। খান পরিবারের সব অনুষ্ঠানেই যোগ দেন সঙ্গীতা। প্রাক্তন প্রেমিকের পাশে দাঁড়িযে একসঙ্গে ছবিও তোলেন, এখন তাঁরা শুধুই বন্ধু!

 

 

বন্ধ করুন