বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Twinkle Khanna: ‘সন্তান বড় হয়ে দোষারোপ করবেই, মায়েরা নিঁখুত হয় না..’, মাতৃত্ব নিয়ে টুইঙ্কল

Twinkle Khanna: ‘সন্তান বড় হয়ে দোষারোপ করবেই, মায়েরা নিঁখুত হয় না..’, মাতৃত্ব নিয়ে টুইঙ্কল

টুইঙ্কলের উপলব্ধি 

Twinkle Khanna: ‘খুব কম মায়েরাই খারাপ হয়, আমরা নিঁখুত না হলেও চেষ্টা করি…’, মাতৃত্ব নিয়ে অকপট অক্ষয় ঘরণী। 

মনের কথা প্রকাশ্যে জাহির করতে কোনওদিনই কুন্ঠাবোধ করেন না টুইঙ্কল খান্না। অভিনয় কেরিয়ারকে দু-দশক আগেই চিরতরে বিদায় জানিয়েছেন শাহরুখ-আমিরদের এই সহ-অভিনেত্রী। অক্ষয় কুমারের সহধর্মিণী হওয়ার পাশাপাশি টুইঙ্কল একজন সফল লেখিকা। মেয়ে নিতারার সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করে মাতৃত্ব নিয়ে অকপটে নানা কথা স্বীকার করে নিলেন টুইঙ্কল। প্রাক্তন অভিনেত্রীকে বলতে শোনা গেল, ছেলেমেয়েদের জন্য সবটা উজার করে দিলেও দিনের শেষে তাঁরা মা-কে দোষারোপ করতে ছাড়ে না।

আপতত গোল্ডসস্মিথ ইউনিভার্স অফ লন্ডন থেকে ফিকশন রাইটিং-এ মাস্টার ডিগ্রি নিয়ে পড়াশোনা করছেন টুইঙ্কল। ভিডিয়োর শুরুতেই টুইঙ্কল বললেন, ‘মাতৃত্বের আনন্দ’-এর কথা। ট্রেন স্টেশনে দেখা মিলল অক্ষয় পত্নীর। এরপর ধীরে ধীরে মা-মেয়ের একান্ত দিন যাপনের টুকরো ঝলক উঠে এল। এরপর টুইঙ্কল লিখলেন, ‘ক্লান্তিকর ট্রিপে সন্তানদের টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে আসা, যদিও মনে মনে একটা সোলো-ট্রিপের ইচ্ছে পুষে রাখা, উন্মাদের মতো তাঁদের পিছু ধাওয়া করা যদি তারা অন্য প্ল্যাটফর্মে দৌড়ে যায়, যেন তুমি দিকবিদিকশূন্য ম্যাথারন রানার’।

এরপর টুইঙ্কল আরও লেখেন, সন্তানদের মনের কথা নিমেষে বুঝতে পারার মধ্যেও একটা প্রশান্তি আসবে। পৃথিবীর নানান বিস্ময়কর জিনিসগুলো তাঁদের সামনে মেলে ধরার মধ্যে একটা ভালোলাগা থাকবে। দুই সন্তানের মা-এর উপলব্ধি, ‘আপনি চেষ্টা করবেন বিরক্ত না হতে, যেহেতু আপনি হোটেল থেকে বার হওয়ার সময় তাঁদের বাথরুম ব্যবহার করতে বলেছিলেন এখন খোলা মাঠে তারা বলবে আপনাকে টয়লেট খুঁজে দিতে কিন্তু সন্তানদের খুশির কথাটা নিজের আগে ভাববে মায়েরা'।

এই ভিডিয়ো শেয়ার করে টুইঙ্কল দীর্ঘ বিবরণীতে লেখেন, ‘আপনি যা খুশি করে নিন, যখন সন্তানরা বড় হয়ে যাবে তখন আপনাকে দোষারোপ করবেই। আমরা শুধু আশা করতে পারি যে ওরা উপলব্ধি করবে খুব কম মা-ই ভয়ঙ্কর রকমের খারাপ হয়। হোম অ্যালোনে যে মা ছিল– যে ছুটিতে যাওয়ার আগে নিজের সন্তানকে বাড়িতে ভুলে চলে যায়, একবার নয়, ছবির সিকুয়েলেও। সে কিন্তু শয়তান নয়, একটু বেশি উত্তেজিত। মায়েরা হয়ত পারফেক্ট (নিঁখুত) হয় না, কিন্তু আমরা সবাই চেষ্টা করি নিজেদের সেরাটা উজার করে দিতে, আমাদের খুব খারাপ দিনেও’।

টুইঙ্কলের এই পোস্টে প্রশংসার বন্যা। মায়েরা এক্কেবারে সহমত মিসেস ফানিবোনসের এই ভাবনার সঙ্গে। ১৯৯৫ সালে ‘বরসাত’ ছবির সঙ্গে অভিনয় সফর শুরু করেছিলেন রাজেশ খান্না ও ডিম্পল কাপাডিয়ার বড় মেয়ে টুইঙ্কল। পরবর্তীতে ‘বাদশা’, ‘জোরু কা গুলাম’, ‘ইন্টারন্যাশন্যাল খিলাড়ি’র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন টুইঙ্কল। ২০০১ সালে অভিনয় কেরিয়ারে ইতি টানেন অভিনেত্রী। ওই বছর অক্ষয় কুমারের সঙ্গে সাত পাক ঘোরেন টুইঙ্কল। দুই সন্তান আরভ-নিতারাকে নিয়ে সুখী গৃহকোণ এই তারকা দম্পতির।

 

 

বন্ধ করুন