বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শ্রীময়ী আর রোহিত সেনের বিয়েটা কি হবে? জবাব দিলেন লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়
শ্রীময়ী-র একটি দৃশ্য (সৌজন্যে- হটস্টার)
শ্রীময়ী-র একটি দৃশ্য (সৌজন্যে- হটস্টার)

শ্রীময়ী আর রোহিত সেনের বিয়েটা কি হবে? জবাব দিলেন লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

  • 'আমি জানি অনেক মেয়ের জীবনে এইরকম রোহিত সেন আছেন, তাঁরা রোহিত সেনের হাত ধরতে পারেননি। সেই রাগ থেকেই এই কথাগুলো বলেন’, অকপটে বললেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। 

চলতি মাসেই সাফল্যের সঙ্গে ৬০০ এপিসোড পার করে ফেলেছে ‘শ্রীময়ী’। অনিন্দ্যর সঙ্গে ডিভোর্সের পর শ্রীময়ী-রোহিত সেনের সম্পর্কের ইকুয়েশন নজর কেড়েছে সকলের। যেভাবে শুধু শ্রীময়ী নয়, তাঁর গোটা পরিবারের আপদে-বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়ে সর্বস্ব উজাড় করে দিয়েছে তাতে এই গল্পের নায়ক চরিত্র সে। অন্যদিকে শ্রীময়ীকে কলেজ জীবন থেকে নিঃস্বার্থভাবে ভালোবেসে এসেছে রোহিত সেন। শ্রীময়ীকে ভালোবেসেই চল্লিশের কোটা পেরিয়েও আজও জীবনে একা রোহিত, সে কথা দর্শক বুঝলেও কিছুতেই বুঝতে চাইছে না শ্রীময়ী। 

রোহিত সেনের সঙ্গে নতুন সংসার পাতুক শ্রীময়ী, তেমনটা শুধু দর্শকদের চাহিদা তা নয়, দিঠি, ডিঙ্কাও মা-কে বহুবার এই কথা স্পষ্টভাবে বুঝিয়ে দিয়েছে। কেন রোহিত সেন আর শ্রীময়ীর মিল হচ্ছে না? সেই নিয়ে চর্চার শেষ নেই সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এই গোটা কাহিনির রাশ যিনি নিজের শক্ত করে হাতে ধরে রেখেছেন, সেই লীনা গঙ্গোপাধ্যায় কী বলছেন? 

সম্প্রতি শ্রীময়ীর লেখিকা সাংবাদিকদের সঙ্গে এক ভার্চুয়াল আড্ডায় গোটা বিষয়টি পরিষ্কার করেন। তিনি বলেন, ‘রোহিত সেনের সঙ্গে কেন শ্রীময়ীর বিয়ে হচ্ছে না, সেটা একটা (দর্শকের) রাগের কারণ। আমি জানি অনেক মেয়ের জীবনে এইরকম রোহিত সেন আছেন, তাঁরা কিন্তু সেই রোহিত সেনের হাত ধরতে পারেননি। সেই রাগ থেকেই এই কথাটা বলেন’। তিনি যোগ করেন, একজন মায়ের জীবনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তাঁর সন্তান। ছেলেমেয়ের বিপদে সে নিজের মতো করে বাঁচার আগে, সন্তানের জন্য লড়াই করাটাই বেছে নেবে। নিজের জন্য বাঁচা মানে, সন্তানকে উপেক্ষা করে রোহিত সেনের হাত ধরে চলে যাওয়া নয়। সেটা শ্রীময়ীর চরিত্র নয়, আমরা যেমন দেখেছি তেমনভাবেই লিখি। নিজের জন্য বাঁচা মানে স্বেচ্ছাচারিতা নয়, এটাই শ্রীময়ী'। 

লীনা গঙ্গোপাধ্যায় আরও যোগ করেন, 'শ্রীময়ীর জীবনে রোহিত সেন একটা লাইটহাউজ। আমাদের সকলের জীবনে এই লাইটহাউজের দরকার হয়, রোহিত সেনের আগমন কিন্তু শ্রীময়ীর সঙ্গে সংসার করার জন্য নয়।তবে আমি  কোথাউ বলিনি শ্রীময়ী-রোহিত সেনের মিল হবে না, আবার এই জায়গাটাতেও গুরুত্ব দিইনি শ্রীময়ী সব ছেড়ে রোহিত সেনের হাত ধরে চলে যাবে। আমি যদি আমার পরিচিত বৃ্ত্তে এই বয়সের কোনও মা-কে যদি দেখি তিনি সন্তানের ক্রাইসিস উপেক্ষা করে রোহিত সেনের সঙ্গে সংসার পাতছেন সেটা আমি ব্যক্তিগতভাবে একজন মানুষ হিসাবে মেনে নিতে পারব না। সেই কারণেই লেখক হিসাবেও আমার মধ্যে তাঁর প্রতিফলনও নেই। তবে ভবিষ্যতে যে এই ধরণের ঘটনা ঘটবে না, সেই নিশ্চয়তাও আমি দিচ্ছি না। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে সংসার বাঁচানোটাই শ্রীময়ীর কাছে জরুরি। সংসার মানে এখানে কিন্তু শ্রীময়ীর সন্তানদের জীবনটা সাজানো। রোহিত সেন শ্রীময়ীর কাছে একটা খোলা জানালা, যেখান দিয়ে ও বাঁচার অক্সিজেন পায়'। 

শ্রীময়ীর ভাবনা নিয়ে লীনা গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘শ্রীময়ীর মধ্যে আমি আমাকে দেখেছি। আমার মা-কাকিমাকে দেখেছি। আমার চারপাশে অনেকে আছে, আমাদের মধ্যে অনেক মেয়ে আছেন যাঁদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস অনেক কম থাকে। মেয়েরা যে কিছু করতে পারে, সেটা যদি অন্যভাবে বলা যায়। ঘটনাচক্রে সব মেয়েই এর সঙ্গে একাত্ম হতে পেরে। এর সঙ্গে নিজেকে জুড়তে পেরেছে। আমাদের কাছে প্রচুর ই-মেল আসে, তাঁরা বলেন এটা আমাদের চরিত্র’। 

বন্ধ করুন