স্মৃতি ইরানি
স্মৃতি ইরানি

জওয়ান মারা গেলে যারা খুশি হয়, তাদের সমর্থন করলেন দীপিকা- স্মৃতি ইরানি

ঐশী ঘোষদের সমর্থনে JNU গিয়েছিলেন দীপিকা, পছন্দ হল না স্মৃতির।

ভারতের বিনাশ যারা চায়, তাদের সঙ্গে জেএনইউয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন, এই অভিযোগ আনলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। রোববার জেএনইউ ক্যাম্পাসে হামলার প্রতিবাদে দুইদিন বাদে বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। কানহাইয়া কুমার ও জেএনইউ ছাত্র সংগঠনের সভাপতি ঐশী ঘোষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি।পরে এক চ্যানেলকে বলেন যে জেএনইউয়ে যা হয়েছে তার প্রতিবাদেই তিনি গিয়েছিলেন।

এর আগে প্রকাশ জাভড়েকর বলেছিলেন যে কেউ চাইলে যেখানে খুশি যেতে পারে, সেটা গণতন্ত্রে মানা নেই। এদিন কিন্তু রীতিমত চড়া সুরে দীপিকার সমালোচনা করলেন স্মৃতি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন যে দীপিকা ২০১১ সালেই তাঁর রাজনৈতিক পছন্দ জানিয়ে দিয়েছিলেন, যখন তিনি জানিয়েছিলেন যে তিনি কংগ্রেসের সমর্থক। যারা সেটা জানতেন না কিন্তু দীপিকার ছবি পছন্দ করতেন, তারাই অভিনেত্রী জেএনইউতে যাওয়ায় অবাক হয়ে গিয়েছেন বলে স্মৃতির দাবি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন যে দীপিকা যাদের সমর্থনে গিয়েছিলেন তারা খুশি হয় ষখন কোনও সিআরপিএফ জওয়ান মারা যায়। যারা মহিলাদের গোপনাঙ্গে লাঠি মারে, তাদের সমর্থন করছে দীপিকা, বলে অভিযোগ করেন প্রাক্তন অভিনেত্রী স্মৃতি। ভারতের যারা বিভাজন চায়, তাদের দীপিকা সমর্থন করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

আজ মুক্তি পেয়েছে দীপিকার নয়া ছবি ছপক। অনেকে অভিযোগ করেছেন যে পাবলিসিটি স্টান্টের জন্য জেএনইউয়ে গিয়েছিলেন ছপক। অনেক বিজেপি সমর্থক ছপক দেখবেন না এমনও দাবি করেছেন। অন্যদিকে তিন কংগ্রেস রাজ্যে করমুক্ত করে দেওয়া হয়েছে ছপককে। রাজনীতির রং আগেই লেগেছিল দীপিকার নয়া ছবিতে। এদিন স্মৃতি আরও স্পষ্ট করে দিলেন সেটি।





বন্ধ করুন