বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অভিযোগ অস্বীকার আদিত্য চোপড়ার,YRF এর জন্য বনশালির ছবি হাতছাড়া হয়নি সুশান্তের!
পুলিশকে দেওয়া বয়ানে কী বললেন আদিত্য চোপড়া!
পুলিশকে দেওয়া বয়ানে কী বললেন আদিত্য চোপড়া!

অভিযোগ অস্বীকার আদিত্য চোপড়ার,YRF এর জন্য বনশালির ছবি হাতছাড়া হয়নি সুশান্তের!

  • পুলিশ সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী,সঞ্জয় লীলা বনশালির বয়ানের সঙ্গে মিল নেই আদিত্য চোপড়ার বয়ানের! 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে বলিউডের অন্যতম নামী প্রযোজক সংস্থা যশ রাজ ফিল্মস। সুশান্ত সিং তাঁর সাত বছর দীর্ঘ ফিল্মি কেরিয়ারে এই প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে একদম শুরুতেই চুক্তিবদ্ধ ছিলেন। তবে মাঝপথেই ভেঙে যায় সেই চুক্তি। তিন ছবির কনট্রাক্ট থাকলেও দুটি ছবির পর,তিন নম্বর ছবি ঘোষণা হলেও কাজ এগোয়নি। সুশান্তের আত্মহত্যার তদন্তে নেমে শনিবার পুলিশি জেরার মুখে পড়েন যশরাজ কর্ণধান,রানি মুখোপাধ্যায়ের স্বামী আদিত্য চোপড়া। 

এদিন ভারসোভা থানায় প্রায় চারঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আদিত্য চোপড়াকে। নিজের দুই আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশের কাছে নিয়ের বয়ান রেকর্ড করতে পৌঁছেছিলেন যশ রাজ প্রধান। ডিএনএতে প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে, পুলিশ সূত্রে খবর পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালির বয়ানের সঙ্গে মিল নেই আদিত্য চোপড়ার বয়ানের। মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরকে মান্যতা দিয়েই বনশালি পুলিশকে জানিয়েছিলেন বাজিরাও মস্তানি ছবির জন্য সুশান্তই ছিলেন তাঁর প্রথম পছন্দ। তবে সেই সময় যশ রাজ ফিল্মসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ছিলেন সুশান্ত। তাই  ছবিতে কাজ করার অনুমতি পাননি সুশান্ত। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আদিত্য চোপড়া। তাঁর বয়ানে তিনি জানান, বনশালি যশ রাজের সঙ্গে কোনওরকম যোগাযোগই করেননি সুশান্তের বাজিরাও মস্তানি ছবিতে কাজ করা নিয়ে। 

আদিত্য চোপড়া আরও যোগ করেন, গোলিও কি রাসলীলা রামলীলায় নিয়ে যশ রাজ ফিল্মসের উপর আনা অভিযোগ মিথ্যা যে তাঁরা সুশান্তকে সেই ছবিতে কাজ করতে দেয়নি,অথচ যশ রাজ ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্টের অপর শিল্পী রণবীর সিংকে সেই অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। 

যশ রাজ কর্ণধারের মতে, রণবীর সিং নাকি ২০১২-র এপ্রিলেই রামলীলার নায়ক হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন যেখানে সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে যশ রাজের চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিল ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে। 

যশ রাজের পানি ছবি নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারণেই নাকি সঞ্জয় লীলা বনশালিকে দুবার ফিরিয়ে ছিলেন সুশান্ত। অথচ পরিচালক শেখর কাপুরের এই ছবি ২০১২ সালের শেষের দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করবার তিন বছর পর ছবিটি বন্ধ করে দেয় যশ রাজ ফিল্মস। যে ছবির জন্য দু বছর ধরে ওয়ার্কশপ করার পাশাপাশি একাধিক বড় প্রোজেক্ট হাতছাড়া করেছিলেন সুশান্ত।  পানি বন্ধ হওয়ার কারণ হিসাবে, পুলিশকে দেওয়া বয়ানে আদিত্য চোপড়া জানিয়েছেন, পরিচালকের সঙ্গে ক্রিয়েটিভ ডিফারেন্স এবং বাজেট সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মতপার্থক্যের জেরেই সেই ছবি বন্ধ হয়। তার সঙ্গে সুশান্তের কোনও যোগ নেই। অথচ সুশান্তের মৃত্যুর পর শেখর কাপুর সোশ্যাল মিডিয়ায় স্পষ্ট বলেছিলেন, ‘যশ রাজ ফিল্মস জানিয়েছিল আমরা সুশান্তের সঙ্গে পানি তৈরি করব না, পানি তৈরি হবে না’।

আদিত্য চোপড়া পুলিশকে জানিয়েছেন ব্যক্তিগতভাবে সুশান্তের সঙ্গে তাঁর কোনও সমস্যা বা মতপার্থক্য হয়নি। বনশালি পুলিশ বলেছেন, সুশান্তকে কোনও ছবি থেকেই তিনি বাদ দেননি, যশ রাজের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ থাকায় ছবি না করবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সুশান্ত নিজেই।

সুশান্তের কেরিয়ারের দ্বিতীয় ছবি শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স (২০১৩) এবং তিন নম্বর ছবি ডিটেক্টিভ ব্যোমকেশ বক্সী (২০১৫)-র প্রযোজক ছিলেন আদিত্য চোপড়া। মিডিয়া রিপোর্ট যদিও দাবি করে শুধু পানির বন্ধ হয়ে যাওয়া নয়, পরিচালক আদিত্য চোপড়া বেফিকরে ছবির হিরো হিসাবে রণবীর সিংকে বেছে নেওয়ার পরেই যশ রাজ ফিল্মসের সঙ্গে নিজের সব সম্পর্ক ছিন্ন করেছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত। 

বন্ধ করুন