বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Covid 19 Issues: ব্রেন স্ট্রোক, হার্টের সমস্যা বেড়েছে করোনা পরবর্তীকালীন সময়ে, মত বিশেষজ্ঞদের
করোনা পরবর্তীকালীন সময়ে বেড়েছে হার্টের অসুখ থেকে ব্রেন স্ট্রোকের সমস্যা

Covid 19 Issues: ব্রেন স্ট্রোক, হার্টের সমস্যা বেড়েছে করোনা পরবর্তীকালীন সময়ে, মত বিশেষজ্ঞদের

  • Covid-19 Issues: করোনা প্রাণ না কাড়লেও দিয়ে যাচ্ছে একাধিক রোগ। করোনা পরবর্তীকালীন সময়ে বেড়েছে হার্টের অসুখ থেকে ব্রেন স্ট্রোকের সমস্যা।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর থেকেই লক্ষ্য করা গিয়েছে যে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ব্রেন স্ট্রোক এবং হার্টের সমস্যা দিন দিন বেড়ে চলেছে। করোনা থেকে সুস্থ হলেও এই রোগগুলো থাবা বসাচ্ছে শরীরে।

এই বিষয়ে নারায়ণ হেলথের চেয়ারম্যান এবং ডিরেক্টর ডক্টর দেবী শেঠি জানান যে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে এই রোগ দীর্ঘকালীন ছাপ ফেলে যাচ্ছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের পর থেকেই লক্ষ্য করা গিয়েছে যে রোগীদের মধ্যে ব্রেন স্ট্রোক সহ হার্টের সমস্যা ভীষণ ভাবে বেড়ে গিয়েছে। তবে এই বিষয়ে বর্তমানে আরও স্পষ্ট ভাবে বলার জন্য আরও তথ্যের প্রয়োজন।

দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় দেখা যায় যে রোগীদের মস্তিষ্কে এবং হার্টে রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে। এই সমস্যাটা মূলত দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময়ই দেখা গিয়েছিল করোনার। কিন্তু এটা কেন হয়েছিল, এবং দুটো বিষয়ের মধ্যে আদৌ কোনও যোগসূত্র আছে কিনা সেই বিষয়ে নিশ্চিত করে বলার জন্য আরও বেশি তথ্যের প্রয়োজন আছে। কিন্তু এটা নিশ্চিত ভাবে বলা যায় যে ব্রেন স্ট্রোক এবং হার্টের অসুখের পরিমাণ সেই সব রোগীদের মধ্যে অনেক বেড়ে গিয়েছে যাঁরা কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এমনটাই জানিয়েছেন দেবী শেঠি।

অন্যদিকে দিল্লি এইমসের চিকিৎসক ডক্টর নীতিশ নায়েক বলেছেন যে করোনা এবং বাড়তে থাকা হার্টের সমস্যার মধ্যে কোনও যোগসূত্র আছে কিনা সেটা বোঝার জন্য বর্তমানে একাধিক কাজ চলছে। তাঁর মতে বহু সময় ধরেই এটা দেখা গিয়েছে যে, যে কোনও ধরনের ফ্লু হলেই সেটা হার্টের উপর প্রভাব ফেলে এবং হার্টের অসুখের সমস্যা বাড়ায়। করোনাও একই রকম বিহেভ করছে। কিন্তু এছাড়াও কোভিড এবং হার্টের অসুখের মধ্যে অন্য কোনও যোগসূত্র আছে কিনা সেই বিষয়ে এখনই নিশ্চিত ভাবে বলা যাবে না, বর্তমানে এটা নিয়ে গবেষণা চলছে।

বিশেষজ্ঞদদের মতে, যে কোনও ভাইরাল ফিভারের থেকে সারার সময় রোগীদের মধ্যে দুর্বলতা, যন্ত্রণা, মাথা ঘোরার সমস্যা দেখা যায়। কিন্তু যাঁদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে তাঁদের চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত এবং সেভাবেই চলা উচিত বলে মনে করেন ডক্টর নায়েক।

তবে ডক্টর নায়েকের সঙ্গে ডক্টর অরুণ শর্মা, যিনি ইন্ডিয়ান স্পাইনাল ইনজুরি সেন্টারের চিকিৎসক তাঁর মত মেলেনি। তিনি জানিয়েছেন যাঁদের কোভিড হয়েছে তাঁদের স্নায়ুর সমস্যা অনেক বেড়েছে। ডক্টর শর্মা জানিয়েছেন, অনেক অল্প বয়সীদের মধ্যে স্ট্রোকের সমস্যা দেখা গিয়েছে যেটা স্বাভাবিক নয়। শুধু স্ট্রোক বা হার্টের সমস্যা নয়, করোনা ভীষণ ভাবে মানসিক স্বাস্থ্যেরও ক্ষতি করেছে।

তাই চিকিৎসকরা পরামর্শ দিচ্ছেন যাঁদের করোনা হয়েছে বা হয়নি তাঁরা যেন সকলেই হালকা থেকে মাঝারি ধরনের প্রাণায়াম করেন। এটা যেমন হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখবে, তেমনই স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করবে।

এইমসের ডক্টর মঞ্জরি ত্রিপাঠী এএনআই-কে জানিয়েছেন বর্তমানে কোভিড পরবর্তীকালে রোগীদের মধ্যে স্নায়ুর সমস্যা দেখা যাচ্ছে তার মূল কারণ হচ্ছে এই রোগটা সরাসরি আমাদের মস্তিষ্ককে প্রভাবিত করছে। যার ফলে ডিমেনশিয়া, অল্প সময়ের জন্য সব ভুলে যাওয়া, ব্রেন স্ট্রোক, ইত্যাদির মতো সমস্যা এখন বাড়ছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে হার্টের সমস্যাও। তাই তিনি জানিয়েছেন যাঁরা কোভিড আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাঁরা সুস্থ হওয়ার পর যদি সামান্যতম বুকে ব্যথা বা কোনও সমস্যা অনুভব করেন তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান। বদহজম, গ্যাস বলে এই লক্ষণগুলোকে মোটেই উপেক্ষা করবেন না। যাতে কোনও সমস্যা এড়ানো যায় সহজেই।

বন্ধ করুন